ভেম্বনাড় হ্রদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভেম্বনাড় হ্রদ
House Boat DSW.jpg
হ্রদে ভ্রমণরত একটি প্রমোদতরী
ভেম্বনাড় হ্রদ কেরালা-এ অবস্থিত
ভেম্বনাড় হ্রদ
ভেম্বনাড় হ্রদ
স্থানাঙ্ক৯°৩৫′ উত্তর ৭৬°২৫′ পূর্ব / ৯.৫৮৩° উত্তর ৭৬.৪১৭° পূর্ব / 9.583; 76.417স্থানাঙ্ক: ৯°৩৫′ উত্তর ৭৬°২৫′ পূর্ব / ৯.৫৮৩° উত্তর ৭৬.৪১৭° পূর্ব / 9.583; 76.417
স্থানীয় নামവേമ്പനാട്ട് കായല്‍
প্রাথমিক অন্তর্প্রবাহআচনকোয়িল, মণিমালা, মীনচিল, মুবাত্তুপ্পি, পম্পা, পেরিয়ার
প্রাথমিক বহিঃপ্রবাহএকাধিক খাল
অববাহিকার দেশসমূহভারত
সর্বাধিক দৈর্ঘ্য৯৬.৫ কিমি (৬০.০ মা)
সর্বাধিক প্রস্থ১৪ কিমি (৮.৭ মা)
পৃষ্ঠতল অঞ্চল২,০৩৩ কিমি (৭৮৫ মা)
সর্বাধিক গভীরতা১২ মি (৩৯ ফু)
পৃষ্ঠতলীয় উচ্চতা০ মি (০ ফু)
দ্বীপপুঞ্জপাতিরামানল, পেরুম্বলম, পল্লীপুরম
জনবসতিকোট্টায়ম, আলেপ্পি, কোচি, চের্তলা
প্রাতিষ্ঠানিক নামভেম্বনাড় কোয়িল জলাভূমি
অন্তর্ভুক্তির তারিখ১৯শে আগস্ট ২০০২

ভেম্বনাড় (ভেম্বনাড় কয়াল বা ভেম্বনাড় কোল) কেরালা রাজ্যে অবস্থিত ভারতের দীর্ঘতম হ্রদ৷[১] এটি কেরালার বৃহত্তম ও দীর্ঘতম হ্রদ এবং পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত ২১১৪ বর্গকিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত ম্যানগ্রোভ অভয়ারণ্য সুন্দরবনের পরেই ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম রামসার অঞ্চল এটি৷ কেরালা একাধিক জেলা জুড়ে এর বিস্তৃতি, আলেপ্পি জেলাতে ভেম্বনাড় হ্রদ, কুট্টনাড়ে পুণ্ণমদ হ্রদ এবং কোচিতে এটি কোচি হ্রদ নামে পরিচিত৷ এর্নাকুলাম জেলার কোচি হ্রদ অংশে একাধিক ছোটো ছোটো দ্বীপের গুচ্ছ দেখা যায়, এগুলির মধ্যে বাইপিন, মুলবুঘাট, বল্লারপাটম, উইলিংডন দ্বীপ উল্লেখযোগ্য৷ উইলিংডন দ্বীপ এবং বল্লারপাটম দ্বীপদুটিকে কেন্দ্র করে কোচি বন্দর নির্মিত৷

আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে ওণাম উৎসব চলাকালীন এই হ্রদের একটি অংশে নৌকাবাইচের প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে৷ এর মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয়টি হলো নেহেরু ট্রফি বল্লমকলি৷ ভেম্বনাড় কয়ালকে কেন্দ্র করে পর্যটনোত্তম স্থানগুলিতে বিপুল পরিমান জনবসতি লক্ষ্য করা যায়৷ ভারত সরকার ভেম্বনাড় জলাশয়কে জাতীয় জলাশয়ের সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতাভুক্ত করেছে৷

ভূগোল ও জলাশয় বর্ণন[সম্পাদনা]

