"ফ্রাঙ্ক হেইস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(অপ্রয়োজনীয় বিষয়শ্রেণী বাদ)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
== প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ ==
ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর কাউন্টি ক্রিকেটে সংশয়াতীতভাবে দূর্দান্ত সফলতা পেয়েছেন। ১৯৭০ সালে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তাঁর।তার। উদ্বোধনী খেলাতেই ৯৪ রানের মূল্যবান ইনিংস খেলেন। পরের খেলায় করেন ৯৯ রান। ফলশ্রুতিতে ১৯৭৩ সালে টেস্টের প্রস্তুতিমূলক খেলায় অংশগ্রহণের সুযোগ লাভ করেন। সেখানেও তিনি সফলকাম ছিলেন। অভিষেক খেলার সাত বছর পর ১৯৭৭ সালে [[Malcolm Nash|ম্যালকম ন্যাশের]] এক ওভার থেকে নির্দয়ভাবে পিটিয়ে ৩৪ রান তুলেন (৬-৪-৬-৬-৬-৬)। ঐ ন্যাশের ওভার থেকেই [[গারফিল্ড সোবার্স|গ্যারি সোবার্স]] ছয়টি ছক্কার মার মেরে বিশ্বরেকর্ড গড়েছিলেন।
 
১৯৭৮ থেকে ১৯৮০ সময়কালে ল্যাঙ্কাশায়ার দলের নেতৃত্বে ছিলেন তিনি।
সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে নয়টি টেস্ট ও ছয়টি একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণের সুযোগ ঘটে ফ্রাঙ্ক হেইসের।
 
[[টেস্ট ক্রিকেট]] অভিষেকেই অপরাজিত ১০৬ রানের ইনিংস উপহার দেন ক্রিকেট বিশ্বকে। ১৯৭৩ সালে ওভালে সফরকারী [[ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল|ওয়েস্ট ইন্ডিজের]] বিপক্ষে তিন অঙ্কের কোঠা অতিক্রম করেছিলেন। এরফলে ত্রয়োদশ ইংরেজ ব্যাটসম্যান হিসেবে এ বিরল কীর্তিগাঁথা রচনা করেন তিনি।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/sport1/hi/cricket/england/4774428.stm|শিরোনাম=Cook comes to the boil|প্রকাশক=BBC Sport|তারিখ=2006-03-04|সংগ্রহের-তারিখ=2009-10-09}}</ref> পরবর্তীতে তিনি আর বড় ধরনের সংগ্রহের দিকে ধাবিত হতে পারেননি। এরপর তিনি আরও আট টেস্টে অংশগ্রহণ করলেও তিনি আর তেমন তাঁরতার প্রতিশ্রুতিশীলতার স্বাক্ষর বহন করতে পারেননি। এর সবগুলোই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ছিল ও সর্বোচ্চ ২৯ রান করতে পেরেছিলেন। অন্য ১৬ ইনিংসে মাত্র ১৩৮ তুলতে পেরেছিলেন। দূর্ভাগ্যবশতঃ নয় টেস্টের সবগুলোই ছিল অত্যন্ত শক্তিধর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে।
 
১৯৭৩-৭৪ মৌসুমে ইংরেজ দলের সাথে ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমন করেন। ১৯৭৬ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে লড়াইয়ে অবতীর্ণ হবার জন্য পুণরায় তাঁকেতাকে দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।
 
== খেলার ধরন ==
১,৭৪,২৯৯টি

সম্পাদনা

পরিভ্রমণ বাছাইতালিকা