পরিবর্তনসমূহ

পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
 
== পেশা ==
আয়মান আল-জাওয়াহিরি চিকিৎসার ক্ষেত্রে [[সার্জন]] ছিলেন। ১৯৮৫ সালে আল-জাওয়াহিরি [[হজ্জ]] করতে সৌদি আরব গমন করেন। সেখানে তিনি একবছরের জন্য চিকিৎসাবিদ্যায় অনুশীলন করতে [[জেদ্দা]]য় থেকে যান।<ref>Wright, p. 60.</ref> তিনি একজন যোগ্যতাসম্পন্ন সার্জন হওয়ায়, [[ওসামা বিন লাদেন#আল কায়েদার ইতিহাস|বিন লাদেনের]] আল কায়েদার সাথে নিজ সংগঠনকে একীভূত করতে তিনি বিন লাদেনের ব্যক্তিগত উপদেষ্টা এবং চিকিৎসক হন। তার বিন লাদেনের সাথে প্রথম সাক্ষাত হয় ১৯৮ সালে, [[জেদ্দা]]য়।<ref name="Atkins2011">{{citeবই bookউদ্ধৃতি|lastশেষাংশ=Atkins|firstপ্রথমাংশ=Stephen E.|titleশিরোনাম=The 9/11 Encyclopedia |urlইউআরএল=https://books.google.com/books?id=PDDIgWRN_HQC&pg=PA456|accessdateসংগ্রহের-তারিখ=6 May 2011|dateতারিখ=31 May 2011|publisherপ্রকাশক=ABC-CLIO |isbnআইএসবিএন=978-1-59884-921-9|pageপাতা=456}}</ref>
 
১৯৮১ সালে আয়মান আল-জাওয়াহিরি পাকিস্তানেও ভ্রমণ করেন। তিনি পাকিস্তানের [[পেশাওয়ার, পাকিস্তান|পেশাওয়ারে]] একটি [[রেড ক্রিসেন্ট]] হাসপাতালে আহত শরণার্থীদের চিকিৎসা করতেন। সেখানে তিনি আহমেদ খদরের বন্ধু হন এবং তারা দুজনে ইসলামী শাসন ও আফগান জনগণের প্রয়োজন সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়াদী নিয়ে আলোচনা করেন।<ref name="child">[[Michelle Shephard]], "Guantanamo's Child", 2008.</ref><ref>{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি|authorলেখক=John Pike |urlইউআরএল=http://www.globalsecurity.org/military/world/para/zawahiri.htm |titleশিরোনাম=Ayman al-Zawahiri |publisherপ্রকাশক=Globalsecurity.org |dateতারিখ= |accessdateসংগ্রহের-তারিখ=2012-12-13}}</ref>
 
