বিশ্বময় বিশ্বাস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
চিত্র:Pangcboche-19534-John-Jackson.jpg
ড. বিশ্বময় বিশ্বাস, ১৯৫৪ সালে ডেইলি মেইল তুষারমানব অভিযানকালে

বিশ্বময় বিশ্বাস (২ জুন ১৯২৩ – ১০ আগস্ট ১৯৯৪) ছিলেন একজন ভারতীয় পক্ষীবিজ্ঞানী যিনি কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন, তার পিতা ছিলেন ভূতত্ত্ববিদ্যার এক অধ্যাপক।[১] ১৯৪৭ সালে, জুওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার তৎকালীন অধিকর্তা সুন্দরলাল হোরার তরফ থেকে, তাকে তিন বছরের একটি ফেলোশিপ প্রদান করা হয়। এটি তাকে ব্রিটিশ মিউজিয়ামে, আর‌উইন স্ট্রেসেমানের অধীনে বার্লিন জুওলজিক্যাল মিউজিয়ামে, এমনকি আর্নস্ট মেয়ার এর অধীনে আমেরিকান মিউজিয়াম অব ন্যাচারাল হিস্ট্রিতেও পড়াশোনা চালাতে সাহায্য করে।[১]

কলেজে তিনি তার পিতার ইচ্ছার বিরুদ্ধে, ভূতত্ত্ববিদ্যা নিয়ে না পড়ে, জীববিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৪৩ সালে তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হন ও ১৯৪৫ সালে এম‌এস‌সি উপাধি লাভ করেন। জে.এল ভাদুড়ীর অধীনে কাজ করে তিনি ১৯৫২ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৫৪ খ্রিষ্টাব্দে মাউন্ট এভারেস্ট অঞ্চলে ইয়েতির খোঁজে ডেইলি মেইল অভিযানের তিনি অংশগ্রহণকারী ছিলেন। ১৯৬৩ সালে আমেরিকান অর্নিথোলজিস্ট'স ইউনিয়নের কোরেসপনডিং ফেলো নির্বাচিত হন। তিনি পরে জুওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার পক্ষী ও স্তন্যপায়ী বিভাগের দায়িত্ব গ্ৰহন করেন। ১৯৬৫, ১৯৬৬ ও ১৯৭০ সালে তিনি আমেরিকান অর্নিথোলজিস্ট'স ইউনিয়ন থেকে চ্যাপম্যান গ্ৰান্টস লাভ করেন, ব্রিটিশ মিউজিয়ামে গবেষণা চালানোর জন্য। পরে তিনি জুওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার যুগ্ম অধিকর্তার দায়িত্ব পালন করেন, ১৯৮১ সালে অবসর গ্রহণ করা পর্যন্ত ও ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত অবৈতনিক বিজ্ঞানী হিসেবে কাজ করেন।[১]

নেপালভুটানের পাখি সমূহের উপর তিনি কিছু উল্লেখযোগ্য কাজ করেছেন।[১][২]

তার সন্মানার্থৈ উড়ুক্কু কাঠবেড়ালির একটি প্রজাতি, Biswamoyopterus biswasi তার নামে নামকরণ করা হয়েছে।[১]

প্রকাশনা[সম্পাদনা]

