ব্রেকথ্রু (২০১৯-এর চলচিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ব্রেকথ্রো (২০১৯ চলচিত্র)
Breakthrough (2019 film)
পরিচালকরক্সান ডাউসন
প্রযোজকডেভন ফ্রাঙ্কলিন
রচয়িতাজয়সি ‍স্মিথ ও জিন্জার কলবাবা
চিত্রনাট্যকারযোরান পপোভিক
উৎসদ্যা ইম্পোসিবল
শ্রেষ্ঠাংশেক্রিসি মেটজ

জোশ লোকাস
টফার গ্রেস
মাইক কলটার
মার্সেল রুইয
সাম ট্রাম্মল

ডেনিস হাইসবার্ট
সুরকারমার্সেলো যার্ভওস
সম্পাদকমেসেই হোই
প্রযোজনা
কোম্পানি
টুয়েন্টিথ সেঞ্চুরী ফক্স

ফক্স ২০০০ পিক্সার্সF ফ্রাঙ্কলিন এন্টারটেইনমেন্ট

ইউনানিমাউস মিডিয়া
পরিবেশকওয়াল্ট ডিজনী স্টুডিও মোশন পিকচার্স
মুক্তি১৭ই এপ্রিল, ২০১৯
দৈর্ঘ্য১১৬ মিনিট
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
আয়$ ৪৭.৯ মিলিয়ন [১]

ব্রেকথ্রু একটি ২০১৯ সালের আমেরিকান ক্রিশ্চিয়ান নাটক চলচ্চিত্র যা রক্স্যান ডাউসন কতৃক পরিচালিত এবং টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স মাধ্যমে ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস মোশন পিকচার্স এ মুক্তি পায়। এটি খ্রিস্টান উপন্যাস ''দ্যা ইম্পোসিবল'' উপর ভিত্তি করে গ্রান্ট নিওপোর্ট কতৃক রচিত যা জয়সি স্মিথের আদি কোলবাবা নিয়ে লেখা সত্য ঘটনা অবলম্বনে। চলচ্চিত্র তারকা ক্রিসি মেট্‌জ, জোস লুকাস, টোফার গ্রেস, মাইক কল্টার, মার্সেল রুইজ, স্যাম ট্রাম্মেল,আর ডেনিস হায়েসবার্ট এবং সমসাময়িক খৃস্টান শিল্পী ফিল উইকহাম একটি ক্ষণ চরিত্রে অভিনয় করেন। বাস্কেটবল খেলোয়াড় স্টিফেন কা’রি নির্বহী প্রযোজক হিসাবে কাজ করেছেন[২]

এই চলচ্চিত্রটি সেন্ট লুইস নামক কিশোরের গল্প বর্ণনা করা হয়েছে, যিনি ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে একটি বরফের হ্রদে পিছলে পড়ে গিয়েছিলেন এবং পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টা শুরু করার ১৫ মিনিট পূর্ব থেকেই পানির নিচে ছিল। যদিও উদ্ধার করা হয়েছে, তিনি কোমাতে আছেন, এবং তার পরিবার অবশ্যই তাদের বিশ্বাসের উপর অটুট থাকতে হবে, তার (সৃষ্টিকর্তা) অলৌকিকতার উপর নির্ভরশীল হয়ে। [৩] [৪]

ব্রেকথ্রু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ১৭ এপ্রিল, ২০১৯-এ মুক্তি পায় এবং ডিজনি কোম্পানীকে অধিগ্রহণের পর ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস মোশন পিকচার্স দ্বারা বিতরণ করা টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স এর প্রথম চলচ্চিত্র।

প্রতিজ্ঞা[সম্পাদনা]

২০১৫ সালের গোড়ার দিকে, কিশোর জন স্মিথ বন্ধুদের সঙ্গে সেন্ট লুইস লেকের কাছাকাছি খেলার সময় স্যান্ট লুইসের লেকটিতে বরফের মধ্য দিয়ে পড়ে গিয়েছিলেন, প্রথম প্রতিক্রিয়াকারী টমি শাইনের উদ্ধারের পরে কোমাতে চলে যায়। চলচ্চিত্রে তাঁর মা-বাবা জোসে এবং ব্রায়ান, যারা ঈশ্বরের বিশ্বাসের আশাবাদী জনতে জীবিত ফেরত পাবে।

চরিত্রায়ন[সম্পাদনা]

