বিষয়বস্তুতে চলুন

পিটার সেলার্স: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎জীবনী: চলচ্চিত্রে শুরুর বছরগুলো ও ''আ'ম অল রাইট জ্যাক''
(ভূমিকা সম্প্রসারণ)
(→‎জীবনী: চলচ্চিত্রে শুরুর বছরগুলো ও ''আ'ম অল রাইট জ্যাক'')
 
 
প্রথম ''গুন শো''<ref name="Barker (DNB)" /> প্রচারিত হয় ১৯৫১ সালের ২৮শে মে।{{sfn|রিজেলসফোর্ড|২০০৪|p=১৭৭}} তাদের ইচ্ছার বাইরে গিয়ে তা ''ক্রেজ পিপল'' নামে প্রচারিত হয়।{{sfn|লুইস|১৯৯৫|p=৬৯০}}সেলার্স ১৯৬০ সালের ২৮শে জানুয়ারি প্রচারিত ''দ্য গুন শো''-এর দশটি ধারাবাহিকের শেষ পর্ব পর্যন্ত এই অনুষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন।<ref name="Barker (DNB)" /> সেলার্স চারটি প্রধান চরিত্র - মেজর ব্লাডনক, হারকিউলিস গ্রিটপাইপ-টাইন, ব্লুবটল ও হেনরি ক্রান এবং ১৭টি ছোট চরিত্রে অভিনয় করেন।{{sfn|উইলমাট|গ্র্যাফটন|১৯৮১|p=১১৬}} ব্রিটেনে ৩৭০,০০০ শ্রোতা নিয়ে শুরু করা অনুষ্ঠানটি ৭ মিলিয়ন শ্রোতা পর্যন্ত পৌঁছায়, এবং একটি সংবাদপত্র এই অনুষ্ঠানকে "সম্ভবত সর্বকালের সবচেয়ে প্রভাবশালী হাস্যরসাত্মক অনুষ্ঠান" বলে বর্ণনা করে।<ref name="Cook 27 April 1993">{{cite news|last=কুক |first=উইলিয়াম |title=Radio: Landmarks in radio comedy |newspaper=[[দ্য গার্ডিয়ান]] |date=২৭ এপ্রিল ১৯৯৩ |location=লন্ডন |page=৫৮}}</ref> বিবিসি অনুষ্ঠানটিকে সেলার্সের কর্মজীবনে তারকাখ্যাতি অর্জনে প্রভাব বিস্তারকারী বলে গণ্য করে।<ref>{{cite web|title=Comedy: The Goon Show |url=https://www.bbc.co.uk/comedy/thegoonshow/ |website=[[বিবিসি]] |access-date=৭ আগস্ট ২০২১ |location=লন্ডন |archive-url=https://web.archive.org/web/20121111103340/http://www.bbc.co.uk/comedy/thegoonshow/ |archive-date=11 November 2012}}</ref>
 