  • বিশ্বাস, বি. (১৯৪৭): Notes on a collection of birds from the Darrang District, Assam. Records of the Indian Museum. 45: 225-244.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৪৭): On a collection of birds from Rajputana. Records of the Indian Museum. 45: 245-265.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫০): On the taxonomy of some Asiatic Pygmy Woodpeckers. Proceedings of the Zoological Society of Bengal. 3(1): 1-37.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫০): The Himalayan races of the Nutcracker Nucifraga caryocatactes (Linne.) [Aves]. Journal of the Zoological Society of India. 2(1): 26.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫০): The generic limits of Treron Vieillot. Bulletin of the British Ornithologists Club. 70(5): 34.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫১): Revisions of Indian birds. American Museum Novitates. 1500: 1-12.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫১): Notes on the taxonomic status of the Indian Plaintive Cuckoo Cuculus passerinus Vahl. Ibis. 93(4): 596-598.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫১): On some Larger Spine-tailed Swifts, with the description of a new subspecies (Chaetura cochinensis rupchandi) from Nepal. Ardea. 39(4): 318-321.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫২): Geographical variation in the woodpecker Picus flavinucha Gould. Ibis. 94(2): 210-219.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৩): Fauna of the Balangir District (formerly Patna State), Orissa. II. Birds. Records of the Indian Museum. 51: 416-419.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৪): Fauna of the Balangir District (formerly Patna State) Orissa. Birds. Records of the Indian Museum. 51: 416-419.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৪): A checklist of genera of Indian birds. Additions and corrections. Records of the Indian Museum. 54: 101-106a.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৪): Review: The Birds of Travancore & Cochin. By Salim Ali, with 22 plates (16 in colour by D.V. Cowen). Pp. xx+668. (Oxford University Press) Bombay, 1953. Journal of the Bombay Natural History Society. 52(2&3): 573-575.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৫): Review: The Book of Indian Birds. By Salim Ali. 5th (Revised) edition. Pp. xlvi + 142, (714" × 434") 78 plates (56 in colour by D.V. Cowen), 3 diagrams and 2 end paper maps. Bombay Natural History Society, Bombay, 1955. Journal of the Bombay Natural History Society. 53(1): 117-118.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৫): Zoological results of the Daily Mail Himalayas Expedition 1954. Two new birds from Khumba, Eastern Nepal. Bulletin of the British Ornithologists Club. 75(7): 87-88.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৮): Taxonomic status of the Blood Pheasants of Nepal and Sikkim. Journal of the Zoological Society of India. 10(1): 100-101.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৫৯): A note on the correct zoological name of the Indian Little Green Heron (Aves, Ardeidae). Current Science. 28: 288.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৬০): A new name for the Himalayan Red-winged Babbler, Pteruthius. Bulletin of the British Ornithological Union. 80(6): 106.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৬১): Proposal to designate a neotype for Corvus benghalensis Linnaeus, 1758 (Aves), under the plenary powers Z.N. (S) 1465. Bulletin of Zoological Nomenclature. 18(3): 217-219.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৬২): The birds of Nepal. Part 8. Journal of the Bombay Natural History Society. 59(3): 807-821.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৬২): Further notes on the Shrikes Lanius tephronotus and Lanius schach. Ibis. 104(1): 112-115.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৬২): Review: A Synopsis of the Birds of India and Pakistan. By Sidney Dillon Ripley II. pp. xxxvi+703 (23×15.5 cm.). Bombay, 1961. Bombay Natural History Society. Journal of the Bombay Natural History Society. 59(1): 276-278.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৭৩): Report of the Indian national section. Bulletin of the International Council for Bird Preservation. 11: 238-239.
  • বিশ্বাস, বি. (১৯৮৩): Additional notes on birds recorded on 1954 'Daily Mail' Himalayan Expedition. Unpublished.
  • বিশ্বাস, বি. (?): Comments on Ripley's A Synopsis of the Birds of India and Pakistan. Part 2. Unpublished manuscript.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫০): On the Shrike Lanius tephronotus (Vigors), with remarks on the erythronotus and tricolor groups of Lanius schach Linne, and their hybrids. Journal of the Bombay Natural History Society. 49(3): 444-455.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫১): A new race of the Ground-Thrush Turdus citrinus (Aves: Turdidae). Journal of the Bombay Natural History Society. 49(4): 661-662.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫২): A checklist of genera of Indian birds. Records of the Indian Museum. 50(1): 1-62.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫৬): A Large Indian Kite Milvus migrans lineatus (Gray) with a split bill. Journal of the Bombay Natural History Society. 