  • জোসে স্মিথের চরিত্রে ক্রিশি মেটজ, একজন অত্যন্ত ধর্মীয় নারী, ব্রায়ানের স্ত্রী এবং জনের পালিকা মা।
  • ব্রায়ান স্মিথ চরিত্রে জোসে লুকাস, জোসেসের স্বামী এবং জনের পালিত বাবা।
  • জন স্মিথ হিসাবে মার্সেল রুয়েজ, ১৪ বছর বয়সী একজন গুয়াতমালান যিনি একটি অলৌকিক পুনরুদ্ধার পেয়েছেন।
  • পাস্টর জেসন নোবেল চরিত্রে টোফার গ্রেস, যিনি একজন স্থানীয় যাজক এবং যুবকদের সাথে সংযোগ স্থাপন করার চেষ্টা করে।
  • টমি শাইনের চরিত্রে মাইক কল্টার, যিনি জনকে বাচাতে প্রথম সাড়াপ্রদানকারী ছিলেন যাঁর ঈশ্বরের সাথে একটি সংগে একটি মুহূর্ত ছিল ।
  • ডাঃ কেন্ট সুত্তেরার চরিত্রে স্যাম ট্র্যামেল
  • ডঃ গ্যারেট এর চরিত্রে ড্যানিস হেসবার্ট
  • আভি সুত্তেরার চরিত্রে মাদ্রি মার্টিন, ডাঃ সুত্তেরার মেয়ে এবং জন হবু প্রেমিকা।
  • জোশের চরিত্রে আইজাক ক্র্যাগ্টন জন এর বন্ধুদের একজন।
  • রিগারের চরিত্রে নিকোলাস ডিউকিক, জন এর বন্ধুদের একজন।
  • চায়লা চরিত্রে টেইলর মোসবি, জন এর বন্ধুদের একজন।
  • এম্মার চরিত্রে আলী স্কোব্বি, জন এর বন্ধুদের একজন।
  • ফায়ার চীফ হিসাবে চক শামতা
  • মিসেস অ্যাবট হিসাবে ন্যান্সি সোরেল। খ্রিস্টান মধ্যম স্কুলে পারিবারিক ইতিহাসের শিক্ষক যেখানে জন এবং তার বন্ধুরা উপস্থিত ছিলেন।
  • পউলা নোবেল হিসাবে লিসা ডুরুপ্ট, যাজক জেসনের স্ত্রী এবং তার ছেলে ও মেয়ের মা।
  • সিন্ডি রেগারের এর চরিত্রে রেবেকা স্ট্যাব

উৎপাদন[সম্পাদনা]

স্মিথ পরিবার প্রযোজক ডেভন ফ্রাঙ্কলিন এর সহায়তায় একটি সাহিত্য প্রকাশনা এজেন্ট খুজে পেল বই প্রকাশ করতে এবং এটি প্রকাশিত হওয়ার পরে একটি চলচ্চিত্রের রূপ দিলেন। [৫] মার্চ থেকে মে ২০১৮ পর্যন্ত সিনেমাটি ম্যানিটোবাতে চিত্রায়িত হয়। [৬] [৭] ৩১ দিনের শুটিংয়ের স্থানগুলিতে উইনপেইগ, সেল্কার্ক এবং পোর্টেজ লা প্রাইরি উল্লেখযোগ্য । [৮] [৯]

মার্কেটিং[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রের জন্য একটি অফিসিয়াল ট্রেলার ৫ ডিসেম্বর ২০১৮ এ মুক্তি পায় এবং দুই দিনের মধ্যে ৩০ মিলিয়নেরও বেশি দর্শক দেখে, যা সেই সময়ের মধ্যে একটি ধর্মীয় চলচ্চিত্রের জন্য সর্বাধিক দেখা ট্রেলার হয়ে ওঠে। [১০]

মেটিজ ক্যারি আন্ডারউড, লরেন অ্যালাইন, ম্যাডি ও টে এবং মিকি গায়্টনের পাশাপাশি ৫৪ তম একাডেমী অফ কান্ট্রি মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস এ ফিল্মের সাউন্ডট্র্যাক থেকে "আই স্টল উইথ ইউ ইউ" সঞ্চালিত।

মুক্তি[সম্পাদনা]

টুয়েন্টিয়েথ সেঞ্চুরি ফক্স ব্যানারের অধীনে ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ তারিখে ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস মোশন পিকচার্সের মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ব্রেকথ্রু মুক্তি পায়। একই দিনে ডিজনি ন্যাচার এর পেঙ্গুইন (ডিজনি দ্বারা বিতরণ করা আরেকটি চলচ্চিত্র) ও মুক্তি পায়। [১১]

রিসেপশন[সম্পাদনা]

বক্স অফিস[সম্পাদনা]

