ব্রায়ান হজসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ব্রায়ান হজসন
Brian Houghton Hodgson by Louisa Starr-Canziani.jpg
ব্রায়ান হাটন হজসন
জন্ম (১৮০০-০২-০১)ফেব্রুয়ারি ১, ১৮০০
চেশায়ার, যুক্তরাজ্য
মৃত্যু মে ২৩, ১৮৯৪(১৮৯৪-০৫-২৩) (৯৪ বছর)
জাতীয়তা বৃটিশ
কর্মক্ষেত্র পক্ষীবিজ্ঞান
প্রাকৃতিক ইতিহাস
প্রাণীবিজ্ঞান

ব্রায়ান হাটন হজসন (জন্ম: ফেব্রুয়ারি ১, ১৮০০ (মতান্তরে ১৮০১)[১]মৃত্যু: মে ২৩, ১৮৯৪[২]) একজন বৃটিশ পক্ষীবিদ, প্রাণীবিদ এবং প্রকৃতিবিদ। তাঁর প্রধান কর্মক্ষেত্র ছিল বৃটিশ ভারতনেপালে। এসব অঞ্চলে তিনি বৃটিশ সরকারের কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি প্রথমবারের মত হিমালয় অঞ্চলের অসংখ্য পাখিস্তন্যপায়ী প্রাণীর বিবরণ দেন। তাঁর নামে কয়েক প্রজাতির পাখির নামকরণ করা হয়েছে। এসব নামের অধিকাংশই অ্যাডওয়ার্ড ব্লাইদের দেওয়া। এছাড়া তিব্বতি বৌদ্ধ মতবাদ নিয়ে গভীর গবেষণা করেন। ভাষাবিজ্ঞান ও ধর্মতত্ত্বের মত আরও অনেক বিচিত্র বিষয়েও তাঁর রচনার সন্ধান পাওয়া যায়। তিনি ভারতীয় বিদ্যালয়সমূহের শিক্ষাপদ্ধতি ইংলিশে করার ব্যাপক বিরোধিতা করেন।

পক্ষীবিজ্ঞান ও প্রাকৃতিক ইতিহাসে অবদান[সম্পাদনা]

দ্য রেসিডেন্সি, নেপালে হজসনের আবাস

হজসন নেপাল, সিকিমবাংলা থেকে প্রচুর প্রাকৃতিক ইতিহাসের সাথে সম্পর্কিত জীববৈজ্ঞানিক নমুনা সংগ্রহ করেন। তাঁর সংগ্রহকৃত পাখির নমুনা ও বিভিন্ন প্রাণীর চামড়া তিনি পরে বৃটিশ মিউজিয়ামে দান করে দেন। তিনি তিব্বতি অ্যান্টিলোপ নামে সম্পূর্ণ নতুন এক প্রজাতির অ্যান্টিলোপ আবিষ্কার করেন। তাঁর নামানুসারে প্রাণীটির নাম রাখা হয় Pantholops hodgsonii। এছাড়া তিনি আরও ৩৯ প্রজাতির স্তন্যপায়ী ও ১২৪ প্রজাতির পাখির বর্ণনা দেন যেগুলো কেউ আগে কখনও বর্ণনা করেনি। বৃটিশ মিউজিয়ামে হজসন ১৮৪৩ থেকে ১৮৫৮ সালের মধ্যে প্রায় ১০,৪৯৯টি জীববৈজ্ঞানিক নমুনা দান করেন। তাঁর দান করা জিনিসপত্রের মধ্যে ছিল স্থানীয় আঁকিয়েদের অঙ্কিত বিপুল পরিমানে ভারতীয় জীবজন্তুর রঙিন ছবি আর স্কেচ। পরবর্তীতে এসকল নমুনার সিংহভাগ জ্যুলজিক্যাল সোসাইটি অব লন্ডনে স্থানান্তরিত হয়।[৩]

তাঁর অবদান ও কর্মকাণ্ড যথাযথ স্বীকৃতি পায়। রয়েল এশিয়াটিক সোসাইটি এবং লন্ডনের লিনিয়ান সোসাইটি তাঁকে সদস্য নির্বাচিত করে। জ্যুলজিক্যাল সোসাইটি অব লন্ডন তাঁকে প্রশংসাপত্র প্রদান করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Waterhouse, David (Ed.) (2004) The origins of Himalayan studies. Routledge.
  2. May 28, 1894 According to M. A. Smith in the Fauna of British India. 1941
  3. Low GC, Dewar D, Newman TH, Levett-Yeats GA (১৯৩০)। "A Classification Of The Original Watercolour Paintings Of Birds Of India By B. H. Hodgson, S. R. Tickell, And C. F. Sharpe In The Library Of The Zoological Society Of London"। Proceedings of the Zoological Society of London 100 (3): 549–626। ডিওআই:10.1111/j.1096-3642.1930.tb00991.x 

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • Barbara and Richard Mearns - Biographies for Birdwatchers ISBN 0-12-487422-3
  • Lydekker, R. (1902) Some famous Anglo-Indian naturalists of the nineteenth century. Indian Review Vol.3:221-226
  • Cocker, M. & Inskipp, C. (1988) A Himalayan ornithologist: The life and work of Brian Houghton Hodgson. Oxford University Press: Oxford. 89pp.
  • Dickinson, E.C. Systematic notes on Asian birds. 52. An introduction to the bird collections of Brian Houghton Hodgson (1801–1894). Zoologische Mededelingen Leiden 80-5 (4), 21.xii.2006: 125-136. PDF
  • Hunter, W.W. (১৮৯৬)। Life of Brian Houghton Hodgson। London: John Murray। 
  • Mitra, Rajendralala (১৮৮২)। The Sanskrit Buddhist Literature of Nepal। Asiatic Society of Bengal, Calcutta। 
  • Smith, M. A. 1941. Fauna of British India. Reptilia and Amphibia.
  • Waterhouse, David M. (2004) The Origins of Himalayan Studies: Brian Houghton Hodgson in Nepal and Darjeeling, 1820-1858. Routledge. ISBN 0-415-31215-9

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]