"স্মার্টফোন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
2409:4061:2E8C:3603:5D6E:A1F3:D51F:CBDC (আলাপ)-এর সম্পাদিত 4052498 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(2409:4061:2E8C:3603:5D6E:A1F3:D51F:CBDC (আলাপ)-এর সম্পাদিত 4052498 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে)
ট্যাগ: পূর্বাবস্থায় ফেরত
[[চিত্র:Ubuntu Phone 3 devices.png|thumb|300px|স্মার্টফোন [[উবুন্টু মোবাইল সংস্করণ|উবুন্টু ফোন]] ৩]] hacking
 
'''স্মার্টফোন''' ({{lang-en|Smartphone}}) হলো হাতের মোবাইল কম্পিউটিং যন্ত্র। ফিচার ফোনের সাথে তাদের পার্থক্য হলো, তাদের তুলনামূলক বেশি শক্তিশালী হার্ডওয়্যার সক্ষমতা এবং বিস্তৃত [[মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম]], যেগুলো মূল সুবিধা যেমন ফোন কল, বা টেক্সট ম্যাসেজিঙেরবার্তার সাথে সাথে আরও বেশি [[সফটওয়্যার]], [[ইন্টারনেট]] (ওয়েব ব্রাউজিং সহযোগে), এবং মাল্টিমিডিয়া সুবিধা (ক্যামেরা, মোবাইল গেমিং) ইত্যাদি প্রদান করে। স্মার্টফোনে অনেকগুলো সেন্সর রয়েছে এবং তারবিহীন যোগাযোগও সমর্থন করে যন্ত্রগুলো।
 
প্রথমদিকে স্মার্টফোনগুলোর মূল লক্ষ্য ছিলো এন্টারপ্রাইজ মার্কেট, যেগুলো পার্সোনাল ডিজিটাল এসিসট্যান্টের সুবিধাসমূহ মুঠোফোনে আনতে চাচ্ছিলো। ২০০০ এ, [[BlackBerry|ব্ল্যাকবেরি]], [[Nokia|নকিয়ার]] [[Symbian|সিম্বিয়ান]] প্ল্যাটফর্ম, এবং [[Windows Phone|উইন্ডোজ ফোন]] জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। ২০০৭ সালে [[আইফোন]] মুক্তির পর থেকেই স্মার্টফোনগুলোতে পরিবর্তন আসতে থাকে, যার মধ্যে আছে বড় টাচ সেন্সিটিভ স্ক্রিন, মাল্টি টাচ জেসচার, মোবাইল এপ্লিকেশন ডাউনলোডের সুবিধাসহ আরও অনেককিছু।
'''স্মার্টফোন''' ({{lang-en|Smartphone}}) হলো হাতের মোবাইল কম্পিউটিং যন্ত্র। ফিচার ফোনের সাথে তাদের পার্থক্য হলো, তাদের তুলনামূলক বেশি শক্তিশালী হার্ডওয়্যার সক্ষমতা এবং বিস্তৃত [[মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম]], যেগুলো মূল সুবিধা যেমন ফোন কল, বা টেক্সট ম্যাসেজিঙের সাথে সাথে আরও বেশি [[সফটওয়্যার]], [[ইন্টারনেট]] (ওয়েব ব্রাউজিং সহযোগে), এবং মাল্টিমিডিয়া সুবিধা (ক্যামেরা, মোবাইল গেমিং) ইত্যাদি প্রদান করে। স্মার্টফোনে অনেকগুলো সেন্সর রয়েছে এবং তারবিহীন যোগাযোগও সমর্থন করে যন্ত্রগুলো।
 
প্রথমদিকে স্মার্টফোনগুলোর মূল লক্ষ্য ছিলো এন্টারপ্রাইজ মার্কেট, যেগুলো পার্সোনাল ডিজিটাল এসিসট্যান্টের সুবিধাসমূহ মুঠোফোনে আনতে চাচ্ছিলো। ২০০০ এ, [[BlackBerry|ব্ল্যাকবেরি]], [[Nokia|নকিয়ার]] [[Symbian|সিম্বিয়ান]] প্ল্যাটফর্ম, এবং [[Windows Phone|উইন্ডোজ ফোন]] জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে। ২০০৭ সালে [[আইফোন]] মুক্তির পর থেকেই স্মার্টফোনগুলোতে পরিবর্তন আসতে থাকে, যার মধ্যে আছে বড় টাচ সেন্সিটিভ স্ক্রিন, মাল্টি টাচ জেসচার, মোবাইল এপ্লিকেশন ডাউনলোডের সুবিধাসহ আরও অনেককিছু।
 
২০১২ সালের তৃতীয়ার্ধে জানা যায়, বিশ্বব্যাপী ১০০ কোটি স্মার্টফোন ব্যবহারকারী রয়েছে।<ref name="Don Reisinger">{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=Worldwide smartphone user base hits 1 billion |ইউআরএল=http://news.cnet.com/8301-1035_3-57534132-94/worldwide-smartphone-user-base-hits-1-billion/ |কর্ম=[[CNet]] |সংগ্রহের-তারিখ=July 26, 2013 |লেখক=Don Reisinger|তারিখ=October 17, 2012}}</ref> ২০১৩ সালের শুরুর দিকে স্মার্টফোনের এ জনপ্রিয়তায় ফিচার ফোনের বাজার ছোট হতে থাকে। <ref name="news1">{{সংবাদ উদ্ধৃতি | ইউআরএল= http://www.3news.co.nz/Smartphones-now-outsell-dumb-phones/tabid/412/articleID/295878/Default.aspx | কর্ম= 3 News NZ | শিরোনাম= Smartphones now outsell 'dumb' phones | তারিখ= April 29, 2013 | সংগ্রহের-তারিখ= April 29, 2013 | আর্কাইভের-ইউআরএল= https://web.archive.org/web/20130801114353/http://www.3news.co.nz/Smartphones-now-outsell-dumb-phones/tabid/412/articleID/295878/Default.aspx | আর্কাইভের-তারিখ= August 1, 2013 | অকার্যকর-ইউআরএল= yes | df= mdy-all }}</ref>

পরিভ্রমণ বাছাইতালিকা