বুক অফ থোথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

বুক অফ থোথ বা থোথের বই (ইংরেজি: Book of Thoth) হচ্ছে মিশরীয় লিখন এবং জ্ঞানের দেবতা থোথের লিখিত একটি বই। প্রাচীন মিশরীয় বহু গ্রন্থে এই নামটি পাওয়া গিয়েছে। প্রায় দ্বিতীয় শতাব্দীতে বইটি বিভিন্ন খন্ড খন্ড পাপিরে পাওয়া যায়। এটি মোট ৪২টি পাপিরের সমান্নয়ে গঠিত,[১] যাতে রয়েছে, আকাশের রহস্য এবং ভবিষ্যতের গ্রহসংক্রান্ত ঘটনার ভবিষ্যৎবাণী। এই ভবিষ্যদ্বাণীপূর্ণ বইসমূহ মিশরীয় গোপন গ্রন্থাগারসমূহে লুকানো ছিল যা এখন হারিয়ে গিয়েছে।[২] আসলে তিনি ছিলেন একজন লেখক যিনি দেবতাদের সবকিছু নথিবব্ধ করতে, যার ফলে তিনি অনেক জ্ঞানের অধিকারি হন।

বই যে সব পরিচিত বা অস্তিত্ব দাবি করছে[সম্পাদনা]

মিশরীয়রা বিভিন্ন বিষয়ের উপর ব্যাপক গ্রন্থ, "জীবনের বাড়ি" বা "হাউসেস অফ লাইফ" মন্দির কমপ্লেক্স গ্রন্থাগারসমূহে সংরক্ষিত করে রেখেছে। থোথ জ্ঞানের দেবতা হওয়ায়, অনেক গ্রন্থ তার কাজ বলে দাবি করা হয়েছে।[৩] মিশরীয় ইতিহাসবিদ মানেথো দাবি করেন যে, থোথ ৩৬,৫২৫টি বই লিখেছিলেন।[৪]

গির্জা ফাদার ক্লেমানট অফ আলেকজান্দ্রিয়া, তার ষষ্ঠ বই এস্ট্রোমেটা -তে উল্লেখ করেন, "মিশরীয়দের সমগ্র দর্শনশাস্ত্র"-তে মিশরীয় পুরোহিতরা ৪২টি বই ব্যবহার করেছে। এই সব বইগুলো, ক্লেমানটের অনুযায়ী হার্মিসের (থোথের গ্রিক নাম) লেখা। এদের মধ্যে বিষয়সমূহ হচ্ছে স্তবগান, ধর্মানুষ্ঠান, মন্দির নির্মাণ, জ্যোতিষশাস্ত্র, ভূগোল এবং ঔষধ।[৫]

মিশরীয়বিদ "রিচার্ড লুইস জাসনাও" এবং "কার্ল-থেওডোর জাওজিচ" একটি টলেমিক যুগের দীর্ঘ মিশরীয় পাঠ্যকে "থোথের বই" বলে উল্লেখ করেন। এই ডেমোটিক পাঠ্যটি চল্লিশের বেশি অংশ বিশেষের সমান্নয়ে গঠিত। এতে দুই ব্যক্তি কথোপোকথোন লেখা হয়েছে। একজনের নাম হচ্ছে "দ্য-ওয়ান-হু-লাভস-নলিজ" এবং অপর জনের হচ্ছে "থোথ" যা "জাসনাও" এবং "জাওজিচ" শনাক্ত করেছে। তাদের কথোপোকথোনের বিষয় ছিল অনুলেখকের কাজ, দেবতাদের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য এবং তাদের পবিত্র প্রাণী, এবং ডুএট মৃত রাজত্ব।[৬]

পৌরাণিক[সম্পাদনা]

মিশরীয় দেবতা থোথ

প্রচালিত রয়েছে যে, একদিন প্রাচীন মিশরীয় শাসক টলেমি II, তিনি তার মহাযাজক পরামর্শদাতাকে তার সাথে কথা বলার জন্য আসতে বলেন।[৭] তিনি মহাযাজক এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তিনি তাকে নেফেরকাপ্টাহর ভ্রমণের কথা বলেন, একজন মিশরীয় রাজকুমার এবং তার পরিবারসহ সেই বইয়ের অনুসন্ধানে বের হন। অনেক খোজার পরে অবশেষে জানতে পারে যে বইটি কপটোসের (বর্তমান কেফট শহর) কাছাকাছি নীল নদের নীচে লুকিনো রয়েছে। সেখানে সেটি অনেক গুলো তালা বদ্ধ বক্সের ভেতর এবং সাপ দ্বারা সুরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে। পরবর্তীতে মিশরীয় রাজকুমার নেফেরকাপ্টাহ, সাপ সাথে লড়াই করে এবং বইটি উদ্ধার করে। কিন্তু থোথের বই চুরি করার জন্য অপরাধে দেবতারা তার স্ত্রী ও ছেলেকে মেরে ফেলেন। পরে নেফেরকাপ্টাহ আত্মহত্যা করে এবং বইসহ তাকে কবর দেওয়া হয়েছিল। গল্পটি প্রাচীন পাপিরে পাওয়া যায়।[৮]

কাল্পনিক বই[সম্পাদনা]

টলেমির কাল থেকে প্রাচীন মিশরীয় থোথের কাল্পনিক বইয়ের গল্পের আবির্ভূত হয়। থোথের লিখিত বইয়ে দুটি যাদুর কথা বলা হয়েছে, যার একটি হচ্ছে পাঠকদের পশুদের ভাষা বুঝতে দেওয়া এবং অপরটি হচ্ছে পাঠকদের দেবতাদের উপলব্ধি করতে দেওয়া।[৯]

