ব্যবহারকারী আলাপ:জায়েদ হোসাইন লাকী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

জায়েদ হোসাইন লাকী পিতা : মরহুম কে. এম. তোফাজ্জল হোসাইন (টি, হোসাইন)। (ভাষাসৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, প্রাক্তন ওয়েলফেয়ার অফিসার-বাংলাদেশ সরকারী মুদ্রণালয়) মাতা : সুফিয়া বেগম (গৃহিণী) জন্ম : ১৮ জুলাই ১৯৭৫ ঢাকা। পৈত্রিক বাসঃ ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা উপজেলাস্থ গজারিয়া গ্রাম।


শিক্ষাজীবনঃ জায়েদ হোসাইন লাকী রাষ্ট্র বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর করেছেন ১৯৯৯ সালে সরকারী রাজেন্দ্র কলেজ, ফরিদপুর থেকে এছাড়াও তিনি ‘মানব সম্পদ ব্যাবস্থাপনা’য় স্নাতকোত্তর (২০১১) ডিগ্রী সম্পন্ন করেছেন। কম্পিউটার সাইয়েন্সে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েছেন একটি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে। সরকারী মুকসুদপুর কলেজ ছাত্রসংসদ থেকে ‘জিএস’ পদে নির্বাচন করেছিলেন ১৯৯৩ সালে এবং একটি ছাত্র সংগঠনের শীর্ষ পদে ছিলেন দীর্ঘদিন। প্রথাগত রাজনীতি থেকে সরে আসেন ২০০৩ সালে।

চাকুরী জীবনঃ তিনি এজনিও পেশায় চাকুরী জীবন শুরু করেন, আশা, প্রশিকা, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং ফিনান্স, আমেরিকান লাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি, হোমল্যান্ড ইনস্যুরেন্স কোম্পানি, সানলাইফ ইনস্যুরেন্স কোম্পানি, ব্র্যাক ব্যাংক, পিএসটিসি, সোপিরেট, সূর্যের হাসি ক্লিনক প্রকল্প, ইউএসএআইডি, কনসার্নড উইমেন ফর ফেমেলি ডেভেলপমেন্ট, মারকেটিং ইনোভেশন ফর হেল্থ প্রজেক্টে উচ্চ পদে চাকুরী করেছেন দীর্ঘ ১৪ বছর। বর্তমানে তিনি দেশের সর্ববৃহৎ আরএমজি প্রতিষ্ঠান মডেল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ এ এইচআর ও এডমিন বিভাগে উচ্চপদে কর্মরত আছেন। এ ছাড়াও তিনি ছাত্রজীবনের শুরু থেকেই সাংবাদিকতার সাথে জড়িয়ে আছেন।

