বিষয়বস্তুতে চলুন

"মহাশক্তি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
[[হিন্দুধর্ম|হিন্দু]] [[শাক্তধর্ম|শাক্তধর্মে]] '''মহাশক্তি''' ([[দেবনাগরী]] [[সংস্কৃত]]: महाशक्ति) জগত সৃষ্টির আদি কারণ এবং জগতের প্রধান শক্তি। হিন্দুধর্মে তাকে দিব্য জননীর স্থান প্রদান করা হয়।
 
শাক্তধর্মে মহাশক্তিকেই সর্বোচ্চ ঈশ্বর মনে করা হয়। তবে [[বৈষ্ণবধর্ম|বৈষ্ণব]] ও [[শৈবধর্ম|শৈবধর্মে]] মহাশক্তি হলেন [[পুরুষ (হিন্দুধর্ম)|পুরুষের]] নারীশক্তি [[প্রকৃতি]]। বৈষ্ণবধর্মের সর্বোচ্চ ঈশ্বর বিষ্ণুর প্রকৃতি হলেন [[লক্ষ্মী]] এবং শৈবধর্মের কেন্দ্রীয়করেন দেবতা [[শিব|শিবের]] প্রকৃতি হলেন [[পার্বতী]] তিনিই দেবী মহাশক্তি।<ref>Tiwari, Path of Practice, p. 55</ref>
 
শাক্ত বিশ্বাস অনুযায়ী, মহাশক্তি কেবলমাত্র সৃষ্টির কারণই নন, তিনি জগতের সকল পরিবর্তনেরও মূল কারণ। মহাশক্তির আদি ও অন্ত নেই। এই সর্বাপেক্ষে গুরুত্বপূর্ণ রূপটি হল [[কুণ্ডলিনী]] শক্তি, সাধারণত পুরান অনুসারে দেবী পার্বতী। পুরাণে মহাশক্তি পূর্বে আদি পরাশক্তি পার্বতী থেকে ভিন্ন ছিলো কিন্তু দেবী মহাশক্তির ( চন্ডী) শিব প্রাপ্তির আশা হলে ব্রহ্মা শিব পত্নী পার্বতীর কথাবলে মহাশক্তি পার্বতীকে তাচ্ছিল্য করলে ব্রহ্মা মহাশক্তি কে মহামায়া পার্বতীর রূপ বর্ণনা করেন তিনি তাকে বলেন এই জগতে সব দেবী পার্বতী আদি পরাশক্তি মহামায়ার ইচ্ছা ধিন তার সৃষ্টিও তার ইচ্ছা তে ঘটেছে তখন দেবী মহাশক্তি আদি পরাশক্তি পার্বতী কে স্মরণ করলে দেবী মহামায়া পার্বতী তাকে বিশ্বরূপ দর্শন দেন দেবী মহাশক্তি নিজেকে আদি পরাশক্তি পার্বতীর অংশ করে নিতে বলেন দেবী পার্বতী তাই করেন তার পর দেবী পার্বতী মহাশক্তি নামে অভিহিত হন
 
== আরও পড়ুন ==
বেনামী ব্যবহারকারী