কেরালায় ভেম্বনাড় হ্রদের অবস্থান

ভেম্বনাড় জলাভূমি ২০৩৩.০২ বর্গ কিলোমিটার অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত হওয়ায়[২] ক্ষেত্রফলের বিচারে এটি পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন ম্যানগ্রোভ অরণ্যের পর ভারতের দ্বিতীয় বৃহত্তম জলাভূমি অঞ্চল। এই জলাভূমির ৩৯৮.১২ বর্গ কিলোমিটার উপরি ক্ষেত্রফল প্রমাণ সমুদ্রতলের নীচে অবস্থিত এবং ৭৬৩.২৩ বর্গ কিলোমিটার উপরি ক্ষেত্রফল প্রমাণ সমুদ্রতলের ১ মিটারের অধিক নীচে অবস্থিত৷ হ্রদটি আলেপ্পি, কোট্টায়ম এবং এর্নাকুলাম জেলার সীমান্ত বরাবর অবস্থিত৷ এটি সমুদ্রতলে অবস্থিত এবং লাক্ষাদ্বীপ সাগরের সাথে প্রাচীর দ্বীপের দ্বারা বিচ্ছিন্ন৷ খালগুলি এই হ্রদের সাথে উত্তরে ও দক্ষিণে উপকুল বরাবর বিস্তৃত অন্যান্য কয়ালগুলির যোগ স্থাপন করে৷ হ্রদটি পাতিরামানল, পেরুম্বলমপল্লীপুরম দ্বীপতিনটি ঘিরে অবস্থান করছে৷ ভেম্বনাড় হ্রদের সর্বাধিক বিস্তৃত প্রস্থ প্রায় ১৪ কিলোমিটার দীর্ঘ৷ হ্রদটি ভেম্বনাড় কোন জলাভূমি তন্ত্রের অংশ, যা দক্ষিণে আলেপ্পি থেকে উত্তরে আলীঘাট অবধি ৯৬.৫ কিলোমিটার দীর্ঘ৷ আয়তনের বিচারে এটি ভারতে দীর্ঘতম হ্রদের মর্যাদা পেয়েছে৷ হ্রদটি মোট দশটি নদী ও মধ্য কেরালার ছয়টি প্রধান নদী তথা আচনকোয়িল, মণিমালা, মীনচিল, মুবাত্তুপ্পি, পম্পা, পেরিয়ার নদীর জলে পুষ্ট৷ হ্রদ গঠন ও নদীগুলির উপত্যকার মোট ক্ষেত্রফল প্রায় ১৫,৭৭০ বর্গ কিলোমিটার,[৩] যা কেরালার মোট ক্ষেত্রফলের প্রায় ৪০ শতাংশ৷ এই হ্রদের বার্ষিক পৃষ্ঠগড়ানো জলের পরিমান ২১,৯০০ এমএম, যা সমগ্র কেরালার পৃষ্ঠজলের উৎসের প্রায় ৩০ শতাংশ৷

হ্রদের তীরে অবস্থিত সর্বাধিক জনপ্রিয় পর্যটন স্থলটি পূর্ব কূলে অবস্থিত কুমারকম পর্যটন গ্রাম৷[৪] এই কুমারকম গ্রামে উত্তর প্রান্তে রয়েছে দর্শনীয় কুমারকম পাখিরালয়, যা ভেম্বনাড় পাখিরালয় নামেও পরিচিত৷ ২০০২ খ্রিস্টাব্দে এটি জলাভূমি সংরক্ষণ এবং সুদুরপ্রসারী ব্যবহারের উদ্দেশ্যে গঠিত রামসার কনভেনশনের অন্তর্ভুক্ত হয় ফলে আন্তর্জাতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ জলাভূমির তালিকায় এই হ্রদের নাম উঠে আসে৷ কেরালায় অবস্থিত তিনটি রামসার ক্ষেত্রের মধ্যে এটি বৃহত্তম৷ ভেম্বনাড় হ্রদকে কেন্দ্র করে গত এক শতাব্দীতে বহুবার জলাভূমির আয়তন হ্রাস বিষয়ক গুরুতর অভিযোগ রয়েছে৷ ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দে জলাশয়ের উপরিতলের ক্ষেত্রফল ছিলো ২৯০.৮৫ বর্গ কিলোমিটার, ১৯৭১ সালে তা কমে ২২৭ বর্গ কিলোমিটার এবং ১৯৯০ সালে তা ২১৩.২৮ বর্গ কিলোমিটার হয়৷ ঐ একই সময়ে কোচি বন্দরের সার্বিক উন্নয়ন ও বৃহদীকরণের জন্য ওয়েলিংডন দ্বীপ থেকে হ্রদ হয়ে ৬৩.৬২ কিলোমিটার একটি পথ নির্মাণের পরিকল্পনা করা হয়েছিলো৷ জমি বোজানো ও অবৈধতার কারণে হ্রদের প্রায় ৩৭ শতাংশ আয়তন হ্রাস পায় যা হ্রদের জীববৈচিত্রের ওপর ব্যাপক প্রভাব ফেলে৷

