বিষয়বস্তুতে ঝাঁপ দিন

"আকিলপুর সমুদ্র সৈকত" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সীতাকুন্ডের নিমতলা গ্রামের পাশে এই সৈকতের অবস্থান। আগে এই এলাকা ছিল ভীতিকর। বিশেষ করে ঘুর্ণিঝড় ও জলোচ্ছ্বাসের কারণে। কারণ একটুতেই এখানে পানি উঠে যেত। কিন্তু সরকার এখানে বাঁধ নির্মাণ করেছে। এবং পাশে সাড়ি সাড়ি গাছ লাগানো হয়েছে। ফলে সৌন্দর্যও এখন বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতিদিন অনেক মানুষ এখানে বেড়াতে আসেন। পর্যটকদের জন্য এখানে শৌচাগার ও বিভিন্ন দোকানেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=সৌন্দর্যের এক অপরূপ লীলাভূমি আকিলপুর সমুদ্র সৈকত |ইউআরএল=https://sitakundabarta.com/%e0%a6%b8%e0%a7%8c%e0%a6%a8%e0%a7%8d%e0%a6%a6%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%8f%e0%a6%95-%e0%a6%85%e0%a6%aa%e0%a6%b0%e0%a7%82%e0%a6%aa-%e0%a6%b2%e0%a7%80%e0%a6%b2%e0%a6%be/ |সংগ্রহের-তারিখ=২৭ ডিসেম্বর ২০২০ |তারিখ=৫ আগস্ট ২০২০}}</ref>
== বাঁধ নির্মাণ ==
২০১৬-২০১৭ সালে তৎকালীন মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন। ৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০১৯ সালে পুরো সৈকতটিতে বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে।হয়। এরএই বাঁধটি প্রায় ২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। বাঁধ নির্মাণের আগে প্রতিবছর প্রায় দুইবার পুরো গ্রাম প্লাবিত হয়ে যেত। কৃষিজমি সহ ঘরবাড়িও ডুবে যেত। বাঁধ নির্মাণের ফলে গ্রামবাসী জোয়াড়ের পানি থেকে রক্ষা পাচ্ছে। তবে, কিছু কিছু জায়গায় বাঁধ ভেঙ্গে যাচ্ছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=ভাঙনের কবলে বাঁশবাড়িয়া বেড়িবাঁধ |ইউআরএল=https://www.swadeshpratidin.com/details.php?id=55890 |সংগ্রহের-তারিখ=২৭ ডিসেম্বর ২০২০ |তারিখ=১২ সেপ্টেম্বর ২০২০}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=এক বছর শেষ না হতে আবারো ভাঙ্গন ধরেছে বাঁশবাড়িয়ার আকিলপুর বেরিবাঁধ |ইউআরএল=https://www.matrijagat.com/%E0%A6%8F%E0%A6%95-%E0%A6%AC%E0%A6%9B%E0%A6%B0-%E0%A6%B6%E0%A7%87%E0%A6%B7-%E0%A6%A8%E0%A6%BE-%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%86%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%8B-%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%99/ |সংগ্রহের-তারিখ=২৭ ডিসেম্বর ২০২০ |তারিখ=২৭ আগস্ট ২০২০}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==