বিষয়বস্তুতে চলুন

"দজলা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(Intakhab ব্যবহারকারী টাইগ্রিস পাতাটিকে দজলা শিরোনামে স্থানান্তর করেছেন: মূল নাম)
{{তথ্যছক নদী| river_name = টাইগ্রিসদজলা
| image_name = Tigr-euph.png
| caption = টাইগ্রিসদজলা নদীর মানচিত্র-[[ইউফ্রেটিস]] জলছাপ
| origin = পূর্ব [[তুরস্ক]]
| mouth = [[শাত আল আরব]]
| discharge =
| watershed =
}}'''টাইগ্রিসদজলা নদী''' ({{lang-ar|دجلة}}) বা '''দজলা''' দক্ষিণ-পশ্চিম [[এশিয়া|এশিয়ার]] একটি [[নদী]]। নদীটি [[তুরস্ক|তুরস্কে]] উৎপত্তি লাভ করে [[ইরাক|ইরাকের]] ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে ইউফ্রেটিস নদীর সাথে মিলিত হয়েছে এবং শাত আল আরব নামে [[পারস্য উপসাগর|পারস্য উপসাগরে]] পড়েছে।
 
টাইগ্রিসদজলা নদীর দৈর্ঘ্য ১,৯০০ [[কিলোমিটার]] এবং এর নদীবিধৌত অববাহিকার [[আয়তন]] ১,১০,০০০ [[বর্গকিলোমিটার|বর্গকিলোমিটারেরও]] বেশি। নদীটি পূর্ব [[তুরস্ক|তুরস্কের]] পর্বতমালায় উৎপত্তি লাভ করেছে এবং দক্ষিণ-পূর্বে প্রবাহিত হয়ে কিছু সময়ের জন্য [[সিরিয়া]] ও [[তুরস্ক|তুরস্কের]] সবচেয়ে পূর্বের সীমান্ত গঠন করে [[ইরাক|ইরাকে]] প্রবেশ করেছে। ইরাকের ভেতর দিয়ে এটি সর্পিলাকারে মোটামুটি দক্ষিণ-পূর্ব দিকে ধীর গতিতে প্রবাহিত হয়েছে এবং এর উপত্যকা [[সমতল পৃথিবী|সমতল]] ও বিস্তৃত আকার ধারণ করেছে। দক্ষিণ ইরাকে এটি [[ইউফ্রেটিস]] নদীর সাথে মিলিত হয়ে শাত আল আরব [[নদী]] গঠন করেছে, যা আরও [[১৭০]] [[কিলোমিটার]] প্রবাহিত হয়ে [[পারস্য উপসাগর|পারস্য উপসাগরে]] পতিত হয়েছে। প্রাচীনকালে [[ইউফ্রেটিস]] ও টাইগ্রিসেরদজলার মধ্যবর্তী অববাহিকাতে বিখ্যাত সব [[মেসোপটেমিয়া|মেসোপটেমীয়]] [[সভ্যতা]] বিকাশ লাভ করেছিল। টাইগ্রিস নদীরটাদজলানদীর তীরে প্রাচীন [[আসিরীয়া|আসিরীয় সভ্যতার]] নিনেভেহ শহরের ধ্বংসাবশেষ অবস্থিত। এছাড়া সেলেউসিয়া ও তেসিফোনে রঅবশেষও আছে এখানে।
 
টাইগ্রিসেরদজলার প্রধান প্রধান [[উপনদী]] হল বৃহৎ জাব, ক্ষুদ্র জাব, দিয়ালা এবং আল উজায়িম। এগুলি সবই ইরাকের অভ্যন্তরে টাইগ্রিস নদীরটাদজলানদীর সাথে মিলিত হয়েছে। তবে বৃহৎ জাব [[নদী]] তুরস্কে এবং ক্ষুদ্র জাব ও দিয়ালা [[নদী]] [[ইরান|ইরানে]] উৎপত্তি লাভ করেছে। টাইগ্রিসদজলা নদীর তীরে অবস্থিত প্রধান শহরের মধ্যে আছে তুরস্কের দিয়ারবাকির এবং ইরাকের মোসুল ও [[বাগদাদ|বাগদাদ শহর]]। টাইগ্রিসদজলা [[নদী]] অত্যন্ত অগভীর বলে এখানে ছোট [[নৌকা]] ছাড়া আর কিছু চালানো যায় না। বিশেষত বাগদাদের পর থেকে নদীটি একাধিক অগভীর শাখার বিভক্ত হয়ে গেছে এবং ঘন [[জলাভূমি|জলাভূমির]] মধ্য দিয়ে অগ্রসর হয়েছে।
 
অতীতে উচ্চভূমির [[শীতকাল|শীতকালীন]] বরফগলা [[পানি]] এবং শীতের শেষের বৃষ্টিপাতের ফলে টাইগ্রিসদজলা নদীতে প্রায়ই [[বন্যা|বন্যার]] সৃষ্টি হত। [[১৯৫০]] সালে সামারা বাঁধ নির্মাণ করে টাইগ্রিসেরদজলার অতিরিক্ত [[পানি]] মধ্য ইরাকের থারথার অঞ্চলে প্রবাহিত করা হয়। টাইগ্রিসেরটাদজলার বয়ে আনা অতিরিক্ত পলিমাটি কমানোরও ব্যবস্থা নেয়া হয়। তবে এর ফলে দক্ষিণ ইরাকে সুপেয় পানির সরবরাহ হ্রাস পায় এবং দক্ষিণ ইরাকে [[পারস্য উপসাগর|পারস্য উপসাগরের]] লবণাক্ত [[পানি]] টাইগ্রিসেরদজলার সুপেয় পানির সাথে মিশে যেতে থাকে। ফলে স্থানীয় [[কৃষিকার্য
|কৃষির]] ক্ষতি হয়।
== উল্লেখযোগ্য শহর ==