হ্রদটির একটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো জোয়ার-ভাটার প্রভাব ও কুট্টনাড় নীচুভূমিতে লোনা জলের প্রবেশ আটকাতে নির্মিত ১,২৫২ মিটার (৪,১০৮ ফু)-দীর্ঘ তণীর্মুখম পোস্তা৷ এটি ভারতের দীর্ঘতম নিয়ামক বাঁধ, যা হ্রদটিকে দুটি ভাগে বিভক্ত করে৷ এই দুটি ভাগে স্পষ্ট দুটি ধারা পাওয়া যায়, একটি চিরৈষৎ লবণাক্ত ধারা এবং অপরটি নদীগুলি দ্বারা হ্রদে আনীত মিঠা জলের স্রোত৷ এই বাঁধটি নীচু কৃষিক্ষেত্রে লবণাক্ত জল আটকানোর জন্য কুট্টনাড়ের স্থানীয় কৃষকদের সহযোগী৷ এরফলে শুষ্ককালেও এই অঞ্চল চাষের উপযোগী৷ এই পোস্তাটি ভেম্বনাড় কয়ালের সংকীর্ণতম অংশে নির্মিত৷ জুলাই মাসে বন্যা নিয়ন্ত্রন করতে বাঁধের দরজাগুলির মাত্র দুই তৃতীয়াংশ খোলা রাখা হয় এবং তারপর থেকে নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি অবধি এই দরজাগুলি বন্ধ রাখা হয়৷ তবে এই বাঁধের একটি কুফল রয়েছে, প্রচুর মাছ ও চিংড়ি বাঁধের উজানির জলে আসতে না পারায় মাছ চাষের ক্ষতি হয়৷ এছাড়াও উজানিতে ঐ একই কারণে আগাছার সংখ্যাও উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা প্রাকৃতিকভাবে দূষণ ঘটাচ্ছে৷ এই বাঁধ প্রাথমিক ভাবে কচুরিপানার মিঠা জলের দিকে প্রাথমিক বৃদ্ধিকে প্রতিহত করা ছাড়াও হ্রদের বাস্তুতন্ত্রের ওপর যথেষ্ট ঋনাত্মক প্রভাব ফেলেছে৷

জনবসতি[সম্পাদনা]

ভেম্বনাড় কয়াল অঞ্চলকে কেন্দ্র করে কেরালার প্রায় ১৬ লক্ষ লোকের অধিক (কেরালার মোট জনসংখ্যার ৫ শতাংশ) জনবসতি রয়েছে, যারা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ওই হ্রদের ওপর তাদের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করছেন। [৫] বন্দর শহর কোচি এই হ্রদেরই বহির্ভাগে লাক্ষাদ্বীপ সাগরের নিকট অবস্থিত।

ভেম্বনাড় কোয়েল ও উচ্চভূমির মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত কোট্টায়ম শহরকে পত্রশহর, কয়ালশহর বা অনেক সময় তরুক্ষীরের শহর উপাধিতে ভূষিত করা হয়ে থাকে। ভেম্বনাড় কয়াল এবং তৎসংলগ্ন একাধিক নালার উপস্থিতির জন্য কয়াল ওলা খারাপ সাগরের মধ্যবর্তী স্থানে অবস্থিত আলেপ্পি শহরকে প্রাচ্যের ভেনিস বলা হয়ে থাকে।

পর্যটন[সম্পাদনা]

ভেম্বনাড় কয়ালের প্রমোদ তরী

কেরালার কয়াল ভিত্তিক পর্যটনের মূলকেন্দ্র হলো এই ভেম্বনাড় হ্রদ৷ হ্রদটি ঐতিহ্যবাহী বাইচি প্রমোদ নৌকার আঁতুড়ঘর, স্থানীয় ভাষায় এটিকে কেট্টুবল্লম বলা হয়ে থাকে৷ এগুলি মূলত ভ্রমণতরী ও প্রমোদতরীর মধ্যবর্তী৷ [৬] হ্রদের পূর্ব তীরে রয়েছে কুমারকম পাখিরালয়৷ সৌন্দর্যের কারণে হ্রদটি একটি বৃহত্তর পর্যটন কেন্দ্র হয়ে উঠেছে৷ সাধারণভাবে নিরাপদ এই ভ্রমণ গন্তব্যে ২০০৪ খ্রিস্টাব্দে মাত্র একটি পর্যটক নিগ্রহের অভিযোগ নথিভুক্ত হয়৷ [৭]