১৯৯৩ সালে আল-জাওয়াহিরি আমেরিকা ভ্রমণ করেন। সেখানে তিনি তার [[ছদ্মনাম]] ''আব্দুল মুঈয'' নামে [[ক্যালিফোর্নিয়া]]র বিভিন্ন [[মসজিদ|মসজিদে]] পরিচিত হন। এসবের প্রামাণ্য তথ্য হচ্ছে, সোভিয়েত [[ল্যান্ড মাইন|ল্যান্ড মাইনে]] পক্ষাঘাতগ্রস্ত আফগান শিশুদের জন্য কুয়েতি [[আন্তর্জাতিক রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট আন্দোলন|রেড ক্রিসেন্টে]] তার মুদ্রা বৃদ্ধিকরণ—তিনি একাই ২০০০ [[মিলিয়ন]] ডলার বৃদ্ধি করেন।<ref>Wright, p. 179.</ref>
=== আত্মগোপন অবস্থা ===
====মিসর====
১৯৮১ সালে আয়মান আল-জাওয়াহিরি [[প্রেসিডেন্ট আনোয়ার সাদাতকে গুপ্তহত্যা]]র অভিযোগে অন্যান্য অনেকের মতো গ্রেফতার হন।<ref>{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি | urlইউআরএল=http://www.egyptindependent.com/news/mohamed-al-zawahiri-denies-being-arrested-syria | titleশিরোনাম =Mohamed al-Zawahiri denies being arrested in Syria | authorলেখক =''[[Egypt Independent]]'' | dateতারিখ =May 1, 2013}}</ref> প্রথমদিকে পরিকল্পনাটি নড়বড়ে হয়ে গিয়েছিল, যখন একজন গুরুত্বপূর্ণ উচ্চপদস্থ বন্দীর তথ্যের ভিত্তিতে আল-জিহাদের পরিকল্পনার ব্যাপারে মিসর সরকারকে সতর্ক করা হয়েছিল এবং এর ভিত্তিতে ১৯৮১ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট [[আনোয়ার সাদাত|সাদাত]] আল-জিহাদের অগণিত সদস্যসহ ১৫০০ এর অধিক মানুষকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি সামরিক নেতৃত্বে থাকা লেফটেন্যান্ট [[খালিদ ইসলামবুলি]]কে লক্ষ্য করতে পারেননি। খালেদ ১৯৮১ সালের অক্টোবরে একটি সামরিক কুচকাওয়াজের সময় সাদাতকে হত্যা করতে সক্ষম হন।<ref>Wright, p. 50.</ref> জাওহিরির আইনজীবী [[মুনতাসির আল-যায়াত]] বলেন, জাওয়াহিরি জেলখানায় নির্যাতিত হয়েছিলেন।<ref>{{citeসংবাদ newsউদ্ধৃতি|lastশেষাংশ=Bowcott |firstপ্রথমাংশ=Owen |titleশিরোনাম=Torture trail to September 11: A two-part investigation into state brutality opens with a look at how the violent interrogation of Islamist extremists hardened their views, helped to create al-Qaida and now, more than ever, is fueling fundamentalist hatred |workকর্ম=[[The Guardian]] |dateতারিখ=24 January 2003 |urlইউআরএল=https://www.theguardian.com/alqaida/story/0,12469,881096,00.html |accessdateসংগ্রহের-তারিখ=29 August 2006 |locationঅবস্থান=London |deadurlঅকার্যকর-ইউআরএল=yes |archiveurlআর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20060304031513/http://www.guardian.co.uk/alqaida/story/0%2C12469%2C881096%2C00.html |archivedateআর্কাইভের-তারিখ=March 4, 2006 |df= }}</ref>
 
আল-যায়াত তার বই "Al-Zawahiri as I Knew Him" ({{lang-bn|আল-জাওয়াহিরি: আমি তাকে যেমন জানি}}) বইয়ে আল-জাওয়াহিরি মিসরীয় পুলিশ দ্বারা নির্যাতিত হবার কথা উল্লেখ করেছেন। যখন তাকে ১৯৮১ সালে সাদাতহত্যার সাথে সংযুক্ত হবার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। তখন আল-জাওয়াহিরি আল-জিহাদের মাদি শাখার নেতৃস্থানীয় ব্যক্তি [[ইসসাম আল-কামারি]]র গোপন অবস্থান প্রকাশ করে দেন, যা ইসসামকে বন্দিত্ব, এমনকি ফাঁসি পর্যন্ত নিয়ে যায়।<ref>{{citeসাময়িকী journalউদ্ধৃতি | doiডিওআই = 10.1080/714005636 | lastশেষাংশ = Raphaeli | firstপ্রথমাংশ = Nimrod | titleশিরোনাম = Ayman Muhammad Rabi' Al-Zawahiri: The Making of an Arch Terrorist | journalসাময়িকী=[[Terrorism and Political Violence]] |dateতারিখ=Winter 2002|pagesপাতাসমূহ = 1–22 | volumeখণ্ড=14|issueসংখ্যা নং = 4}}
Cited in {{citeওয়েব webউদ্ধৃতি | titleশিরোনাম = Ayman Muhammad Rabi' Al-Zawahiri |workকর্ম=[[The Jewish Virtual Library]] |dateতারিখ=11 March 2003 | urlইউআরএল = https://www.jewishvirtuallibrary.org/jsource/biography/Zawahiri.html | accessdateসংগ্রহের-তারিখ =August 29, 2006 | archiveurlআর্কাইভের-ইউআরএল= https://web.archive.org/web/20060721072325/https://www.jewishvirtuallibrary.org/jsource/biography/Zawahiri.html| archivedateআর্কাইভের-তারিখ= 21 July 2006 <!--DASHBot-->| deadurlঅকার্যকর-ইউআরএল= no}}
</ref>
 
