বিষয়বস্তুতে চলুন

"কামরূপ রাজ্য" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

PtomelyAsiaDetail.jpg ছবিটিকে Ptolemy_Asia_detail.jpg ছবি দ্বারা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে
(বট: আন্তঃউইকি সংযোগ সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, যা এখন উইকিউপাত্ত ...)
(PtomelyAsiaDetail.jpg ছবিটিকে Ptolemy_Asia_detail.jpg ছবি দ্বারা প্রতিস্থাপন করা হয়েছে)
 
== কামরূপের উৎসসমূহ ==
[[চিত্র:PtomelyAsiaDetailPtolemy_Asia_detail.jpg|thumb|right|280px|[[টলেমি]]র বিশ্বমানচিত্রে এশিয়া যেখানে কামরূপকে ''Cirrhadia'' হিসেবে দেখানো হয়েছে।]]
মহাভারত এবং রামায়ণে এই অঞ্চলকে ''প্রাগজ্যোতিষ'' হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছে। ইরিত্রিয় সাগরের পেরিপ্লাস (প্রথম শতাব্দী) এবং [[টলেমি]]র জিওগ্রাফিয়াতে (দ্বিতীয় শতাব্দী) এই অঞ্চলকে ''কিরহাদিয়া'' নামে আখ্যায়িত করেছে যা কিরাতা জনগণের নামে নামাঙ্করণ করা হয়েছে<ref name="sircar90_d">ডি. সি. সরকার, (১৯৯০), অধ্যায় ৫: মহাকাব্যীয়-পৌরাণিক কল্পকথা এবং উপাখ্যানসমূহ, পৃ ৮১</ref>। কামরূপের প্রথম মহাকাব্যিক উল্লেখ পাওয়া যায় ৪র্থ শতাব্দীর সমুদ্রগুপ্তের এলাহাবাদের অভিলিখন হতে, যা এক ঐতিহাসিক সময়কালের সুচনাপাতের নির্দেশক। চৈনিক পর্যটক সুয়ানচাং ৭ম শতাব্দীর দিকে ভাস্করবর্মণের শাসনকালে এই রাজ্য ভ্রমণ করেন। কামরূপের রাজাদের বিশেষ করে ভাস্করবর্মণের বিভিন্ন অভিলিখন হতে অনেক মূল্যবান তথ্য পাওয়া সম্ভব হয়।