ভয়াবহ নেকড়ে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ডায়ার উলফ (Canis dirus, ভয়াবহ নেকড়ে) হচ্ছে Canis বর্গের একটি বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া প্রজাতি। এটি উত্তর আমেরিকার সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রাগৈতিহাসিক মাংসাশী প্রাণীদের মধ্যে অন্যতম, যার মধ্যে রয়েছে এরই বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া প্রতিযোগী সেবার-টুথ বিড়াল Smilodon fatalis. ডায়ার উলফ লেট প্লাইস্টোসিন এবং আর্লি হলোসিন যুগে (১,২৫,০০০ - ৯,৫০০ বছর পূর্বে) আমেরিকা মহাদেশে পদচারনা করে বেড়াতো। প্রজাতীর নামকরণ করা হয় ১৮৫৮ সালে, প্রথম নমুনা পাওয়ার চার বছর পরে। দুটি উপপ্রজাতি এখন পর্যন্ত চিহ্নিত করা গেছেঃ Canis dirus guildayi এবং Canis dirus dirus. ডায়ার উলফ সম্ভবত উত্তর আমেরিকার আর্মব্রাস্টার উলফ (Canis armbrusteri) থেকে উৎপত্তি হয়েছে বলে ধারণা করে হয়। সবচেয়ে বেশী ফসিল পাওয়া গেছে লস এঞ্জেলসের লা ব্রি টার পিটস থেকে।

ডায়ার উলফ এর দেহাবশেষ বিভিন্ন ধরনের পরিবেশ থেকে সংগৃহিত হয়েছে যার মধ্যে অন্যতম - আমেরিকার বিভিন্ন এলাকায় অবস্থিত ঘাসজমি, বিরান ভূমি, পার্বত্য এলাকা, বন্য এলাকা ইত্যাদি এবং দক্ষিণ আমেরিকার সাভানা অঞ্চল। অঞ্চলগুলো সামুদ্রিক লেভেল থেকে ২,২৫৫ মিটার উচ্চতায় (৭,৪০০ ফুট) উচ্চতা পর্যন্ত অবস্থিত। ডায়ার উলফের ফসিল উত্তরের ৪২° অক্ষাংশে খুবই কম পাওয়া গেছে, এর মধ্যে পাঁচটি অমিমাংসিত রিপোর্টে এই অক্ষাংশের বাইরে তাদের অবস্থান পাওয়া গেছে। এই অক্ষাংশের সীমাবদ্ধতার মূল কারণ মনে করা হয় তাপমাত্রা, বাসস্থান ও শিকারের সীমাবদ্ধতা যার মূল কারন হচ্ছে যেই সময়ে অবস্থিত লরেনটাইডকরডিলিরান বরফখন্ডের উপস্থিতি।

ডায়ার উলফের আকার আকৃতি আধুনিক যুগের সবচেয়ে বৃহৎ ধূসর নেকড়ে (Canis lupus): Yukon wolf এবং northwestern wolf এর প্রায় কাছাকাছি। C. d. guildayi এর ওজন প্রায় ৬০ কেজি (১৩২ পাউন্ড) এবং C. d. dirus এর ওজন প্রায় ৬৮ কেজি (১৫০ পাউন্ড) বলে অনুমান করা হয়। এর খুলি এবং দাঁতের ধরন C. lupus কাছাকাছি, কিন্তু দাঁতের আকৃতি আরো বৃহ্ৎ ছিল এবং আরো অনেক বেশী শক্তিশালী ছিল। এটির কেনাইন দাঁতের দ্বারা সৃষ্ট কামড়ের শক্তি সব ধরনের পরিচিত কেনাইন প্রজাতীদের মধ্যে সর্বোচ্চ। ধারণা করা হয় যে, এই ধরনের বৈশিষ্টগুলি থাকার মূল কারণ হচ্ছে তৎকালীন Late Pleistocene mega-herbivores শিকার। উত্তর আমেরিকায় এ ধরনের শিকারের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ঘোড়া, গ্রাউন্ড স্লথ, মাসটোডন, বাইসন এবং উট। ডায়ার উলফের বিলুপ্তি ঘটে নতুন পৃথিবীতে মানুষ আগমনের অল্প কিছুদিন পরেই। এর বিলুপ্তির মূল কারণ হিসেবে অনুমান করা হয় এর খাদ্যাবস্থা, জলবায়ু পরিবর্তন তার সাথে সাথে অন্যান্য প্রানীদের সাথে প্রতিযোগিতা; কিন্তু বিলুপ্তির মূল কারণ এখনো পুরোপুরি নিশ্চিত না। ডায়ার উলফ ৯,৫০০ বছর পূর্বেও পৃথিবীর বুকে বিচরণ করে বেড়াতো; প্রাপ্ত ফসিলের প্রমাণ থেকে জানা যায়।