২০ মে ২০১৯ (2019-05-20) মোতাবেক, ব্রেকথ্রু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার $৩৯.১ মিলিয়ন ডলার এবং অন্যান্য অঞ্চলে $ ৮.৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সহ বিশ্বব্যাপী মোট $৪৭.৯ মিলিয়ন মার্কিন অর্জন করেছে। [১]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডাতে, ফিল্মটি পেঙ্গুইন এবং অভিশাপ অফ দ্য লা লারোনা পাশাপাশি মুক্তি পায় এবং এটি পাঁচ দিনের উদ্বোধনী সপ্তাহান্তে ২,৩০০ থিয়েটার থেকে ১৩-১৭ মিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নেয়। [১২] প্রথম দিনেই এই চলচ্চিত্রটি ১.৭ মিলিয়ন ডলার তৈরি করে। [১২]

সমালোচনামূলক প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

পর্যালোচনা সমষ্টিবিদ রাটন টমেটোস-এ, ছবিটির গড় রেটিং ৫.৬৭ / ১০ এর সাথে ৩৫ টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে ৬৩% এর অনুমোদন রেটিং রয়েছে। ওয়েবসাইটটির সমালোচনামূলক সমঝোতাটি পড়েছে, "তার প্রধান চরিত্রের মতো, ব্রেকথ্রু দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসের দিকে দৃষ্টি নিবদ্ধ করে - কিন্তু এই স্বল্পতা- চলচিত্রটির সূক্ষ্ম উপাদান, কোশলীদের দৃঢ় পারফরম্যান্স এবং একটি উর্ধ্বগামী গল্প দ্বারা সুষম হয়।" [১৩] মেটাক্রিটিকের উপর, ফিল্মটির সমষ্টিগত গড় স্কোর ১০০ টির মধ্যে ৪৮ টি, ১৩ সমালোচকদের উপর ভিত্তি করে, যা "মিশ্র বা গড় পর্যালোচনাগুলি" নির্দেশ করে। [১৪] সিনেমাস্কোর দ্বারা জরিপ করা দর্শকরা ফিল্মটিকে “ফ” স্কেলে “এ+” থেকে “এ” গড় গ্রেড দেয়। [১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Breakthrough (2019) - Box Office Mojo"www.boxofficemojo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২২ 
  2. Borys Kit; Scott Feinberg (২০১৮-১০-১৮)। "Stephen Curry to Executive Produce Faith-Based Drama 'Breakthrough' (Exclusive)"The Hollywood Reporter (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১২-০৯ 
  3. "Missouri Teen Submerged in Icy Lake for 15 Minutes Makes 'Miracle' Recovery"NBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-০২-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১২-১০ 
  4. Kay Quinn (২০১৭-১০-৩০)। "Miracle on ice becomes a book, movie"KSDK। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১২-১০ 
  5. Fleming, Jr., Mike (২০১৭-০১-১৯)। "Fox & DeVon Franklin Set Miracle Tale 'The Impossible'"Deadline (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৩-২১ 
  6. Roxann Dawson [@roxdaws] (২০১৮-০৫-০৯)। "I am heading home after 4 months in Winnipeg shooting my first feature. Could not be more proud and grateful for the incredible cast and crew." (টুইট) – টুইটার-এর মাধ্যমে। 
  7. "Major Movie Shoot (…And Luke Cage) In Winnipeg This Week"Hot 100.5। ২০১৮-০৪-১৯। 
  8. "Portage is Again Playing Host to Hollywood Cameras"। ২০১৮-০৩-১৩। 
  9. Mickey Dumont (২০১৮-০৫-০৬)। "Fox Film Crews Return" 
  10. Jeannie Law (ডিসেম্বর ১১, ২০১৮)। "'Breakthrough' movie trailer breaks record with 30 million views in 48 hours"। The Christian Post। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৫, ২০১৯ 
  11. Shepherd, Josh (২০১৯-০৩-১৯)। "'Breakthrough' Recounts Boy's Inexplicable Recovery From Drowning"The Federalist (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৩-২১ 
  12. Anthony D'Alessandro (এপ্রিল ১৬, ২০১৯)। "Will 'Shazam!' Be Cursed By 'Llorona' Over Easter Weekend? – Box Office Preview"Deadline Hollywood। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৬, ২০১৯ 
  13. "Breakthrough (2019)"Rotten TomatoesFandango। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৮, ২০১৯ 
  14. "Breakthrough reviews"MetacriticCBS Interactive। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ১৭, ২০১৯ 

বাহ্যিক লিঙ্ক[সম্পাদনা]