ব্রাউজার ইঞ্জিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ব্রাউজার ইঞ্জিন (ইংরেজি: Browser Engine) হলো প্রতিটি প্রধান ওয়েব ব্রাউজারের মূল সফটওয়্যার উপাদান। ব্রাউজার ইঞ্জিনের প্রাথমিক কাজ হলো এইচটিএমএল ডকুমেন্ট ও ওয়েব পৃষ্ঠার অন্যান্য রিসোর্সকে ব্যবহারকারীর যন্ত্রে একটি মিথষ্ক্রিয় চাক্ষুষ উপস্থাপনায় রূপান্তর করা।

নাম এবং ব্যবহার[সম্পাদনা]

ব্রাউজার ইঞ্জিন কোন স্বকীয় ও স্বাধীন কম্পিউটার প্রোগ্রাম নয়, কিন্তু বড় একটি প্রোগ্রামের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ, যেমন, ওয়েব ব্রাউজার, যেখান থেকে এ শব্দগুচ্ছের ব্যুতপত্তি ( ইঞ্জিন শব্দটি গাড়ির ইঞ্জিনের উপমা)।

ব্রাউজার ইঞ্জিনের পাশাপাশি, দুই বা ততোধিক টার্মও প্রচলিত রয়েছে, যথাঃ লেআউট ইঞ্জিন[১][২] and rendering engine[২][৩]। তাত্ত্বিকভাবে লেআউট ও রেন্ডারিং (অথবা পেইন্টিং) ভিন্ন ইঞ্জিন কর্তৃক নিয়ন্ত্রন করা যাবে। তবে বাস্তবিক ক্ষেত্রে, তারা একইসাথে আবদ্ধ থাকে এবং আলাদা খুব কমই বিবেচিত হয়।

লেআউট ও রেন্ডারিঙের সাথে সাথে, ব্রাউজার ইঞ্জিন ডকুমেন্ট সমূহের মধ্যে নিরাপত্তা নীতি জোরদার ও স্ক্রিপ্টে প্রকাশিত ডকুমেন্ট অবজেক্ট মডেল বা ডিওএম ডাটা গঠন বাস্তবায়ন করে। তারা হাইপারলিংক ও ওয়েব ফরমও নিয়ন্ত্রণ করে।

জাভাস্ক্রিপ্ট কোড এক্সিকিউট করা ভিন্ন একটি বিষয়, প্রায় প্রত্যাকটি প্রধান ব্রাউজার যার জন্যে আলাদা একটি জাভাস্ক্রিপ্ট ইঞ্জিন ব্যবহার করে। জাভাস্ক্রিপ্ট ভাষাটিই ব্রাউজারে ব্যবহার হওয়ার জন্যে তৈরি হয়েছিলো, কিন্তু এখন অন্যান্য ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হয়। তাই জাভাস্ক্রিপ্ট ইঞ্জিনকে ব্রাউজ্র ইঞ্জিন থেকে পৃথক করে রাখা হয়।

ওয়েব্ ব্রাউজার ছাড়াও এখন ব্রাউজার ইঞ্জিন অন্যন্য ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, ইমেইল ক্লায়েন্ট এইচটিএমএল ইমেইল দেখানোর জন্যে লাগে। ইলেকট্রন ফ্রেমওয়ার্ক, যেটির মূলে রয়েছে গুগল ক্রোমের দুটো ইঞ্জিন, অনেক এপ্লিকেশন নির্মানে ব্যবহার করা হয়।

লেআউট এবং রেন্ডারিং[সম্পাদনা]

অধিকাংশ ওয়েব পেজের লেআউট সাধারণত সিএসএস কর্তৃক ঠিক করা থাকে। প্রতিটি স্টাইল শিটই নিয়মের একটি ধারা, যেটি ব্রাউজার ইঞ্জিন অনুবাদ করে। উদাহরণস্বরূপ, কিছু রুল টাইপোগ্রাফি বিস্তারিত নির্দিষ্ট করে দেয়, যেমন ফন্ট, রং, এবং টেক্সটের আয়তন। ইঞ্জিন সকল সম্পর্কিত সিএসএস রুল একত্রিত করে, চাক্ষুষ উপস্থাপনার জন্যে সুনির্দিষ্ট গ্রাফিকাল সমন্বয় হিসেব করে। T

