বেনাভোলেন্ট ডিক্টেটর ফর লাইফ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বেনাভোলেন্ট ডিক্টেটর ফর লাইফ (Benevolent Dictator for Life বা BDFL) একটি খেতাব বা উপাধি যা খুব অল্প সংখ্যক নেতৃস্থানীয় মুক্ত সোর্স সফটওয়্যার ও প্রযুক্তি উন্নয়নকারীদের ক্ষেত্রে ব্যাবহার করা হয়। বিশেষত যারা সংশ্লিষ্ট মুক্ত সোর্স প্রযুক্তির উদ্যোক্তা ও কর্তৃপক্ষ হিসেবে সর্বজন স্বীকৃত।

১৯৯৫ সালে উপাধিটির প্রচলন ঘটে পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষার জনক গুইডো ভ্যান রস্যিউমকে কেন্দ্র করে।[১][২] ভ্যান রস্যিউম কর্পোরেশন ফর ন্যাশনাল রিসার্চ ইনিসিয়েটিভ্‌সে যোগদানের কিছুকাল পর কেন ম্যানহেইমার কর্তৃক প্রেরণকৃত একটি ইমেইলে উপাধিটির প্রয়োগ দেখা যায়। ম্যানহেইমার ইমেইলটি প্রেরণ করেন পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা উন্নয়ন ও এ সংক্রান্ত ওয়ার্কশপ ইত্যাদি তত্ত্বাবধান করার জন্য একটি আধা-আনুষ্ঠানিক গ্রুপ তৈরির প্রচেষ্টাকে কেন্দ্র করে অনুষ্ঠিত অধিবেশনের প্রতি।[১]

বিডিএফএল (BDFL) উপাধিটির সাথে “বেনাভোলেন্ট ডিক্টেটর” নামক বহুল প্রচলিত পরিভাষার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। বেনাভোলেন্ট ডিক্টেটর নামক পরিভাষাটি জনপ্রিয় হয়েছে ১৯৯৯ সালে লিখিত এরিক এস রেমন্ডেরহোমস্টেডিং দি নুস্ফিয়ার” নিবন্ধের মাধ্যমে।[৩]

বেনাভোলেন্ট ডিক্টেটর ফর লাইফ উপাধিধারীদের তালিকা[সম্পাদনা]

  1. রিচার্ড স্টলম্যান, জিএনইউ প্রকল্পের প্রতিষ্ঠাতা।
  2. আদ্রিয়ান বউয়ের, রেপরাপ প্রকল্পের প্রতিষ্ঠাতা।
  3. গুইডো ভ্যান রস্যিউম, পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষার জনক।[৪][৫]
  4. লিনাস টোরভেল্ডস, লিনাক্স কার্নেলের জনক।[৬]
  5. প্যাট্রিক ভকারডিং, স্ল্যাকওয়ার জনক।[৭]
  6. জিমি ওয়েলস, উইকিপিডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা।[৮]
  7. ফ্যাবিও ইরকুলিয়ানি, সাবায়ন লিনাক্সের জনক।[৯]
  8. মার্ক শাটলওয়ার্থ যিনি নিজেকে "সেল্ফ এপোয়েন্টেড বেনাভলেন্ট ডিক্টেটর ফর লাইফ" হিসেবে পরিচয় দেন ও তাঁর গঠিত উবুন্টু কমিউনিটি তাঁকে উক্ত উপাধিতে প্রায়ই উল্লেখ করে থাকে।[১০][১১]
  9. আদ্রিয়ান হোলোভাটি এবং জ্যাকব কাপলান মস, পাইথন ডিজ্যাঙ্গো ফ্রেমওয়ার্কের উন্নয়নকারী।[১২][১৩]
  10. স্টিভ কোস্ট, ওপেনস্ট্রিটম্যাপের প্রতিষ্ঠাতা।[১৪]
  11. রেসমাস লিউডর্ফ, পিএইচপি প্রোগ্রামিং ভাষার জনক।[১৫]
  12. রায়ান ডাল, জাভাস্ক্রিপ্ট ভিক্তিক নোড.জেএসের জনক।[১৬]
  13. ল্যারি ওয়াল, পার্ল প্রোগ্রামিং ভাষার জনক।[১৭]
  14. টন রোসেন্ডাল, গ্রাফিক্স সফটওয়্যার ব্লেন্ডারের জনক।[১৮]
  15. ড্রাইস বাইটায়ের্ট, ড্রুপল সিএমএসের জনক।[১৯]
  16. ইউকিহিরো মাতসুমোতো, রুবি প্রোগ্রামিং ভাষার জনক।[২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ Guido van Rossum (July 31, 2008)। "Origin of BDFL"। সংগৃহীত 2008-08-01 
  2. "Python Creator Scripts Inside Google"। www.eweek.com। সংগৃহীত 2008-05-13 
  3. Eric S. Raymond। "Homesteading the Noosphere"। সংগৃহীত 2008-08-01 
  4. "The Four Hundred--Next Up on the System i: Python"। www.itjungle.com। সংগৃহীত 2008-05-13 
  5. Guido van Rossum "Benevolent dictator for life"Linux Format। 2005-02-01। সংগৃহীত 2007-11-01 [অকার্যকর সংযোগ]
  6. Ingo, Henrik (2006)। "Benevolent dictator"Open Life: The Philosophy of Open Sourceআইএসবিএন 978-1-84728-611-6। সংগৃহীত 2011-03-05 
  7. "Slackware's "About" page" 
  8. ""Jimmy Wales is Not an Internet Billionaire" New York Times" 
  9. "Sabayon Website" 
  10. "About Ubuntu: Governance"। Canonical Ltd। সংগৃহীত 2011-03-05 
  11. "Ubuntu founder defuses rumors of impending Microsoft deal"। arstechnica.com। সংগৃহীত 2008-05-13 
  12. "Django committers" 
  13. "DjangoCon Article"। সংগৃহীত 2008-09-09 
  14. "BDFL and moderation"। opengeodata.org। সংগৃহীত 2010-08-11 
  15. Marneweck, Jacques (2006-02-28)। "Jacques Marneweck's Blog: Rasmus's no-framework PHP MVC framework"। Powertrip.co.za। সংগৃহীত 2011-06-01 
  16. "Felix's Node.js Community Guide" 
  17. "The Art of Ballistic Programming" 
  18. "New Developer Info"। Blender.org। সংগৃহীত 12 February 2013 
  19. Randy Fay, "How Do Open Source Communities Govern Themselves?"
  20. "Ruby’s Benevolent Dictator"