ব্রেক-ইভেন বিশ্লেষণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ব্রেক-ইভেন বিশ্লেষণ (ইং:Break-even Analysis ) ব্যষ্টিক অর্থনীতির একটি বহুল প্রচলিত ধারণা যার সাহায্যে পণ্যের এমন একটি উৎপাদন-পরিমাণ নিরূপণ করা হয় যেখানে একটি ব্যবসায় প্রতিষ্টানের না-হবে কোনো মুনাফা, না-হবে কোনো ক্ষতি। কোনো ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে মুনাফা অর্জন করতে হলে ব্রেক-ইভেন পরিমাণের চেয়ে বেশী পণ্য উৎপাদন ও বিক্রয় করতে সক্ষম হতে হবে। ঐ প্রতিষ্ঠানের পণ্য উৎপাদন ও বিক্রয়ের পরিমাণ ব্রেক-ইভেন পরিমাণের নিচে নেমে গেলে ক্ষতি হতে থাকবে। যারা ব্যবসায় পরিচালনা করে থাকেন, তাদের জন্য ব্রেক-ইভেন বিশ্লেষণ একটি উপকারী অনুশীলন।[১]

ব্রেক-ইভেন বিশ্লেষণের এই চিত্রে দেখানো হয়েছে যে ব্রেক-ইভেন পয়েন্টে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের কোনো লাভ বা ক্ষতি হয় না।

উৎপাদন ব্যয় ও আহৃত রাজস্বের সম্পর্ক[সম্পাদনা]

ব্রেক-ইভেন বিশ্লেষণে শিল্পপ্রতিষ্ঠানের উৎপাদন ব্যয় ও আহৃত রাজস্বের সম্পর্ক পরীক্ষা করা হয়ে থাকে। যে কোনো বিনিয়োগ বা ব্যবসায়ের লক্ষ্য মুনাফা অর্জন করা। মুনাফা পণ্যের মূল্যের একটি অংশ অর্থাৎ সরলভাবে বলা যায় পণ্যমূল্য = উৎপাদন ব্যয় + মুনাফা। কিন্তু উৎপাদন ব্যয় দুই প্রকার: একটি হলো ফিক্সড কস্ট আর অপরটি হলো ভ্যারিয়েবল কস্ট। একটি শিল্পপ্রতিষ্ঠানের স্থাপনের পর কোনো উৎপাদন না হলে অর্থাৎ উৎপাদিত পণ্যের পরিমাণ শূন্য হলে ফিক্সড কস্ট থাকবে কিন্তু ভ্যারিয়েবল কস্ট হবে শূন্য। উৎপাদন শুরু এবং উৎপাদনের পরিমাণ বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে সমানুপাতিক হারে ভ্যারিয়েবল কস্ট বৃদ্ধি পেয়ে থাকে। অন্যদিকে উৎপাদনের পরিমাণ যাই হোক না কেন, ফিক্সড কস্ট হবে এক ও অভিন্ন। এই জন্যে ডান পাশের চিত্রে ফিক্সড কস্টের রেখাটি আনুভূমিক অক্ষের সমান্তরাল। আর ভ্যারিয়েবল কস্টের রেখাটির সূত্রপাত উল্লম্ব অক্ষের ওপর থেকে। ভ্যারিয়েবল কস্টের রেখাটি অরিজিন (০,০) থেকে উত্থিত হয়ে ডান দিকে ঊর্দ্ধগামী।

মোট ব্যয় = ফিক্সড কস্ট + ভ্যারিয়েবল কস্ট। তাই উল্লম্ব অক্ষের ওপর যে বিন্দু থেকে ফিক্সড কস্ট শুরু হয়েছে সে একই বিন্দু থেকে মোট ব্যয় বা টোটাল কস্টের রেখাটি উত্থিত হয়ে ডান দিকে ঊর্দ্ধগামী।

অন্যদিকে রাজস্ব রেখাটি অরিজিন (০,০) থেকে উত্থিত হয়ে ডান দিকে ঊর্দ্ধগামী। রাজস্ব রেখাটি মোট ব্যয় বা টোটাল কস্ট রেখাটির তুলনায় বেশী খাড়া। এ দুটি রেখা পরস্পর একটি বিন্দুতে ইন্টারসেক্ট করে। এই বিন্দুটিকে বলা হয় ব্রেক-ইভেন বিন্দু। চিত্রে এই বিন্দুটি নামাঙ্কিত। কারণ এই বিন্দু নির্দেশ করে এমন একটি পরিমাণ যা উৎপাদন করলে অর্জিত রাজস্ব আর মোট ব্যয় সমান হবে। অর্থাৎ, ব্রেক-ইভেন বিন্দুতে রাজস্ব = মোট ব্যয়। তাই এই পরিমাণ উৎপাদন থেকে কোনো মুনাফা উপার্জ্জিত হবে না কারণ মুনাফা = রাজস্ব - মোট ব্যয়

ব্রেক-ইভেন বিন্দু থেকে যদি লম্বভাবে একটি রেখা নিচ বরাবর আঁকা হয় তবে তা আনুভূমিক অক্ষের ওপর বিন্দুতে ছেদ করে। এই বিন্দুটি ব্রেক-ইভেন পরিমাণ। এই পরিমাণের কম উৎপাদন করলে শিল্পপ্রতিষ্ঠানের ক্ষতি হবে। অন্যদিকে এই পরিমাণের বেশী উৎপাদন করলে শিল্পপ্রতিষ্ঠানের মুনাফা হবে।


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Lecture 15: Risk Analysis