কিছু ইঞ্জিন পুরো রিসোর্স ডাউনলোড হওয়ার আগেই রেন্ডারিং শুরু করে। যেমন, অপেরার পূর্ববর্তী সংস্করণ যেগুলো প্রেস্টো ব্যবহার করতো, সেগুলোতে ছবি আসতো ধীরে ধীরে ভাঙা ভাঙা ভাবে।

উল্লেখযোগ্য ইঞ্জিন[সম্পাদনা]

ফেব্রুয়ারি ২০১৪তে উইকিপিডিয়ায় ব্রাউজারের ব্যবহার
গুগল ক্রোম, অপেরা ও অন্যান্য সংস্করণ (ব্লিংক)
  
৪৩.০০%
ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার (ট্রাইডেন্ট)
  
২৫.৮০%
ফায়ারফক্স ও অন্যান্য সংস্করণ (গেকো)
  
১৮.২২%
সাফারি ও অন্যান্য সংস্করণ (ওয়েবকিট)
  
৫.৯০%
অপেরা (প্রেস্টো)
  
২.৩১%
অন্যান্য
  
৪.৭৭%
ফেব্রুয়ারি ২০১৪ সালে নন-মোবাইল ওয়েব ব্রাউজার ব্যবহার ।[৪]

যেহেতু ওয়েব প্লাটফরম একটি ওপেন স্ট্যান্ডার্ড, একাধিক ব্রাউজার ইঞ্জিন ইম্প্লিমেন্টেশন রয়েছে।

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার, মাইক্রোসফট আউটলুক, এবং অন্যান্য উইন্ডোজ এপ্লিকেশনে ব্যবহৃত ব্রাউজার ইঞ্জিন হলো ট্রাইডেন্ট। এর উন্নয়ন করেছে মাইক্রোসফট, যারা পরবর্তীতে মাইক্রোসফট এজ ওয়েব ব্রাউজারের জন্যে এজএইচটিএমএল ইঞ্জিনের উদ্ভাবন করে।

গেকো মোজিলা প্রকল্পের ব্রাউজার ইঞ্জিন, যেটি ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজার, মোজিলা থান্ডারবার্ড ইমেইল ক্লায়েন্ট, এবং সিমানকি ইন্টারনেট স্যুটে ব্যবহার করা হয়। গোয়ানা গেকোর একটি ফোর্ক, যেটি পেল মুন ব্রাউজারে ব্যবহার করা হয়।

ওয়েবকিট আগে মূলত গুগল ক্রোমে ব্যবহৃত হলেও, বর্তমানে এটি সাফারির ব্রাউজার ইঞ্জিন। ওয়েবকিটের শুরু কেএইচটিএমএলের এপল-ফোর্ক হিসেবে। গুগল পরবর্তীতে ওয়েবকিট ফোর্ক ব্লিংক উদ্ভাবন করে, যেটি বর্তমান গুগল কর্তৃক স্বকীয়ভাবে ডেভেলপ হচ্ছে।

ওয়েবকিট এবং ব্লিংক দুটোই অন্যান্য ব্রাউজারেও ব্যবহৃত হয়। এপ স্টোরের সমস্ত ওয়েব ব্রাউজারই ওয়েবকিট লেআউট ইঞ্জিন ব্যবহার করতে বাধ্য। যেমন- অপেরার ডেস্কটপ সংস্করণ ব্লিংক ব্যবহার করলেও, আইওএস সংস্করণ প্রেস্টো ব্যবহার করে। যাইহোক, পূর্বে অপেরা তাদের নিজস্ব প্রেস্টো ইঞ্জিন ব্যবহার করতো।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gecko"। Mozilla। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-২১ 
  2. "Introducing Goanna"। M.C. Straver। ২০১৫-০৬-২২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-২১ 
  3. "Behind the scenes of modern web browsers"। Tali Garsiel। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৪-২১ 
  4. Wikimedia Traffic Analysis Report - Browsers e.a.: Monthly requests or daily averages, for period: 1 Feb 2014 - 28 Feb 2014, Wikimedia