বিজয়ওয়াড়া মেট্রো রেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বিজয়ওয়াড়া মেট্রো
విజయవాడ మెట్రో
তথ্য
অবস্থানবিজয়ওয়াড়া, অন্ধ্রপ্রদেশ, ভারত
ধরনদ্রুত পরিবহন
লাইনের সংখ্যা২ (পরিকল্পীত)
বিরতিস্থলের সংখ্যা২৫
মুখ্য নির্বাহীএন পি রামকৃষ্ণ রেড্ডি
ওয়েবসাইটhttp://www.amrc.co.in
কাজ
কাজ শুরু২০২০ (আনুমানীক)
পরিচালকAmaravati Metro Rail Corporation (AMRC)
দৈর্ঘ্য৩ কোচ
প্রযুক্তি
লাইনের দৈর্ঘ্য২৬.০৩ কিমি
গতিপথ গেজটেমপ্লেট:Track gauge
বিদ্যুতায়ন৭৫০ ভঅল্ট ডিসি থার্ড লাইন
গড় গতিবেগ৩৩ কিমি/ঘন্টা
সর্বোচ্চ গতিবেগ৮০ কিমি/ঘন্টা

বিজয়ওয়াডা মেট্রো রেল ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যের রাজধানী অঞ্চলের অন্তর্গত বিজয়ওয়াড়া শহরের প্রস্তাবিত দ্রুত পরিবহন ব্যবস্থা। এই ব্যবস্থাটি শহরে যানজট সমস্যা কমাতে প্রস্তাবিত হয় এবং ২০০৮ সালে মোট ২৬.০৩ কিলোমিটার দীর্ঘ দুটি মেট্রো রেল পথ নির্মানের কথা বলা হয়।[১] প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয় ₹৬,৭৬৯ কোটি টাকা।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

নগরীর যানজট কমানোর জন্য এন চন্দ্রবাবু নাইডু কর্তৃক মেট্রো রেল প্রকল্পের প্রস্তাব করেন। দিল্লি মেট্রো রেল প্রকল্পের মত বিজয়ওয়াড়া মেট্রো প্রকল্প সফলভাবে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে দিল্লি মেট্রো রেল কর্পোরেশন (ডিএমআরসি)-এর নেতৃত্বাধীন এই প্রকল্পটি ইএসআরডয়ারকে দেওয়া হয়েছিল। ২০১৪ সালে প্রকল্পের জন্য জরিপ কাজ এবং ট্রাফিক সার্ভে পরিচালনার জন্য নিযুক্ত আরভিআর অ্যাসোসিয়েটস পরিবার। এই দুটি জরিপ সম্পন্ন করার পর, ভৌগোলিক, পরিবেশগত ও মাটি জরিপ পরিচালনা করা হয়। মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডুনকে ২৭ এপ্রিল, ২০১৫ তারিখের ডিএমআরসি প্রিন্সিপ্যাল ​​অ্যাডভাইজর বিজয়ওয়াড়া মেট্রোতে একটি বিস্তারিত প্রকল্প প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয়। এএমআরসি এই প্রকল্পের জন্য দুটি লাইন নির্মাণের জন্য দরপত্র পেশ করে। ২৮ নভেম্বর, ২০১৬ সালে লার্সেন অ্যান্ড টুবুরো (এলএন্ডটি), আফকোন্স ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিটেড (এআইএল) এবং সিম্পল্যাংক ইনফ্রাস্ট্রাকচারস লিমিটেড (এসআইএল) প্রকল্পের জন্য দরপত্র জমা দিয়েছে। ডিসেম্বর ২০১৮ সালের মধ্যে প্রকল্পটির দ্বিতীয় পর্যায় সম্পন্ন করার জন্য ডিএমআরসি'কে বলা হয়েছে।

বিশেষ উদ্দেশ্যমূলক যানবাহন[সম্পাদনা]

পরিকল্পনা[সম্পাদনা]

অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু অন্ধ্রপ্রদেশের জন্য নতুন রাজধানী হিসাবে বিজয়ওয়াড়া শহরকে একটি স্মার্ট শহর হিসেবে উন্নীত করার পরিকল্পনা করেছিলেন। এই পরিকল্পনার অংশ হিসাবে বিজয়ওয়াড়া মেট্রো নির্মান করা হচ্ছে।

নেটওয়ার্ক এবং রুট সূত্র[সম্পাদনা]

দুটি লাইনের প্রস্তাবিত বিনিময় হল পন্ডিত নেহেরু বাস স্টেশন (পিএনবিএস), একটি বাস স্টেশন যা বিজয়াবাদা শহরের দক্ষিণ পাশে অবস্থিত এবং কৃষ্ণ নদী বরাবর অবস্থিত।প্রস্তাবিত প্রথম লাইন পণ্ডিত নেহেরু বাস স্টেশন থেকে পেনারমালুরুইয়া মহাত্মা গান্ধী রোডের বন্দর রোড এবং পল্লী বিদ্যুৎ কেন্দ্রের দ্বিতীয় চালক নিদমানুরুভিয়ায় বিজয়ওয়াড রেলওয়ে স্টেশন থেকে এলুরু রোডের দ্বিতীয় অংশ।অমরাবতী (রাজ্য রাজধানী) একটি এক্সটেনশন একটি পরবর্তী পর্যায়ে প্রস্তাব করা হয়। এই প্রকল্প এক টাউন এলাকা পরিবেশন করে না, যেখানে বাণিজ্যিক এলাকা যেমন কে.আর. মার্কেট, ভাসট্রালা এবং কানাক দুর্গায়ার মন্দির অবস্থিত

অর্থায়ন[সম্পাদনা]

পন্ডিত নেহেরু বাস স্টেশন (পিএনবিএস) থেকে নিদিমানুরের কর্ণধারকে ৯৬৯ কোটি টাকা (১৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার) ব্যয় করা হয়, এবং পিএনবিএস ও পেনামালুরের মধ্যে কেরিয়ারটি ৮৩১ কোটি টাকা (১৩ কোটি মার্কিন ডলার) খরচ হবে।জার্মান ব্যাংক কেএফডব্লিউ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ এ এএমআরসিকে ২,৫০০ কোটি টাকা (মার্কিন $ ৩৯০ মিলিয়ন) ঋণ প্রদানের জন্য সম্মত হয়। অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার আগে জাইকার কাছ থেকে ঋণ গ্রহণের কথা বলেছিল, কিন্তু জাইকার ঋণ প্রস্তাব অনুযায়ী বাধ্যতামূলক নয়।যে ঋণগ্রহীত পরিমাণ ৩০% জাপান থেকে রোলিং স্টক কিনতে ব্যবহার করা উচিত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Vizag, Vijayawada Metro Works Entrusted to Delhi Metro Rail Corporation"। Vijayawada। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