বিজয় কুমার সিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেনারেল বিজয় কুমার সিং
General Vijay Kumar Singh.jpg
জন্ম১০ মে ১৯৫১
খাড়কি সামরিক হাসপাতাল, পুনে, ভারত
আনুগত্য ভারত
সার্ভিস/শাখাভারতীয় সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৭০- ২০১২
পদমর্যাদাজেনারেল
ইউনিট২য় রাজপুত রেজিমেন্ট
নেতৃত্বসমূহভারতের রাষ্ট্রপতির এডিসি
কর্নেল অব দ্যা রাজপুত রেজিমেন্ট
অনারারী কর্নেল অব ব্রিগেড অব গার্ডস
পূর্বাঞ্চলীয় সেনা কমান্ডের অধিনায়ক
২ কোর এর অধিনায়ক
রাষ্ট্রীয় রাইফেলস এর জেনারেল অফিসার কমান্ডিং
একটি পদাতিক ব্রিগেডের অধিনায়ক
২য় রাজপুত রেজিমেন্টের অধিনায়ক
যুদ্ধ/সংগ্রামভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ ১৯৭১,
অপারেশন পবন
পুরস্কারপরম বিশিষ্ট সেবা পদক
অতি বিশিষ্ট সেবা পদক
যুদ্ধ সেবা পদক

বিজয় কুমার সিং ভারতীয় সেনাবাহিনীর একজন জেনারেল ছিলেন। তিনি ভারতের ২৪তম সেনাপ্রধান ছিলেন।[১] তিনি ছিলেন প্রথম সেনা কমান্ডো যিনি সেনাপ্রধানের পদ ছুঁতে পেরেছিলেন, ভারতের সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করা এবং বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো বিজয়ই ছিলেন প্রথম কর্মরত সেনা সদস্য।

পূর্ব জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

বিজয় পুনের একটি সামরিক হাসপাতালে ১৯৫১ সালে জন্মগ্রহণ করেন, তার গ্রামের বাড়ি হরিয়ানা প্রদেশের ভিওয়ানি জেলাতে। তার বাবা সেনাবাহিনীরই কর্নেল ছিলেন এবং দাদা ছিলেন উর্ধ্বতন জেসিও।[২] বিজয় রাজস্থান প্রদেশের পিলানি এর 'বিরলা পাবলিক স্কুল'এ পড়েন।[৩]

সামরিক জীবন[সম্পাদনা]

১৯৭০ সালের ১৪ই জুন বিজয় রাজপুত রেজিমেন্টের ২য় ব্যাটেলিয়নে কমিশন পান। পরবর্তী জীবনে বিজয় এই ইউনিটের অধিনায়ক হতে পেরেছিলেন।[৪]

তামিলনাড়ুর ওয়েলিংটন সেনানিবাস থেকে স্টাফ কোর্স, যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর পদাতিক বিদ্যালয় থেকে পদাতিক কর্মকর্তা বিষয়ক কোর্স, রেঞ্জার্স কোর্স এবং যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনী ওয়ার কলেজ থেকে ডিগ্রী নিয়েছিলেন বিজয়।[৫]

বিজয় কাউন্টার ইনসার্জেন্সী অপারেশন্স এবং পাহাড় সামরিক অভিযানে অনেক দক্ষ ছিলেন। ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ ১৯৭১ চলাকালীন তিনি লেফটেন্যান্ট ছিলেন। তার জীবনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সামরিক দায়িত্ব ছিলো, যেমনঃ

  • সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে মিলিটারি অপারেশন্স পরিদপ্তরে নিয়োগপ্রাপ্তি।
  • একটি কোরের ব্রিগেডিয়ার জেনারেল স্টাফ হিসেবে দায়িত্ব পালন, এই দায়িত্ব পালনকালে 'অপারেশন পরাক্রম' চলছিলো, ২০০১ সালে ভারতের পার্লামেন্টে পাকিস্তানের মুসলিমদের হামলার জবাবে ভারতীয় সেনাদেরকে পাকিস্তান সীমান্তে মোতায়েন করা হয়েছিলো।
  • দুটি কোরের অধিনায়ক ছিলেন জেনারেল বিজয়, ২ কোর এবং ১১ কোর।
  • ভুটানে সামরিক প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করেছেন তিনি।

কাউন্টার ইনসার্জেন্সী অপারেশনে দক্ষতার জন্য তাকে 'অতি বিশিষ্ট সেবা পদক' দেয়া হয়েছিলো।[৬]

২০১০ সালের ৩১শে মার্চ বিজয় ভারতীয় সেনাবাহিনীর সর্বোচ্চ নিয়োগ সেনাপ্রধান এ আসীন হন, প্রথম সেনা কমান্ডো হিসেবে ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রথম প্রধান হিসেবে বিজয় স্মরণীয় থাকবেন।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gen. V.K. Singh to retire today"। New Delhi: The Hindu। ৩১ মে ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৬-০৬ 
  2. "Lt Gen V K Singh named next Army Chief"। deccanherald.com। ২২ জানুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-২৬ 
  3. Mohan, Raman (২৪ জানুয়ারি ২০১০)। "Bapoda village basks in Gen VK Singh's glory"। Chandigarh: The Tribune। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৪-০৩ 
  4. Dutta, Sujan (৩০ জুলাই ২০১১)। "Generation shift in air force"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-২৬ 
  5. "Gen VK Singh battles odds, becomes 26th army chief"। DNA। ৩১ মার্চ ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-২৬ 
  6. "Gen. V.K. Singh is new Chief of the Army Staff"The Hindu। ১ এপ্রিল ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৩-২৬