অভ্যন্তরস্থ পরিবহন[সম্পাদনা]

ভেম্বনাড় জলাভূমি ব্যবস্থা হলো সংরক্ষিত বনাঞ্চল, পাখিরালয়, উপহ্রদ এবং প্রচুর খালের একটি জটিল আন্তর্জালক৷ এই ব্যবস্থাটি উত্তর থেকে দক্ষিণে সর্বাধিক ১৯৬ কিলোমিটার এবং প্রস্থে সর্বাধিক ২৯ কিলোমিটার দৈর্ঘে বিস্তৃত৷ এই ব্যবস্থার অন্তর্গত গ্রামগুলির প্রতিটিই জলপরিবহনের মাধ্যমে একে অপরের সাথে যুক্ত৷ বহত্তর উৎস নদীগুলির মধ্যে মুবাত্তুপুড়া, মীনচিল, পম্পা এবং আচনকোয়িল নদীর মাধ্যমে ভাটি থেকে উজানিতে জোয়ার-ভাটার ফলে ৩০ কিলোমিটার অবধি যাতায়াত করা যায়৷ কোট্টাপুরম থেকে কোল্লাম পর্যন্ত পশ্চিম উপকুলীয় খালপথে ভেম্বনাড় হ্রদ থেকে অতিবাহিত হওয়া সর্বাধিক ২০৯ কিলোমিটার দৈর্ঘযুক্ত জলপথ৷ এটি জাতীয় জলপথ ৩-এর তকমাপ্রাপ্ত৷[৮]

বাস্তুতান্ত্রিক গুরুত্ব[সম্পাদনা]

জলাভূমি সংরক্ষণ এবং তার সদ্ব্যবহারের জন্য গঠিত রামসার কনভেনশন ভেম্বনাড় কয়াল জলাভূমিকে বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ জলাভূমির তালিকায় তালিকাভুক্ত করেছে। [৯] এটি ২০,০০০ এর অধিক জলকুক্কুট-এর বাসস্থান সংখ্যার বিচারে যা ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম। এছাড়াও চিংড়ি জাতীয় জলজ প্রাণীর ক্ষেত্রে এটি একটি প্রাকৃতিক ও আদর্শ বাসস্থান। [১০] নদীর তীরে অবস্থিত জনবসতির জীবিকা নির্বাহ হয় নত কৃষিকাজ মাছ চাষ পর্যটন গণপরিবহন নারকেলের ছোবড়া থেকে দড়ি ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় বস্তু তৈরি, ঝিনুক এবং প্রাণীজ কম্বোজ সংগ্রহ করে। তবে হ্রদের ধার বরাবর অনিয়ন্ত্রিত প্রাণিজ কম্বোজ সংগ্রহ হ্রদের বাস্তুতন্ত্রকে প্রভাবিত করেছে। আশেপাশে জনবসতি কলকারখানায় এবং আলেপ্পি চিকিৎসালয় ও চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় থেকে আগত বিভিন্ন বর্জ্য পদার্থ এই হ্রদের জলে মিশে জলাশয়ে দ্রবীভূত অক্সিজেনের পরিমাণ হ্রাস করে চলেছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Ayub, Akber (ed), Kerala: Maps & More, 2006 edition 2007 reprint, p. 48, Stark World Publishing, Bangalore, আইএসবিএন ৮১-৯০২৫০৫-২-৩
  2. "Vembanad - Kol Wetland" (PDF)। R. Gopakumar and Kaoru Takara, Centre for Water Resources Development and management, Kozhikode। ২০১১-০৭-২১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০২-০৭ 
  3. "Ramsar Sites In Kerala" (PDF)। ENVIS Centre, Kerala। ২০১১-০৭-২১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০২-০৭ 
  4. "Kumarakom" 
  5. "Vembanad Wetland Conservation Program"। Ashoka Trust for Research in Ecology and the Environment। 
  6. "VEMBANAD LAKE | Kottayam District, Government of Kerala | India" 
  7. "Boat driver held for misbehaving with tourist - The Times of India"The Times Of India 
  8. http://egazette.nic.in/WriteReadData/2016/168716.pdf
  9. "The List of Wetlands of International Importance" (PDF)। The Secretariat of the Convention on Wetlands (Ramsar, Iran, 1971) Rue Mauverney 28, CH-1196 Gland, Switzerland। ২০০৮-০১-০২ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০১-০৭ 
  10. "Vembanad - Kol Wetland"। World Wildlife Fund। ২০০৬-০৫-২৪। ২০০৮-০২-১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-০১-২৩