বিজন সেতু হত্যাকান্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বিজন সেতু হত্যাকান্ড ১৯৮২ সালের ৩০ এপ্রিলের দিন পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার উপকন্ঠে বালিগঞ্জে সংঘটিত আনন্দমার্গী ১৬ সন্ন্যাসী ও ১ জন সন্ন্যাসিনীর হত্যাকান্ডকে বোঝায়। দিনের বেলায় সংঘটিত হওয়া সত্বেও এই ঘটনার জন্য আজও কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। আনুষ্ঠানিক বিচারবিভাগীয় তদন্তের জন্য বারে বারে আহ্বান জানানোর পর ২০১২ সালে উক্ত হত্যাকান্ডের তদন্তের জন্য একটি একজনের তদন্ত-কমিশন গঠন করা হয়।

ঘটনা[সম্পাদনা]

১৯৮২ সালের ৩০ এপ্রিলের দিন আনন্দমার্গী ১৬জন সন্ন্যাসী ও একজন সন্ন্যাসিনীকে কলকাতার তিলজলাতে অবস্থিত তাঁদের মুখ্য কার্যালয়ে হওয়া একটি শিক্ষা সম্মেলনে নিয়ে যাওয়া অবস্থায় ট্যাক্সির ভিতর থেকে টেনে বাইরে আনা হয়। একই সময় তিনটি ভিন্ন স্থানে মারা যাওয়া পর্যন্ত তাঁদেরকে প্রহার করা হয়েছিল এবং তাঁদের দেহগুলি একত্র করে আগুন লাগিয়ে দেয়া হয়েছিল। খবরে প্রকাশ যে, দিনর বেলায় প্রকাশ্য স্থানে সংঘটিত এই ঘটনা হাজার হাজার লোক প্রত্যক্ষ করেছিল[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Namboodiri, Udayan (১৯৯৭-০৫-০২)। "Basu Govt still suppressing facts on Margi massacre"The Indian Express। ২০১০-০৩-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]