বান্দরবান স্টেডিয়াম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বান্দরবান স্টেডিয়াম
পূর্ণ নামবান্দরবান জেলা স্টেডিয়াম
অবস্থানবান্দরবান, বাংলাদেশ
স্থানাঙ্ক২২°১১′৩০.৬০″ উত্তর ৯২°১৩′২৪.০৭″ পূর্ব / ২২.১৯১৮৩৩৩° উত্তর ৯২.২২৩৩৫২৮° পূর্ব / 22.1918333; 92.2233528স্থানাঙ্ক: ২২°১১′৩০.৬০″ উত্তর ৯২°১৩′২৪.০৭″ পূর্ব / ২২.১৯১৮৩৩৩° উত্তর ৯২.২২৩৩৫২৮° পূর্ব / 22.1918333; 92.2233528
মালিকজাতীয় ক্রীড়া পরিষদ
পরিচালকজেলা ক্রীড়া সংস্থা, বান্দরবান
ধারণক্ষমতা১৫০০০
মাঠের আয়তন১৮৫ × ১০০ মিটার (৬০৭ × ৩২৮ ফুট)
মাঠ আকৃতিডিম্বাকৃতি
উপরিভাগঘাস
নির্মাণ
নির্মিত১৯৮২
ভাড়াটিয়া
  • বান্দরবান ফুটবল দল

বান্দরবান জেলা স্টেডিয়াম ১৯৮২ সালে নির্মিত[১], বাংলাদেশের একটি জেলা পর্যায়ের স্টেডিয়াম। স্টেডিয়ামটি বান্দরবান পৌরসভার বান্দরবান সরকারি কলেজ-এর পূর্বে ও বান্দরবান জেলা কারাগারের পশ্চিমে অবস্থিত। এই স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের জাতীয় দিবস সমূহে কুচকাওয়াচ, বান্দরবান জেলার বিভিন্ন ক্রীড়ানুষ্ঠান যেমন-পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় ফুটবল লীগ, মহিলা হ্যান্ডবল লিগ, জেলা ক্রিকেট লিগ; বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, কনসার্ট অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের অন্যান্য সকল ক্রীড়া ভেন্যুর মতই এই স্টেডিয়ামটি জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধিভুক্ত[২] ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার তত্বাবধায়নে রয়েছে।

৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ তারিখে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এই স্টেডিয়ামের নাম বান্দরবানের বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউ. কে. চিং বীর বিক্রম-এর নামে নামকরণ করার প্রস্তাব দেন[৩][৪]। প্রস্তাবটি বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

বিশেষত্ব[সম্পাদনা]

স্টেডিয়ামের দক্ষিণ পাশে ক্রীড়াবিদদের শরীর চর্চা করার জন্য একটি ব্যয়ামগার রয়েছে। এই জিমনাশিয়ামে জেলা পর্যায়ের বিভিন্ন ইন-ডোর স্পোর্টস যেমন- জুডো, কারাতে, তায়োকান্দো প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়।

উল্লেখযোগ্য আয়োজন[সম্পাদনা]

  • স্টেডিয়ামটিতে প্রতিবছর বাংলাদেশের স্বাধীনতাবিজয় দিবসে কুচকাওয়াজ, শরীরচর্চা প্রদর্শনী এবং মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়[৫]
  • ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৩ তারিখে 'বাংলাদেশী আইডল' নামক একটি রিয়েলিটি টিভি শো'-এর সংগীত শিল্পীদের নিয়ে এই ভেন্যুতে কনসার্ট আয়োজন হয়েছে[৬]
  • ২০১৪ সালে স্টেডিয়ামটি 'পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় ফুটবল লীগ'-এর ভেন্যু হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে[৭][৮]
  • বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড আয়োজিত ২০১৯ সালের প্রাইম ব্যাংক ইয়াং টাইগার অনুর্ধ-১৪ ক্রিকেটের বান্দরবান অঞ্চলের খেলা এই ভেন্যুতে অনুষ্টিত হয়েছে।[৯]

ধারণ ক্ষমতা[সম্পাদনা]

বর্তমান ধারণ ক্ষমতা ১৫ হাজার। স্টেডিয়ামের নতুন রূপ দেওয়ার জন্য বরাদ্দ হয়েছে এক কোটি সাত লাখ টাকা। নির্মাণ করা হচ্ছে মাঠের পূর্ব অংশে নতুন আরো একটি গ্যালারি।[১০] নতুন গ্যালারিটি নির্মিত হলে মাঠের দর্শক ধারণক্ষমতা বেড়ে হবে ২৫ হাজার[১১]

অন্যান্য ব্যবহার[সম্পাদনা]

এই স্টেডিয়ামটি বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণের জন্য ব্যবহৃত হয়[১২]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "বান্দরবান স্টেডিয়াম নতুন রূপে"www.jugantor.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  2. "অবকাঠামো | অন্যান্য সকল"জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৪ 
  3. "বান্দরবান জেলা স্টেডিয়ামের নামকরণ হচ্ছে ইউ.কে.চিং বীর বিক্রমের নামে"ipnewsbd.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  4. "ইউকেচিং বীর বিক্রমের নামে বান্দরবান স্টেডিয়ামের নাম করণ করা হবে-বীর বাহাদুর এমপি"chtnews24.com/। ২০১৯-০৫-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  5. "বান্দরবানে কুচকাওয়াজ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী - ই-কন্ঠ২৪[ডট]কম"e-kantho24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  6. "শুক্রবার বান্দরবান মাতাবেন বাংলাদেশি আইডলরা"banglanews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  7. "পার্বত্য চট্টগ্রাম মন্ত্রণালয় ফুটবল লীগ শুরু"banglanews24.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  8. "NewsChittogram24.Com » পার্বত্য চট্টগ্রাম ফুটবললীগ সম্প্রীতি বান্দরবান দল চ্যাম্পিয়ন"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৯ 
  9. "স্কুল ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন পিরোজপুর সরকারী হাই স্কুল"Dhakatimes News। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১৪ 
  10. "বান্দরবান স্টেডিয়াম পরিদর্শনে পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী"parbatyachattagram.com। ২০১৫-০৫-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৭-১৭ 
  11. "ফুটবল লিগই হচ্ছে না বান্দরবানে"কালের কণ্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-১৩ 
  12. "হেলিকপ্টারে বান্দরবানে হেফাজতের আমির : - Poriborton"www.poriborton.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৪