বিষয়বস্তুতে চলুন

কেলেচি ইহেয়ানাচো: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
 
== আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার ==
কেলেচি নাইজেরিয়া অনুর্ধ-১৩ দল থেকে বিভিন্ন বয়সভিত্তিক দলে খেলেছেন। মরক্কোয় অনুষ্ঠিত '২০১৩ আফ্রিকান অনুর্ধ-১৭ চ্যাম্পিয়েন্সচ্যাম্পিয়েন্সিপ' খেলার মাধ্যমে প্রথমবারের মত বড় আসরে খেলেন। বতসোয়ানার বিপক্ষে হ্যাট্রিকের মাধ্যমে কেলেচি আলোচনায় আসে। তার এই হ্যাট্রিক তিনি উৎসর্গ করেন তার মা'কে, যিনি টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার ২ মাস আগে মারা যান। নাইজেরিয়া সেই আসরে ফাইনালে ওঠে এবং আইভরি কোস্টের বিপক্ষে ট্রাইব্রেকারে হেরে শিরোপা অর্জনে ব্যর্থ হয়।
 
২০১৩ ফিফা অনুর্ধ-১৭ বিশ্বকাপে কেলেচি ইহিয়ানাচো গোল্ডেন বল জিতেন। টুর্নামেন্টে নাইজেরিয়া শিরোপা জিতে, যেখানে কেলেচি ফাইনালে দেয়া একটি গোলসহ মোট ৬ টি গোল এবং ৭ টি এসিস্ট করেন। এর কিছুদিন পর ২০১৪ আফ্রিকান নেশন কাপে জন্য [[নাইজেরিয়া জাতীয় ফুটবল দল|নাইজেরিয়া জাতীয় দলের]] সাথে অনুশীলন করেন, তবে শেষ পর্যন্ত স্কোয়াডে সুযোগ পাননি। ২০১৫ সালে নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ফিফা অনুর্ধ-২০ বিশ্বকাপে ২ টি ম্যাচ খেলেন।
 
২০১৬ অলিম্পিকের জন্য [[নাইজেরিয়া জাতীয় ফুটবল দল|নাইজেরিয়ার]] ৩৫ সদস্যর প্রাথমিক দলে সুযোগ পান, তবে তা ১৮ তে আনার পর বাদ পড়েন।
 
২০১৪ সালে ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে সোয়াজিল্যান্ডের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র হওয়া ম্যাচে অভিষেক হয়, তবে তিনি সেই ম্যাচে বদলি হিসেবে নামেন। ২০১৬ সালের ২৫ মার্চে আফ্রিকান নেশন কাপের বাছাইপর্বে মিশরের বিপক্ষে প্রথম একাদশে সুযোগ পান, ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হয়।