বিষয়বস্তুতে চলুন

ক্ষার ধাতু: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

গ্রুপ 1 এ যত নিচের দিকে যাওয়া যায় এর সক্রিয়তা ততই বাড়তে থাকে। এদের আয়নিক বন্ধন গঠনের প্রবণতা বেশি থাকে।[২] এরা নরম, চকচকে ও অধিক সক্রিয়। এরা কক্ষ তাপমাত্রায় বিক্রিয়া করে। এর যোজ্যতা ইলেকট্রন একটি। এরা ক্ষারীয় ধর্মবিশিষ্ট হয়। এরা দূর্বল ধাতব বন্ধন গঠন করে। এদের গলনাংক ও স্ফুটনাংক অন্যান্য ধাতুর তুলনায় অনেক কম। পানিতে দ্রবীভূত হয়ে হাইড্রোজেন গ্যাস এবং ক্ষার তৈরি করে। এরা হ্যালোজেনের সাথে বিক্রিয়া করে ধাতব হ্যালাইড উৎপন্ন করে। যেমন : NaCl(সোডিয়াম ক্লোরাইড)
(Prince ovy (আলাপ)-এর সম্পাদিত 5511535 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে)
ট্যাগ: পূর্বাবস্থায় ফেরত মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(গ্রুপ 1 এ যত নিচের দিকে যাওয়া যায় এর সক্রিয়তা ততই বাড়তে থাকে। এদের আয়নিক বন্ধন গঠনের প্রবণতা বেশি থাকে।[২] এরা নরম, চকচকে ও অধিক সক্রিয়। এরা কক্ষ তাপমাত্রায় বিক্রিয়া করে। এর যোজ্যতা ইলেকট্রন একটি। এরা ক্ষারীয় ধর্মবিশিষ্ট হয়। এরা দূর্বল ধাতব বন্ধন গঠন করে। এদের গলনাংক ও স্ফুটনাংক অন্যান্য ধাতুর তুলনায় অনেক কম। পানিতে দ্রবীভূত হয়ে হাইড্রোজেন গ্যাস এবং ক্ষার তৈরি করে। এরা হ্যালোজেনের সাথে বিক্রিয়া করে ধাতব হ্যালাইড উৎপন্ন করে। যেমন : NaCl(সোডিয়াম ক্লোরাইড))
ট্যাগ: দৃশ্যমান সম্পাদনা মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
পর্যায় সারনির প্রথম গ্রুপ বা শ্রেনীকে ক্ষার ধাতু বলা হয়। কারণ এই শ্রেণীর মৌলসমূহের [[অক্সাইড]] বা [[হাইড্রোঅক্সাইড]], এসিডের সাথে বিক্রিয়া করে লবণ ও পানি উৎপন্ন করে। তাই বলা যায় যে, এগুলোর প্রত্যেকটি এক একটি ক্ষার। আবার এই শ্রেণীর মৌলগুলোর মধ্যে ধাতব ধর্ম বিদ্যমান। তাই এই শ্রেণীর মৌলগুলোর প্রত্যেকটিকে ক্ষার ধাতু বলা হয়।<ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|শিরোনাম=International Union of Pure and Applied Chemistry (2005). |শেষাংশ১=Nomenclature of Inorganic Chemistry (IUPAC Recommendations 2005). |প্রথমাংশ১=Cambridge (UK)|ভাষা=en| সাময়িকী=IUPAC| আইএসবিএন=0-85404-438-8|পাতাসমূহ=248–49.|শেষাংশ২=Electronic version.}}</ref> এই শ্রেনীর মৌল সমূহ হলো :
 
ক্ষার ধাতু সমূহের বৈশিষ্ট্যঃঃ
 
* গ্রুপ 1 এ যত নিচের দিকে যাওয়া যায় এর সক্রিয়তা ততই বাড়তে থাকে।
* এদের আয়নিক বন্ধন গঠনের প্রবণতা বেশি থাকে।
* এরা নরম, চকচকে ও অধিক সক্রিয়। এরা কক্ষ তাপমাত্রায় বিক্রিয়া করে।
* এর যোজ্যতা ইলেকট্রন একটি।
* এরা ক্ষারীয় ধর্মবিশিষ্ট হয়।
* এরা দূর্বল ধাতব বন্ধন গঠন করে।
* এদের গলনাংক ও স্ফুটনাংক অন্যান্য ধাতুর তুলনায় অনেক কম।
* পানিতে দ্রবীভূত হয়ে হাইড্রোজেন গ্যাস এবং ক্ষার তৈরি করে।
* এরা [[হ্যালোজেন|হ্যালোজেনের]] সাথে বিক্রিয়া করে ধাতব হ্যালাইড উৎপন্ন করে। যেমন : NaCl(সোডিয়াম ক্লোরাইড)
* এদের হাইড্রোক্সাইড যৌগগুলো তীব্র ক্ষারক হয়
* বিভিন্ন ধাতু এবং তাদের লবণগুলো শিখা পরীক্ষায় বিভিন্ন বর্ণ ধারণ করে।
 
{|class="wikitable" style="text-align: center;"
|-
৮টি

সম্পাদনা