বিষয়বস্তুতে চলুন

প্রসন্নময়ী দেবী: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বিষয়শ্রেণী:১৯৩৯-এ মৃত্যু যোগ হটক্যাটের মাধ্যমে)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
'''প্রসন্নময়ী দেবী''' (জন্ম: ১৮৫৬ অথবা ১৮৫৭ খ্রিষ্টাব্দ, ১৪ই আশ্বিন ১২৬৪ বঙ্গাব্দ - মৃত্যু: ২৫শে নভেম্বর ১৯৩৯)<ref name="অ">{{বই উদ্ধৃতি|titleশিরোনাম=সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান - সাহিত্য সংসদ}}</ref> একজন বিশিষ্ট কবি এবং সাহিত্যিক। তিনি কবিতা ছাড়াও উপন্যাস, ভ্রমণকাহিনী এবং স্মৃতিকথা লিখেছিলেন।
 
==প্রথম জীবন ও পরিবার==
কবি প্রসন্নময়ী দেবী বর্তমান [[বাংলাদেশ|বাংলাদেশের]] [[পাবনা]] জেলার হরিপুর গ্রামের চৌধুরী জমিদার বংশে ১৮৫৬ বা ১৮৫৭ খ্রিষ্টাব্দে জন্মগ্রহন করেন। তাঁর পিতার নাম দুর্গাদাস চৌধুরী। প্রসন্নময়ী ছিলেন তাঁর প্রথম সন্তান। প্রসন্নময়ীর ছিল সাত ভাই। তাঁদের মধ্যে [[কলকাতা হাইকোর্ট|কলকাতা হাইকোর্টে]]<nowiki/>র বিচারপতি স্যার আশুতোষ চৌধুরী এবং সাহিত্যিক [[প্রমথ চৌধুরী]] উল্লেখযোগ্য।<ref name="ব">{{বই উদ্ধৃতি|titleশিরোনাম=বঙ্গের মহিলা কবি - যোগেন্দ্রনাথ গুপ্ত}}</ref> দশ বছর বয়সে প্রসন্নময়ীর বিবাহ হয় পাবনার গুণাইগাছা গ্রামের কৃষ্ণকুমার বাগচীর সাথে। বিবাহের মাত্র দুই বছর পরেই কৃষ্ণকুমার উন্মাদরোগগ্রস্ত হন। এর পর থেকে প্রসন্নময়ী তাঁর শিশুকন্যা প্রিয়ম্বদাকে নিয়ে তাঁর পিত্রালয়েই বাস করতেন।<ref name="ব" />
 
এরপর প্রসন্নময়ীর পিতা তাঁর মেয়ের কষ্ট দূর করার জন্য তাঁকে গৃহে উপযুক্ত শিক্ষা দিতে মনস্থ করেন। তাঁকে ইংরেজী ও সঙ্গীত শেখানোর জন্য ইউরোপিয়ান শিক্ষিকা নিযুক্ত করেন এবং নিজে তাঁর বাংলা ও সংস্কৃত শিক্ষার ভার গ্রহন করেন। ইংরেজি ও সঙ্গীত শিক্ষা বেশি অগ্রসর না হলেও পরবর্তীকালে প্রসন্নময়ী দেবী ইংরেজি শিখেছিলেন।<ref name="ব"/>
১,৯৬,০১৪টি

সম্পাদনা