শ্রেনীবিন্যাস[সম্পাদনা]

১৮৫০ সাল থেকে বিভিন্ন বিলুপ্ত বৃহৎ নেকড়ের ফসিল পাওয়া যাচ্ছিল আমেরিকার বিভিন্ন জায়গায়, কিন্তু তখনো এটি পুরোপুরি নিশ্চিত ছিল না যে এই সমস্ত জীবাশ্ম এক প্রজাতির প্রানীরই অন্তর্গত। প্রথম সংগৃহিত নমুনা যেটিকে পরবর্তীতে Canis dirus নামে অভিহিত করা হয়, সেই নমুনাটি পাওয়া যায় ১৮৫৪ সালে, এভান্সভিল, ইন্ডিয়ানা স্টেটে ওহায়ো নদীর তীরে। জীবাশ্মিত চোয়ালের হাড়টি ভূবিজ্ঞানী Joseph Granville Norwood উদ্ধার করেন এভান্সভিলের এক কালেক্টরের কাছ থেকে। জীবাশ্মবিদ Joseph Leidy নির্ধারণ করেন যে উক্ত নমুনাটি একটি বিলুপ্ত নিকড়ের প্রজাতীকে নির্দেশ করে যার নাম মূলত Canis primaevus.

১৮৭৬ সালে প্রানীবিদ Joel Asaph Allen Canis mississippiensis প্রজাতির দেহাবশেষ আবিষ্কার করেন এবং এর সাথে C. dirus এবং Canis indianensis এর মিল খুঁজে পান। অতি অল্প পরিমান দেহাবশেষ পাওয়া যাওয়ায়, Allen চিন্তা করেন যে প্রত্যেকটি নমুনা এর নামে লিপিবদ্ধ থাকুক যতক্ষণ এদের মধ্যেকার সম্পর্কের প্রমাণাদি খুঁজে পাওয়া যায়। ১৯০৮ সালে জীবাশ্মবিদ John Campbell Merriam বিভিন্ন জীবাশ্মিত কঙ্কালের যথেষ্ট পরিমাণ অংশাবশেষ খুঁজে পেতে থাকেন এবং অবশেষে ফসিলগুলোকে একই প্রজাতির নেকড়ে C. dirus অংশাবিশেষ বলে প্রমাণিত করতে সক্ষম হন। ফসিলগুলোর যথাযথ পর্যবেক্ষণ শেষে ১৯১৮ সালে Merriam প্রস্তাবনা করেন যে তাদের নাম আলাদা একটি বর্গ Aenocyon (Aenos, ভয়াবহ এবং cyon, নেকড়ে) রাখা হোক যাতে Aenocyon dirus হতে পারে, কিন্তু সবাই তার এই প্রস্তাবনার সাথে একমত পোষণ না করে বরং Canis বর্গের মধ্যেই বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া নেকড়ে স্থান দিতে বললেন।

বিবর্তন[সম্পাদনা]

ধারণা করা হয় যে, Canid পরিবার এবং এর বর্গ Canis উভয়েরই উৎপত্তি ঘটেছে উত্তর আমেরিকায়, ৪ কোটি থেকে ৬০ লক্ষ বছর আগে।

১৯৮৭ সালে একটি নতুন তত্বের অবতারণা হয় যে, স্তন্যপায়ী জনসংখ্যা প্রয়োজন মোতাবেক বৃহৎ প্রজন্মের জন্ম দিতে পারে, যারা hypermorph নামেও পরিচিত। তারা মূলত যখন পরিবেশে প্রচুর পরিমাণ খাদ্যের দেখা মিলবে তখনই জন্ম নিতে পারবে, পরবর্তীতে খাদ্য ঘাটতি দেখা দিলে hypermorph হয় ক্ষুদ্র দেহের সাথে খাপ খাইয়ে নিবে নতুবা বিলুপ্ত হয়ে যাবে। এই তত্বটি সম্ভবত লেট প্লাইস্টোসিন যুগে বর্তমান যুগের তুলনায় স্তন্যপায়ীদের বৃহৎ দেহের একটি কারণ দাড়া করাতে পারবে। বিলুপ্তি এবং প্রজাত্যায়ন - উভয়ই নতুন প্রজাতি থেকে পুরাতন প্রজাতির আলাদা হয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া - চরম আবহাওয়া পরিবর্তনের সময়ে হতে পারে।