মনোসরণি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মনোসরণি
উদ্ভবঢাকা, বাংলাদেশ
ধরনব্লুজ রক
জ্যাজ
রক
সাইকেডেলিক রক[১]
কার্যকাল২০০৪-বর্তমান
লেবেলবেঙ্গল মিউজিক
সদস্যবৃন্দপ্রবর রিপন
তাসবীহ প্রসূন
মুয়ীয মাহফুজ
রাহিন
বাঁধন
প্রাক্তন সদস্যবৃন্দরাবী
আশিক ইশতিয়াক
সাগর

মনোসরণি একটি বাংলাদেশি ব্যান্ড। ২০০৪ সালের ব্যান্ডটি প্রতিষ্ঠা লাভ করে।[১][২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ঘটনার শুরু সেই ২০০৪ সালে। দুই কবি—প্রবর রিপন ও মুয়ীজ মাহফুজ। যাদের পরিচয় কবিতার সূত্রে। কিন্তু তাদের সম্পর্ক বন্ধুত্বে গড়িয়েছিল ছোট কাগজ 'কালনেত্র'র হাত ধরে। তারা তখন কবিতার নেশায় মত্ত। আর এই কবিতার পিঠে ডানা জুড়ে দিতে শুরু করলেন গান। সিদ্ধান্ত নিলেন ব্যান্ড গড়ার। শুরু হলো মনোসরণির যাত্রা। আরও কিছু পরে তাদের পথের সঙ্গী হয়েছিলেন বুয়েটের প্রকৌশল বিভাগের ছাত্র তাসবীহ্ চৌধুরী প্রসূন। এর পরের বছরই তাদের সাথে যুক্ত হলেন একই প্রতিষ্ঠানের স্থাপত্যবিদ্যার ছাত্র বাঁধন। [৩]

নামকরণ[সম্পাদনা]

কবি জীবনানন্দ দাশ'র কবিতা থেকে ব্যান্ডটির নামকরণ করা হয়।[২]

অ্যালবাম প্রকাশ[সম্পাদনা]

মনোসরণির প্রথম গানটি প্রকাশ হয় ২০০৮ সালে মিক্সড অ্যালবাম 'বন্ধুতা'য়। গানের শিরোনাম 'জলে আগুন'। গানটি শ্রোতামহলে বেশ সাড়া পায়। এরপর ২০০৯ সালের মাঝামাঝিতে এসে তারা নিজেদের অ্যালবামের কাজ শুরু করেন। এর ৪ বছর পর বাজারে আসে তাদের অ্যালবামটি। নাম 'মনোসরণি'। এই অ্যালবামে মোট ১২টি গান রয়েছে। গানগুলো হচ্ছে—'নির্জন অভয়ারণ্য', 'তোমাকে ছাড়া', 'মানুষ না ক্রিতদাস', 'রামপাম', 'জীবন মানেই গড়মিল', 'মাকে লেখা চিঠি', 'মৌন মন্দির', 'আত্মজীবনী', 'জন্মান্ধের কানামাছি', 'হোমসিক', 'তোমাকে খুঁজছি' ও 'সুদর্শন রোবট'। অ্যালবামটি প্রকাশ করেছে বেঙ্গল মিউজিক। অ্যালবামের গানগুলোর কথা লিখেছেন প্রবর রিপন ও মুয়ীয মাহফুজ। শুধু কথা নয়, গানগুলোতে কণ্ঠও দিয়েছেন তারা। দেশের অস্থির পরিস্থিতিতে প্রকাশ হওয়া অ্যালবামটি শ্রোতাদের মনোযোগ পেতে সফল হয়েছিলো।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মনোসরণির দিকে"prothom-alo.com 
  2. http://archive.ittefaq.com.bd/index.php?ref=MjBfMDNfMjFfMTNfNF80NF8xXzI3NjY1
  3. Khawaja Ashraful Hawak, Md Abdul Wadud। "জ্বলে ওঠা মনোসরণি"দৈনিক সমকাল। ৫ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