১৯৯৫ সালে [[মিসরীয় দূতাবাসে হামলা (পাকিস্তান)|পাকিস্তানের ইসলামাবাদস্থ মিসরীয় দূতাবাসে হামলা]] ছিল আল-জাওয়াহিরির নেতৃত্বে [[মিসরীয় ইসলামি জিহাদ|মিসরীয় ইসলামি জিহাদের]] প্রথম সফল আক্রমণ। কিন্তু বিন লাদেন এই আক্রমণ পছন্দ করেননি। এই বোমা হামলা পাকস্তানকে "আফগানিস্তানের প্রতিচ্ছবি বানাবার সর্বোত্তম পথ" ছিল।<ref>Wright, ''Looming Towers'', 2006, p. 217.</ref>
 
২০০৭ সালের জুলাইয়ে আল-জাওয়াহিরি [[লাল মসজিদ অবরোধ]] করতে দিকনির্দেশনা দেন। যেই অভিযানের নাম ছিল- "নীরব অভিযান।" এটাই প্রথমবার ছিল, যাতে আল-জাওয়াহিরি পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ রাখেন। এবং ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠীকে পাকিস্তান রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে নির্দেশনা প্রদান করেন। [[পাকিস্তান সেনাবাহিনী]] এবং বিশেষ সামরিক দল [[ইসলামাবাদ]]স্থ [[লাল মসজিদ|লাল মসজিদের]] নিয়ন্ত্রণ হাতে নেয়। তারা সেখানে আল-জাওয়াহিরি প্রেরিত নির্দেশনামূলক চিঠি পায়। যা লাল মসজিদ এবং [[জামেয়া হাফসা]] মহিলা মাদ্রাসার পরিচালনাকারী [[আব্দুর রশিদ গাজি]] এবং [[আব্দুল আযিয গাজি]]র নিকট প্রেরণ করা হয়েছিল। এই সংঘাতে ১০০ লোকের মৃত্যু হয়েছিল।<ref>{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি|urlইউআরএল=http://www.timesonline.co.uk/tol/news/world/asia/article2076013.ece|titleশিরোনাম=The Times & The Sunday Times|publisherপ্রকাশক=|accessdateসংগ্রহের-তারিখ=April 28, 2017}}</ref>
 
২০০৭ সালের ২৭শে ডিসেম্বরে পাকিস্তানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী [[বেনজির ভুট্টো]]কে হত্যার সাথে আল-জাওয়াহিরি জড়িত ছিলেন।<ref>{{citeওয়েব webউদ্ধৃতি|urlইউআরএল=http://www.adnkronos.com/AKI/English/Security/?id=1.0.1710322437 |titleশিরোনাম=Pakistan: Al-Qaeda claims Bhutto's death |publisherপ্রকাশক=Adnkronos Security |dateতারিখ=2003-04-07 |accessdateসংগ্রহের-তারিখ=2012-12-13}}</ref>
 
==== সুদান ====
১৯৯৪ সালে [[আহমদ সালামা মাবরুক]] এবং [[মুহাম্মাদ শারাফ|মুহাম্মাদ শারাফের]] সন্তানদের আল-জাওয়াহিরির নেতৃত্বে [[মিসরীয় ইসলামি জিহাদ|মিসরীয় ইসলামি জিহাদের]] সাথে বিশ্বাসঘাতকতার অভিযোগে ফাঁসিতে ঝুলানো হয়। তখন এই জঙ্গি গোষ্ঠীকে সুদান ত্যাগ করতে নির্দেশ দেওয়া হয়।<ref>al-Shafey, Mohammed. [[Asharq Alawsat]], [http://www.asharq-e.com/news.asp?section=3&id=485 Al-Qaeda's secret Emails: Part Four] {{webarchiveওয়েব আর্কাইভ |urlইউআরএল=https://web.archive.org/web/20121209095953/http://www.asharq-e.com/news.asp?section=3&id=485 |dateতারিখ=December 9, 2012 }}, June 19, 2005.</ref><ref name="autogenerated2">Sageman, Marc, ''Understanding Terror Networks'', University of Pennsylvania Press, 2004, p. 45.</ref>
 
== অংশগ্রহণ ==
৯৯,৯১৬টি

সম্পাদনা

পরিভ্রমণ বাছাইতালিকা