বেইজিং-থিয়েনচিন আন্তঃনগরী রেলপথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বেইজিং থিয়েনচিন দ্রুতগতির রেলপথ
CRH3 in Tianjin.JPG
থিয়েনচিন রেলওয়ে স্টেশন
তথ্য
মালিকচীনা রেলওয়ে
ধরনদ্রুত পরিবহন
বিরতিস্থলের সংখ্যা
  • প্রথম দফায়- ৫ টি
  • দ্বিতীয় দফায়- ৪ টি
  • মোট- ৯ টি
কাজ
কাজ শুরু
  • প্রথম দফা- ২০০৮
  • দ্বিতীয় দফা- ২০১৫
পরিচালকচীনের উচ্চগতির রেল
প্রযুক্তি
সর্বোচ্চ গতিবেগ৩৫০

বেজিং-থিয়েনচিন আন্তঃনগরী রেলপথ বা বেজিং-থিয়েনচিন দ্রুতগতির রেলপথ হল চীন-এর উচ্চগতির রেলপথগুলির একটি। এই রেলপথটি চীন-এর রাজধানী শহর বেইজিং থেকে বন্দর[১] শহর থিয়েনচিন পর্যন্ত চলে গেছে। এই রেলপথে বেইজিং ও থিয়েনচিন-এর মাঝে তিনটি স্টেশন রয়েছে। রেলপথটি শুরু হয়েছে বেইজিং-এর বেইজিং দক্ষিণ রেলওয়ে স্টেশন এবং শেষ হয়েছে থিয়েনচিন শহরের থিয়েনচিন রেলওয়ে স্টেশন-এ। এই পথের মোট দৈর্ঘ্য ১১৬ কিলোমিটার। এই ১১৬ কিলোমিটার রেলপথ অতিক্রম করতে সময় লাগে ৩০০ মিনিটের মত। এই পথে সর্বোচ্চ ৩৫০ কিলোমমিটারর প্রতি ঘণ্টায় ট্রেন চলাচল করে। তবে এই রেলপথে ট্রেন এর গড়গতি হল ঘণ্টায় ৩৩০ কিলোমিটার। এই রেলপথটি নির্মাণ করা হয়েছে উড়াল পথে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

একুশ শতকের প্রথম দিক থেকেই চীন দেশের রেল ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তন আনে চীন সরকার। এই সময় দেশের প্রধান রেলপথ গুলিকে উচ্চ গতির রেলপথে রূপান্তরের কাজ শুরু হয়। এর মূল লক্ষ্য ছিল দেশের পরিবহনে গতি সঞ্চার করা। এই লক্ষ্যে দেশের বন্দর নগরী থিয়েনচিনরাজধানী শহর বেইজিংয়ের মধ্যে ইন্টার সিটি বা উচ্চ গতির রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা নেওয়া হয় ২০০৫ সালে।

নির্মাণ[সম্পাদনা]

বেজিং-থিয়েনচিন আন্তঃনগরী রেলপথ এর উড়াল রেলপথ

বেজিংথিয়েনচিন ইন্টিরসিটি রেলওয়ে বা বেজিংথিয়েনচিন উচ্চগতির রেলপথ নির্মাণের কথা প্রথম বলা হয় ২০০৫ সালে। এরপর ২০০৬ সালে চীন সরকার এর অনুমোদন দেয়। রেলপথটির নির্মাণ শুরু হয় ২০০৭ সালে। এই নির্মাণ শেষ হয় ২০০৮ সালে। ওই বছর বেজিং ও থিয়েনচিন এর মাঝে উচ্চ গতির রেল চালু হয়। এর ফলে বেইজিং ও থিয়েনচিনের মানুষ ৩০ মিনিটের মধ্যে শহর দুটিতে চলাচল করতে পারছে। রেলপথটি উড়াল পথে নির্মাণ করা হয়েছে। এই রেলপথ বেজিংয়ের বেজিং দক্ষিণ রেলওয়ে স্টেশন এর সঙ্গে থিয়েনচিন রেলওয়ে স্টেশনকে যুক্ত করেছে। এই রেলপথের ১০০ শতাংশ ধারণ ক্ষমতা ২০১৫ সালে পূর্ণ হয়েছে। এর জন্য দ্বিতীয় বেজিংথিয়েনচিন ইন্টারসিটি রেলওয়ে নির্মাণের কথা চলছে। এই রেলপথ বেজিং পূর্ব রেলওয়ে স্টেশন থেকে বিনহাই রেল স্টেশন পর্যন্ত নির্মাণ করা হবে।

সম্প্রসারণ[সম্পাদনা]

এই রেলপথকে থিয়েনচিন শহর থেকে সম্প্রসারিত করে ইউজিয়াপু শহর পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই লক্ষ্যে ২০০৯ সালে এর নির্মাণ শুরু হয়। এই নির্মাণ শেষ হয় ২০১৫ সালে। এই পথের মোট দৈর্ঘ্য হল ৪৪ কিলোমিটার। ফলে বেইজিং-থিয়েনচিন উচ্চ গতির রেলপথের মোট দৈর্ঘ্য হয় ১৬১ কিলোমিটার বা প্রায় ১০০ মাইল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "থিয়েনচিন বনওদর"প্রতিক্ষন। সংগ্রহের তারিখ ২৪-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]