বিষয়বস্তুতে চলুন

প্রমথেশ চন্দ্র বরুয়া: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্য থাকল এর পরিচালককে জানান।)
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
'''প্রমথেশ চন্দ্র বরুয়া''' ( {{lang-en|Pramathesh Chandra (P.C.) Barua}}; [[অসমীয়া ভাষা|অসমীয়া:প্ৰমথেশ চন্দ্ৰ বৰুৱা]] ) ভারতের একজন বিখ্যাত অভিনেতা, চলচ্চিত্র পরিচালক ও চিত্রনাট্য লেখক ছিলেন। আসামের গৌরীপুরে জন্মগ্রহণ করা প্রমথেশ বড়ুয়া বাংলা ও হিন্দী চলচ্চিত্ৰ জগতের একজন বিখ্যাত চলচিত্র নির্মাতা ছিলেন। '''অপরাধী''' চলচ্চিত্রে তিনি সর্বপ্রথম কৃত্রিম আলোর ব্যবহার করেন এবং এটাই ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পে প্রথম কৃত্রিম আলোর ব্যবহার। তাঁর অপরাধী চলচ্চিত্রে ব্যবহার করা “কৃত্রিম আলো” ভারতীয় চলচ্চিত্র জগতে প্রথম কৃত্রিম ব্যবস্থা ছিল। ভারতীয়দের মধ্যে সর্বপ্রথম তিনি দেবদাস চলচ্চিত্রে ফ্লাস ব্যাক মন্তাজ, টেলিপ্যাথি শট এবং সাবজেকটিভ ক্যামেরার ব্যবহার করেন।<ref>http://calcuttaweb.com/cinema/pramatheshbarua.shtml</ref>
 
==শিক্ষা==bangla,book,class:five
 
প্রমথেশ বড়ুয়ার জন্ম অসমের [[গোয়ালপাড়া জেলা]]র গৌরীপুরে হয়েছিল। পিতার নাম প্রভাত চন্দ্র বরুয়া ও মাতার নাম সরোজবালা বরুয়া।<ref>http://web.archive.org/web/20080502101907/http://www.bfjaawards.com/archives/articles/198801.htm</ref> তিনি ছেলেবেলায় গৌরীপুরে ইউনাইটেড ক্লাব নামক একটি সাংস্কৃতিক সংঘের স্থাপনা করে নাটক করিতেন। প্রমথেশ বরুয়া গৌরীপুর বিদ্যালয়ে শিক্ষা সম্পূর্ণ করার পর কলকাতার হেয়ার বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছিলন। ১৯২১ সনে তিনি কলকাতার বীরেন্দ্রনাথ মিত্রের কন্যা মাধুরীলতাকে বিবাহ করেছিলেন। ১৯২৮ প্রমথেশ বরুয়া কলকাতার প্রেসিডেন্সী কলেজ থেকে পদার্থ বিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেছিলেন। তিনি ইউরোপ ভ্রমণ করার সময় চলচ্চিত্র জগতের প্রতি তাঁর আগ্রহ জন্মেছিল। ১৯২৬ সনে মাতৃবিয়োগের পর তিনি অসমে ফিরে আসেন ও পিতার সহিত জমিদারী কার্যে মনোনিবেশ করেন। কিছুদিন পর তিনি কলকাতার জন্য রওনা হন এবং ঘরের সদস্যদের আপত্তি থাকা সত্বেও তিনি চলচ্চিত্র জগতে জড়িত হন। তিনি অমলা বালা বরুয়া ও যমুনা বরুয়াকে বিবাহ করেছিলেন। প্রথমেশ বরুয়া মোট ৬টি সন্তানের পিতা ছিলেন।
 
বেনামী ব্যবহারকারী