53(3): 474-475.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫৯): On the validity of Harpactes erythrocephalus hodgsoni (Gould) [Aves: Trogonidae]. Journal of the Bombay Natural History Society. 56(2): 335-338.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৫৯): On the Parakeet, Psittacula intermedia (Rothschild) [Aves: Psittacidae]. Journal of the Bombay Natural History Society. 56(3): 558-562.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬০): The birds of Nepal. Journal of the Bombay Natural History Society. 57(2): 278-308.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬০): The birds of Nepal. Part 2. Journal of the Bombay Natural History Society. 57(3): 516-546.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬১): The birds of Nepal. Part 3. Journal of the Bombay Natural History Society. 58(1): 100-134.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬১): The birds of Nepal. Part 4. Journal of the Bombay Natural History Society. 58(2): 441-474.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬১): The birds of Nepal. Part 5. Journal of the Bombay Natural History Society. 58(3): 653-677.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬২): The birds of Nepal. Part 6. Journal of the Bombay Natural History Society. 59(1): 200-227.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬২): The birds of Nepal. Part 7. Journal of the Bombay Natural History Society. 59(2): 405-429.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৩): The birds of Nepal. Part 9. Journal of the Bombay Natural History Society. 60(1): 173-200.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৩): The birds of Nepal. Part 10. Journal of the Bombay Natural History Society. 60(2): 388-399.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৩): The birds of Nepal. Part 11. Journal of the Bombay Natural History Society. 60(3): 638-654.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৩): Review: Comments on Ripley's "A Synopsis of the Birds of India and Pakistan". Journal of the Bombay Natural History Society. 60(3): 679-689.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৬): The birds of Nepal. Part 12. Journal of the Bombay Natural History Society. 63(2): 365-377.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৮): The female of Molesworth's Tragopan Tragopan blythi molesworthi (Baker). Journal of the Bombay Natural History Society. 65(1): 216-217.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৮): Some new bird records for Nepal. Journal of the Bombay Natural History Society. 65(3): 782-784.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৯): Review: Handbook of the Birds of India and Pakistan, Vol. 1. By Salim Ali and S. Dillon Ripley. pp. lviii+380 (16.7 × 24.7 cm.). 18 coloured plates. Bombay, 1968. Oxford University Press. Price Rs. 90. Journal of the Bombay Natural History Society. 66(1): 152-154.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৬৯): Review: Birds of Kerala (second edition of The Birds of Travancore and Cochin). By Salim Ali. pp. xxiii+444 (16.5 × 24 cm.) + 22 plates (16 in colour by D.V. Cowen) + many pen-and-ink sketches+end-paper maps. Bombay, 1969. Oxford University Press. Journal of the Bombay Natural History Society. 66(2): 372-373.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৭২): Review: Handbook of the Birds of India and Pakistan. Vol. 6. By Salim Ali and S. Dillon Ripley. pp. xvi+245 (24×16 cm) with 8 coloured plates and numerous black-and-white illustrations. Bombay, 1971. Oxford University Press. Journal of the Bombay Natural History Society. 69(2): 400-401.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৭৪): Zoological results of the Daily Mail Himalayan Expedition 1954: Notes on some birds of Eastern Nepal. Journal of the Bombay Natural History Society. 71(3): 456-495.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৭৮): Review: Field Guide to the Birds of the Eastern Himalayas. By Salim Ali. pp. xvi+263 (11.8×18 cm). With 37 coloured plates. Delhi, 1977. Oxford University Press. Journal of the Bombay Natural History Society. 75(3): 915-916.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৮৫): Review: Comments on Ripley's "A Synopsis of the Birds of India and Pakistan" - Second Edition (1982). Journal of the Bombay Natural History Society. 82(1): 126-129.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৮৬): Review: A Pictorial Guide to the Birds of the Indian Subcontinent. By Salim Ali & S. Dillon Ripley. Pp. 117+106 plates (73 in colour, 33 monochrome), (18.5 cm × 24.7 cm) with plates by John Henry Dick. New Delhi, 1983. Bombay Natural History Society & Oxford University Press. Journal of the Bombay Natural History Society. 83(2): 412-414.
  • বিশ্বাস, বিশ্বময় (১৯৮৯): Taxonomic status of Psittacula intermedia (Rothschild). Journal of the Bombay Natural History Society. 86(3): 448.

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mayr, E. (2000) "In Memoriam: Biswamoy Biswas, 1923–1994." The Auk 117(4):1030 PDF
  2. Das, P.K. (১৯৯২)। "Obituary. Biswamoy Biswas"Journal of the Bombay Natural History Society92: 398–402। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]