বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশন
বাংলাদেশ রেলওয়ের স্টেশন
Birampur railway station.jpg
অবস্থানবিরামপুর
 বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২৫°২৩′৫২″ উত্তর ৮৮°৫৯′৩৯″ পূর্ব / ২৫.৩৯৭৮১° উত্তর ৮৮.৯৯৪১০° পূর্ব / 25.39781; 88.99410স্থানাঙ্ক: ২৫°২৩′৫২″ উত্তর ৮৮°৫৯′৩৯″ পূর্ব / ২৫.৩৯৭৮১° উত্তর ৮৮.৯৯৪১০° পূর্ব / 25.39781; 88.99410
মালিকানাধীনবাংলাদেশ রেলওয়ে
লাইন (সমূহ)চিলাহাটি-পার্বতীপুর-সান্তাহার-দর্শনা লাইন
প্ল্যাটফর্ম
নির্মাণ
গঠনের ধরণমানক
অন্য তথ্য
অবস্থাসক্রিয়
অবস্থান

বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশন বাংলাদেশের দিনাজপুর জেলার বিরামপুর উপজেলার একটি রেলওয়ে স্টেশন। এটি বিরামপুরের সাথে বাংলাদেশের অন্যান্য জায়গার যোগাযোগের জন্য গুরুত্বপূর্ণ টার্মিনাল।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

দিনাজপুর জেলার বিরামপুর চরকাই নামে রেল স্টেশন দেড়শত বছর পূর্বে ব্রিটিশ শাসনামলে নির্মিত। তখন এটির নাম ছিল চরকই রেলস্টেশন। পরবর্তীতে ২৩ জুন ১৯৯৪ সালে চরকাই নাম পরিবর্তন করে বিরামপুর রেল স্টেশন নামকরণ করা হয়। বিরামপুরসহ নবাবগঞ্জ, ঘোড়াঘাটহাকিমপুর উপজেলার প্রায় ৮ লাখ লোকের রেল ভ্রমণের একমাত্র অবলম্বন বিরামপুর রেল স্টেশন। প্রতিমাসে টিকেট বিক্রি হয় প্রায় ৯ লাখ টাকা, বছরে সরকারের আদায় হয় প্রায় সোয়া কোটি টাকা।

সম্প্রতি রেল কর্তৃপক্ষ ২ নং রেল লাইনের বিপরীতে ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৫৩০ ফুট দীর্ঘ এবং ৬ ফুট প্রস্থের একটি প্লাটফর্ম নির্মাণ করা করেছে।[১]

বর্তমান অবস্থা[সম্পাদনা]

বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে দৈনিক ১০টি ট্রেন বাংলাদেশের বিভিন্ন গন্তব্যে ছেড়ে যায়। যাত্রীদের সেবাদানের জন্য বিরামপুর স্টেশনে এবং বিভিন্ন বিভাগে বহুসংখ্যক কর্মচারি কর্মরত। এরপরও নানা সমস্যায় জর্জরিত বিরামপুর রেলওয়ে স্টেশন। যাত্রী বেড়েছে বহুগুণ। দিন রাত সব সবসময় এখানে মানুষের যাতায়াত থাকে।

আন্তঃনগর ট্রেন[সম্পাদনা]

বিরামপুর স্টেশনে উত্তরবঙ্গগামী সকল ট্রেন বিরতি দেয়। ঢাকা হতে মোট ৩টি ট্রেন চলাচল করে:

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]