বিষয়বস্তুতে চলুন

অপারেশন পাইথন: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
১৯৭১ সালে করাচী বন্দরে পাকিস্তান নৌবাহিনীর সদরদপ্তর ছিল এবং করাচী উপকূলে তাদের অধিকাংশ নৌবহরেরও অবস্থান ছিল। তাছাড়া এটি ছিল পাকিস্তানের সমুদ্রিক বাণিজ্যের সংযোগপথ।{{Sfn|Karim|1996|p=69}} এসব কারণে পাকিস্তান বিমান বাহিনীর উপকূলবর্তী এলাকার যুদ্ধবিমানগুলোকে সম্ভাব্য যেকোন আক্রমণ থেকে করাচী বন্দরকে নিরবচ্ছিন্নভাবে রক্ষা করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এছাড়াও [[পশ্চিম পাকিস্তান|পশ্চিম পাকিস্তানের]] একমাত্র সমুদ্রবন্দর হওয়ায় বন্দরটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল।{{Sfn|Hiranandani|2000|p=118}}{{Sfn|Hiranandani|2000|p=125}}
 
১৯৭১ সালের শেষের দিকে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনা বাড়তে থাকে। ২৩ নভেম্বর পাকিস্তান সারাদেশজুড়ে জরুরী অবস্থা জারী করার পর ভারতীয় নৌবাহিনী ওখার কাছাকাছি করাচীর নিকটবর্তী এলকায় টহল দিতে তিনটি মিসাইল বোট পাঠায়। পাকিস্তানি নৌবহরও একই এলাকা দিয়ে টহল দেওয়ায় ভারতীয় নৌবাহিনী নিজেদের জন্য একটি সীমানা রেখা নির্ধারণ করে দেয়, যাতে তাদের বহরের জাহাজগুলো এটি অতিক্রম না করে। পরবর্তীতে ঐ এলাকা সম্পর্কে অভিজ্ঞতা অর্জনে টহলদারীটহলদানকারী নৌকাগুলো পাঠানোর সিদ্ধান্ত যথাযথ বলে প্রমাণিত হয়েছিল।
পাকিস্তান ৩রা ডিসেম্বর সীমান্তের কাছে অবস্থিত ভারতীয় বিমানঘাঁটি আক্রমণ করলে আনুষ্ঠানিকভাবে [[ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ|১৯৭১ সালের ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ]] শুরু হয়ে যায়।<ref name="40 Years Since Operation Trident">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|লেখক১=Commander Neil Gadihoke|শিরোনাম=1971 War: The First Missile Attack on Karachi|ইউআরএল=http://www.indiandefencereview.com/interviews/1971-war-the-first-missile-attack-on-karachi/0/|ওয়েবসাইট=Indian Defence Review|সংগ্রহের-তারিখ=20 March 2019|ইউআরএল-অবস্থা=অকার্যকর|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20170217084537/http://www.indiandefencereview.com/interviews/1971-war-the-first-missile-attack-on-karachi/0/|আর্কাইভের-তারিখ=১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭|df=dmy-all}}</ref>