বিষয়বস্তুতে চলুন

অনাক্রম্যতন্ত্র: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সংশোধন
(Zaheen রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা কে অনাক্রম্যতন্ত্র শিরোনামে স্থানান্তর করেছেন: সঠিকতর পরিভাষার শিরোনামে স্থানান্তর)
(সংশোধন)
'''রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাঅনাক্রম্যতন্ত্র''' বা '''অনাক্রম্যতন্ত্রপ্রতিরক্ষাতন্ত্র''' বা '''প্রতিরক্ষাতন্ত্ররোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা''' ({{lang-en|Immune system}}) হলো বিভিন্ন জৈবিক কাঠামো সহযোগে গঠিত জীবদেহের নিজস্ব প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা যা জীবদেহকে আক্রমণকারী রোগব্যধির বিরুদ্ধে কাজ করে থাকে। সঠিকভাবে কাজ করতে প্রতিরক্ষাতন্ত্রকেঅনাক্রম্যতন্ত্রকে বহিরাগত ভাইরাস বা পরজীবীর বিভিন্ন এজেন্ট (যাদেরযাদেরকে সাধারণত আমরাইংরেজিতে প্যাথোজেন নামে চিনিডাকা হয়) জীবদেহের নিজস্ব পরজীবী থেকে আলাদা করে শনাক্ত করতে হবে।হয়। অনেক প্রজাতিতেই প্রতিরক্ষাতন্ত্রকেঅনাক্রম্যতন্ত্রকে অন্ত:প্রতিরক্ষাতন্ত্র, অর্জিত প্রতিরক্ষাতন্ত্রঅনাক্রম্যতন্ত্র বা হরমোনালহরমোনজনিত প্রতিরক্ষাতন্ত্রঅনাক্রম্যতন্ত্র ইত্যাদি উপভাগে ভাগ করা হয়। মানুষেরহয়।মানুষের ক্ষেত্রে রক্ত-মস্তিষ্ক-প্রতিবন্ধক, রক্ত সেরিব্রোস্পাইনাল ফ্লুইড প্রতিবন্ধক এবং এ ধরণের ফ্লুইড-মস্তিষ্ক-প্রতিবন্ধক, কেন্দ্রীয় এবং প্রান্তীয় প্রতিরক্ষাতন্ত্রের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দেয়।
 
প্যাথজেন খুব দ্রুত বৃদ্ধি বা বংশবিস্তার লাভ করে প্রতিরক্ষাতন্ত্রকেঅনাক্রম্যতন্ত্রকে ফাকি দিতে পারে, আবার অনেক প্রতিরক্ষা উপাদানও একইভাবে উন্নতি করে প্যাথজেন শনাক্ত ও প্রশমিত করতে পারে। সাধারণ এককোষী যেমন ব্যাক্টেরিয়াতে ব্যাক্টেরিওফাযেরব্যাক্টেরিওফাজের ইনফেক্শনেরসংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রতিরোধী এনজাইম্রুপেএনজাইরূপে অপরিণত প্রতিরক্ষাতন্ত্রঅনাক্রম্যতন্ত্র থাকে। আদিকোষীতে অন্য়ান্য় সাধারন প্রতিরক্ষাতন্ত্রঅনাক্রম্যতন্ত্র গড়ে উঠেছে এবং তাদের বর্তমান বংশধরে যেমন উদ্ভিদ ও অন্তঃভার্টিব্রাটাস এ এখনো এটি বিদ্যমান। প্রতিরক্ষাতন্ত্রেরঅনাক্রম্যতন্ত্রের কার্যপ্রণালীর মধ্যে রয়েছে ফ্যাগোসাইটোসিস, ডিফেনসিন্স নামধারী ক্ষুদ্রানুরোধী পেপটাইডস, এবং কমপ্লিমেন্ট সিস্টেম। মানুষ সহ ন্যাথস্টোমাটা অধিশ্ৰেণীয় ভার্টিব্রেটদের নির্দিষ্ট প্যাথোজেনদের বিরুদ্ধে আরো সুচারুরূপে পদ্ধক্ষেপ নেবার মতো অধিক উন্নত প্রতিরক্ষাতন্ত্র রয়েছে ^[১]। সহজাত বা অর্জিত অনাক্রম্যতা অনাক্রম্য স্মৃতি তৈরী করে রেখে একবার প্রতিরোধ করা হয়েছে এমন প্যাথোজেনের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া গড়ে তোলে। টিকা প্রক্রিয়ার ভিত্তিই হল অর্জিত অনাক্রম্যতা।
 
রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থায়অনাক্রম্যতন্ত্রে কোনো সমস্যা হলে স্বয়ং-অনাক্রম্য ব্যধি (অটোইমিউন ডিজিজ), প্রদাহী ক্ষত বা কর্কটরোগ (ক্যান্সার) হতে পারে।^[২] রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাঅনাক্রম্যতন্ত্র তুলনামূলক ভাবে দুর্বল থাকলে অনাক্রম্যহীনতা (ইমিউনোডেফিশিয়েন্সি) এবং তা থেকে প্রাণঘাতী ইনফেকশনসংক্রমণ হতে পারে।মানুষেরপারে। মানুষের ক্ষেত্রে জিনগত রোগের (যেমন গুরুতর যৌগিক অনাক্রম্যহীনতা ''সিভিয়ার কম্বাইন্ড ইমিউনোডেফিশিয়েন্সি'') কারণেও হতে পারে, আবার বাইরে থেকে জীবাণু অর্জন করার কারণেও (যেমন এইচ আই ভি/ এইডস) হতে পারে বা অনাক্রম্য ব্যবস্থাকেঅনাক্রম্যতন্ত্রকে দুর্বল করে এমন ওষুধ ব্যবহারের কারণেও হতে পারে। অন্যদিকে, অনাক্রম্য ব্যবস্থাঅনাক্রম্যতন্ত্র নিজ দেহ কোষকে ঠিকভাবে সনাক্ত না করে তাকে বহিরাগত কোষ মনে করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াকে স্বয়ং-অনাক্রম্যতা (অটোইম্যুনিটি) বলা হয়। এরকম কিছু অটোইমিউনস্বয়ং-অনাক্রম্য সমস্যা হলো হাশিমোটোস থাইরয়ডিটিস, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস মেলিটাস টাইপ-১ এবং সিস্টেমিক লুপাস এরিথেমাটোসাস। ইমিউনোলজি বা অনাক্রম্য বিদ্যায় রোগ প্রতিরোধঅনাক্রম্যবিজ্ঞানে ব্যবস্থারঅনাক্রম্যতন্ত্রের বিষয়াবলীবিষয়াবলি নিয়ে আলোচনা করা হয়।
 
[[বিষয়শ্রেণী:শারীরিক তন্ত্র]]
৫৭,০২০টি

সম্পাদনা