লেখক জীবনঃ ১৯৮৮ সালে বর্ষা নিয়ে তাঁর লেখা প্রথম কবিতা একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। ফরিদপুর থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ‘খোলা চোখ’ পত্রিকায় প্রকাশিত হয় তাঁর লেখা প্রথম সংবাদ (১৯৯৪)। ১৯৯২ সালে তার লেখা প্রথম গল্প প্রকাশিত হয় মুক্তি পত্রিকায় । বাবার প্রেরণায় তার লেখালেখি শুরু। আহমদ ছফা, হুমায়ূন আজাদ, হাসান আজিজুল হক, হাসান হাফিজ, শহীদ কাদরী, জাহিদুল হক, আবিদ আজাদ, আবিদ আনোয়ার, ময়ুখ চৌধুরী, ও সাযযাদ কাদির কবির প্রিয় লেখকদের অন্যতম এবং এদের সাথে কবির খুব সখ্যতা ছিলো এবং আছে। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, জীবনানন্দ দাস, আবুল হোসেন, গ্যাব্রিয়েল গারসিয়া মারকেজ, সেক্সপিয়র, পাবলো নেরুদা এবং অরুন্ধতী রায়ের লেখার ভক্ত তিনি। বর্তমানে, মোহাম্মাদ নূরুল হুদা, ও নির্মলেন্দু গুনের কবিতা তাকে বেশ প্রভাবিত করে। সমসাময়িক লেখকদের মধ্যে টোকন ঠাকুর, সরকার আমিন, সৌমিত্র দেব, জাকির আবু জাফর এবং নূরুল হক এর কবিতা তার ভালো লাগে। নতুন প্রজন্মের অনেক কবি লেখকদের লেখা কবিকে বেশ উৎসাহিত করে । ‘মনোভুমি’ নামে তাঁর একটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান রয়েছে এবং ‘মনোভূমি’ নামে তার একটি সাহিত্য পত্রিকাও রয়েছে। কবি গল্প লিখতেও বেশ পারঙ্গম। ‘একদিন রাস্তায় চাঁদ নেমেছিলো’ নামক তার প্রথম গল্প গ্রন্থটি ২০১১ সালে শ্রাবণ প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয় এবং গ্রন্থটির ৫ টি মুদ্রণ করতে হয়। শ্রাবণ প্রকাশনী তার নির্বাচিত কবিতা প্রকাশ করে ২০১৬ সালে। তার প্রকাশিত গ্রন্থ মোট ১৪ টি। তিনি বেশ কিছু টিভি নাটকও লিখেছেন। তনিি একজন নাট্য প্রযোজক। তার ১১ তম প্রযোজতি নাটক 'প্রমে বরিহ' আর টভিতিে অন এয়ার হয় এবং নাটকটি দারুণ জনপ্রয়িতা পায়। লিটল ম্যাগের সাথে জড়িত আছেন সেই ১৯৮৮ সাল থেকেই। তার সম্পাদিত ০৯ টি লিটল ম্যাগ প্রকাশিত হয়েছে। দুটি টিভি চ্যানেলে কিছুদিন খবরও পড়েছেন তিনি। জীবনের রৌদ্রাভ করটিতে কবিতা তাঁর স্বপ্ন বুননের প্রধান হাতিয়ার। কবিতাস্ত্র কে তিনি ডিজিটাল টোনে পাঠকের রুদ্ধ জানালায় ছুঁড়ে দেন অত্যন্ত নিপুন ভাবে দৃপ্ত প্রগলভে অসাধারণ সাবলীলতায় । জীবনের প্রথম দিকে তিনি কবিতা দিয়েই শুরু করেছিলেন । দেশের প্রায় সব নামি দামি পত্র পত্রিকাতেই তাঁর লেখা গল্প, কবিতা নামে ছদ্মনামে প্রকাশিত হয়েছে । জীবনের প্রথমে লেখক হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন তিনি ' বাংলাপিডিয়া ' তে যা বাংলাদেশের প্রথম কোষগ্রন্থ। ‘বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি’ থেকে প্রকাশিত বাংলাদেশের প্রথম কোষ গ্রন্থ ‘বাংলা পিডিয়া’র তিনি একজন লেখক। তবে অদ্ভুত বিষয় হোল, কবিতা দিয়ে শুরু করলেও জীবনের প্রথমে কবিতার বই প্রকাশ হয়নি । প্রকাশক ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিলেন তাঁর কবিতার পাণ্ডুলিপি । পরবর্তী তে সেই কবিতার পাণ্ডুলিপিটি বই আকারে প্রকাশিত হয় এবং বইটি 'আমরা করব জয়' ও 'জাতীয় সাহিত্য পদক' পায়। মায়ের কানের দূল বিক্রিকরে তিনি প্রথম গ্রন্থ প্রকাশ করেছিলেন এবং ছুটির দরখাস্ত পাঠানোর পরিবর্তে ভুলে কবিতা পাঠিয়ে দেয়ার কারণে তিনি একবার চাকুরিও খুইয়েছিলেন। এখন তিনি গল্প, কবিতা, প্রবন্ধ, ছড়া, লিখে যাচ্ছেন। 'কনসার্নড উইমেন ফর রেপ প্রিভেনশন’ নামে তাঁর একটি সংগঠন আছে । তিনি সাপ্তাহিক ‘অপরাধ সূত্র’ ও দৈনিক ‘বাঙালির কন্ঠ’ পত্রিকার প্রধান সম্পাদক, সাপ্তাহিক গণবার্তা পত্রিকার সহকারী সম্পাদক এবং ‘ত্রৈমাসিক সাহিত্য দিগন্ত’ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তার সম্পাদিত ছোট কাগজ গুলোর মধ্যে বাংলাকাগজ, মানবজীবন, মুক্তি, জাগরন, মানচিত্র, সময়, ভুমিপত্র,ও কালেরবৃক্ষ, প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। রাজশ্রী ফিল্মস নামে তার একটি নাটক নির্মাণের সংস্থা আছে।

অর্জন: অধ্যাপক সত্যেন বোস সাহিত্য পদক-২০১১ আমরা করব জয় ও এটিএন বাংলা সাহিত্য সম্মাননা-২০১৪ জাতীয় সাহিত্য পদক-২০১৬