===চলচ্চিত্রে শুরুর বছরগুলো ও ''আ'ম অল রাইট জ্যাক'' (১৯৫৬-৫৯)===
সেলার্স চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেন এবং বেশ কিছু চলচ্চিত্রে ছোট চরিত্রে অভিনয় করেন, যেমন ''[[জন অ্যান্ড জুলি]]'' (১৯৫৫)-এ পুলিশ কর্মকর্তা।{{sfn|লুইস|১৯৯৫|p=৩৬২}} তিনি ১৯৫৫ সালে আলেকজান্ডার ম্যাকেন্ড্রিক পরিচালিত হাস্যরসাত্মক ''[[দ্য লেডিকিলার্স]]'' চলচ্চিত্রে আরও বড় চরিত্রে তার আদর্শ [[অ্যালেক গিনেস]]ের সাথে অভিনয় করেন, তাদের সাথে [[হের্বের্ত লোম]] ও সেসিল পার্কারও ছিলেন। সেলার্স হ্যারি রবিনসন নামক এক টেডি বয় চরিত্রে অভিনয় করেন। জীবনীকার পিটার ইভান্স একে সেলার্সের প্রথম ভালো চরিত্র বলে গণ্য করেন।{{sfn|ইভান্স|১৯৮০|p=৭৯}} ''দ্য লেডিকিলার্স'' যুক্তরাজ্য ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উভয় দেশেই ব্যবসাসফল হয়,<ref>{{cite web|last=ডুগুইড |first=মার্ক |title=Ladykillers, The (1955) |url=http://www.screenonline.org.uk/film/id/441533/index.html |work=[[স্ক্রিনঅনলাইন]] |publisher=[[ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট]] |access-date=৭ আগস্ট ২০২১ |archive-url=https://web.archive.org/web/20120805010911/http://www.screenonline.org.uk/film/id/441533/index.html |archive-date= 5 August 2012}}</ref> এবং [[শ্রেষ্ঠ মৌলিক চিত্রনাট্য বিভাগে একাডেমি পুরস্কার]]ের মনোনয়ন লাভ করে।<ref name="oscars 1957">{{cite web|title=The 29th Academy Awards (1957) Nominees and Winners |url=http://www.oscars.org/oscars/ceremonies/1957 |work=অস্কার |publisher=[[একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস]] |access-date=৭ আগস্ট ২০২১ |archive-url=https://web.archive.org/web/20160507092819/http://www.oscars.org/oscars/ceremonies/1957 |archive-date= 7 May 2016}}</ref> পরের বছর সেলার্স আরও তিনটি টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয় করেন, সেগুলো হল ''দ্য ইডিয়ট উইকলি, প্রাইস টুডি''; ''আ শো কলড ফ্রেড''; ও ''সন অব ফ্রেড''। অনুষ্ঠানগুলো ব্রিটেনের নতুন আইটিভি চ্যানেলে প্রচারিত হয়।{{sfn|রিজেলসফোর্ড|২০০৪|p=৬৫}} ১৯৫৭ সালে চলচ্চিত্র প্রযোজক মাইকেল রেফ ''ইডিয়ট উইকলি''-তে সেলার্সের বৃদ্ধ ব্যক্তির চরিত্রে অভিনয় দেখে মুগ্ধ হয়ে ৩২ বছর বয়সী সেলার্সকে ব্যাসিল ডিয়ারডেনের ''দ্য স্মলেস্ট শো অন আর্থ'' চলচ্চিত্রে ৬৮ বছর বয়সী প্রক্ষেপক চরিত্রের জন্য নির্বাচন করেন। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন [[বিল ট্র্যাভার্স]], [[ভার্জিনিয়া ম্যাকেনা]] ও [[মার্গারেট রাদারফোর্ড]]।{{sfn|রিজেলসফোর্ড|২০০৪|p=৭১}} চলচ্চিত্রটি ব্যবসাসফল হয় এবং বর্তমানে যুদ্ধ-উত্তর ব্রিটিশ পর্দায় উপস্থিত কৌতুকাভিনয়ের ছোট ধ্রুপদী কর্ম বলে গণ্য হয়।{{sfn|বার্টন|ওসুলিভান|২০০৯|p=২৫}} এরপর সেলার্স [[বাফটা পুরস্কার]] বিজয়ী ''[[দ্য ম্যান হু নেভার ওয়াজ]]'' চলচ্চিত্রে [[উইনস্টন চার্চিল]] চরিত্রে কণ্ঠ দেন।{{sfn|র‍্যানকিন|২০০৯|p=৩৮৩}} ১৯৫৭ সালের শেষভাগে সেলার্স মারিও জাম্পির অফবিট ব্ল্যাক কমেডি ''দ্য নেকেড ট্রুথ'' চলচ্চিত্রে ছদ্মবেশ ধারণের প্রতিভাধর একজন টেলিভিশন তারকা চরিত্রে অভিনয় করেন। এতে তার সহশিল্পী ছিলেন টেরি-টমাস, পেগি মাউন্ট, শার্লি ইটন ও ডেনিস প্রাইস।<ref>
সূত্র:
*{{cite web|title=The Naked Truth (1957) |url=http://ftvdb.bfi.org.uk/sift/title/43753 |work=ফিল্ম অ্যান্ড টিভি ডেটাবেজ |publisher=[[ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট]] |access-date=৭ আগস্ট ২০২১ |archive-url=https://web.archive.org/web/20131203034523/http://ftvdb.bfi.org.uk/sift/title/43753 |archive-date=3 December 2013}}
*{{cite book|title=Film Review |url=https://books.google.com/books?id=QqEqAQAAIAAJ |year=১৯৯৬ |publisher=ওর্ফেউস পাবলিকেশন্স |access-date=৭ আগস্ট ২০২১}}</ref>
 
== চলচ্চিত্রের তালিকা ==