পরবর্তী প্রজন্মের, গল্পের নায়ক, সেটনে খামোয়েস (ঐতিহাসিক রাজকুমার কেমওয়েসেট উপর ভিত্তি করে একটি চরিত্র), সেটনে প্রাচীন মিশরীয় সাহিত্যে একটি পুনঃপৌনিক চরিত্র। ফেরাউন রামেসিস II এর এক সন্তান হচ্ছে সেটনে। সে ছিল একজন মার্জিত জাদুকর, রাষ্ট্রনায়ক, পণ্ডিত এবং একজন অভিযাত্রী ধরনের ছিল।

এই গল্পটি রামেসিসের রাজত্বে কয়েক শতাব্দী থেকেই ছিল। এই যুগে সেটনের গল্পটি মহাকাব্যে পৌঁছে ছিল। তখন উচ্চস্বরে মানুষেরা মহান রামেসিসের ছেলে সেটনের প্রশংসা করতো এবং মিশরের সবচেয়ে শিহ্মিত বলে জানতো। সে ছিল মহান পণ্ডিত, সে প্রাচীন সব লেখা পড়তে পারতেন এবং প্রাচীন গ্রন্থে পাঠোদ্ধার করতে সক্ষম ছিলেন। মিশরের কোন সাংকেতিক চিহ্ন তার অজানা ছিল না। সম্ভবত সে ছিল মিশরের একজন মহৎ জাদুকর, কারণ সে জাদু শিল্পকলা প্রাচীন গোপনীয় গ্রন্থে থেকে শিখেছে যা এমনকি আমেন-রা এর পুরোহিতরাও পড়তে পারে না। তার এই ভাষা জানার কারণ হচ্ছে সে সারাদিন প্রাচীন লেখাগুলো পড়ে এবং বড়দের থেকে গল্প শুনে। প্রতিদিন তাঁর সব সেবকরা তাকে মিশরের সব গ্রন্থাগার এবং মন্দির থেকে তাকে পাপির এনে দিত। সে সেগুলো পড়তো এবং তার অনুলিপি তার পিতার গ্রন্থাগারের রাখতেন। সুতরাং রামেসিসের রাজত্বে ছিল একটি শিক্ষার রাজত্ব।[১০]

একদিন সে একটি পাপির পড়ছিলো সেখানে অন্য একটি ফেরাউন আমেনহোতেপের ছেলে নেফেরকাপ্টাহ সম্পর্কে পড়ে সেও ছিল একজন লেখক এবং জাদুকর ছিল। নেফেরকাপ্টাহ সেটনের ৩০০ বছর পূর্বে ছিল। সেই সময় নেফেরকাপ্টাহকে মিশরের সবচেয়ে বড় জাদুকর হিসেবে জানা হত। কারণ সে জ্ঞান দেবতা থোথের গোপন বই পড়েছিল। থোথের বই ছিল একটি জাদু সংগ্রহের বই, যেখানে পশু-পাখিদের ভাষা বুঝতে পারার এবং আকাশ ও পৃথিবীর জাদু রয়েছে। তাই সেটনে ঠিক করলো সেই বইটির খোজে বের হবে।[১০]

সে নেফেরকাপ্টাহর ভূতের বিরোধী সত্ত্বেও নেফেরকাপ্টাহর কবর থেকে বইটি চুরি করে। পরে সেটনে একটি সুন্দরী মেয়ের প্রেমে পরে তার সন্তানদের হত্যা করে এবং ফেরাউনের সামনে নিজে অপমানিত হয়। পরে নেফেরকাপ্টাহর এই পর্বের সেটনে আবিষ্কার করে যে নেফেরকাপ্টাহ দ্বারা তৈরি একটি বিভ্রম এবং সে আরও শাস্তি ভয়ে নেফেরকাপ্টাহর বই তার কবরে রেখে আসে। এছাড়াও নেফেরকাপ্টাহর অনুরোধে, সেটনে নেফেরকাপ্টাহর স্ত্রী ও ছেলের মৃতদেহ খুঁজে বের করে এবং তারপর তাদেরকে নেফেরকাপ্টাহর কবরে কবর দেয়, পরে তা বন্ধ করে দেয়।[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rappoport, S.; Romolo, Rossi (২০০৩)। history of egypt part 11: V. XI.। Kessinger Publishing। পৃ: ১২৯। আইএসবিএন 978-0-7661-3456-0 
  2. V. Jambilico De Myster VIII, e le revue francaise del 1 dicembre 1838.
  3. Fowden 1993, p. 57
  4. Jasnow and Zauzich 2005, p. 2
  5. Fowden 1993, pp. 58–59
  6. Jasnow and Zauzich 2005, pp. 2–9, 72–73
  7. Segen, Joseph C. (১৮৬১)। IL Politecnico: repertorio mensile di studj applicati alla prosperità e coltura sociale.। L. di Giacomo Pirola। পৃ: ৪৮২-৪৮৩। 
  8. A. Armour, JRobert (২০০১)। Gods and Myths of Ancient Egypt seconda edizione। American Univ in Cairo Press। পৃ: ১২৯। আইএসবিএন 978-977-424-669-2 
  9. Lichtheim 2006, pp. 125–128
  10. http://www.touregypt.net/godsofegypt/thebookofthoth.htm
  11. Lichtheim 2006, pp. 125, 129–136

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]