বাটরা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার উওর-পশ্চিম সীমানায় এই গ্রামের অবস্থান। লোকবিশ্বাস মতে প্রাচীন কাল থেকে মধ্য যুগ পর্যন্ত রাজা-মহারাজা, ও শাসকশ্রেণিরা খাজনা বা ভ্যাট উত্তোলনের জন্য এই স্থানকেই বেছে নিয়ে ছিলেন। তখন এই স্থানকে ভাটারা নামে ডাকতেন।

এরপর ধীরে ধীরে আধুনিক কালে তা বাটরা নামে পরিচিতি লাভ করে। বর্তমানে এই গ্রাম শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসায় অনেক এগিয়ে রয়েছে। এ গ্রামে রয়েছে একটি বৃহৎ বাজার। প্রতিদিনই এখানে বাজার বসে। সব ধরনের পন্য সামগ্রি এখানে পাওয়া যায়। এটি "বাটরা বাজার" নামেই সর্বত্র পরিচিত। এই বাজার প্রতিষ্ঠায় স্বর্গীয় শ্রী হরলাল রায়, স্বর্গীয় শ্রী গনেশ চন্দ্র রায়, স্বর্গীয় শ্রী রাজেন্দ্র নাথ দত্ত, শ্রী নিলীন সরকার সহ আরো অনেকের ভূমিকা অপরিসীম। নারী শিক্ষায় এগিয়ে রয়েছে এ গ্রাম, প্রেমচাঁদ বালিকা বিদ্যালয় নামে রয়েছে একটি বালিকা বিদ্যালয়। এছাড়াও গ্রামের তরুন যুবকদের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা "বাটরা অশ্রুমোচন যুব সংঘ" এর উদ্যোগে একটি প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে একটি কমিউনিটি ক্লিনিক। গ্রামের মোট জনসংখ্যা এক হাজার পাঁচ শত প্রায়। গ্রামে বসবাসকরী সকল লোকজনই সনাতন ধর্মাবলম্বী হওয়ায় এখানে রয়েছে চারটি মন্দির। শ্রী শ্রী লক্ষ্মী পূজা ও শ্রী শ্রী লক্ষ্মী দশহরার জন্য বিখ্যাত এ গ্রাম। এখানকার জমি উর্বর হওয়ায় প্রচুর পরিমানে ফসল ফলে। এর মধ্যে ধান, পাট, মুগ ডাল, তিল উল্লখযোগ্য।

একনজরে বাটরা[সম্পাদনা]

  1. বৃহৎ বাজার
  2. একটি মাধ্যমিক(বালিকা) বিদ্যালয়
  3. একটি প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়
  4. চারটি মন্দির(রাধাগোবিন্দ, হরিচাঁদ ঠাকুরের, কালী মায়ের, শীতলা মায়ের)
  5. একটি কমিউনিটি ক্লিনিক

গুনীজন[সম্পাদনা]

  1. বাবু বিজয়কৃষ্ণ রায়(প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক, কোদালধোয়া মাঃ বিদ্যালয়
  2. স্বর্গীয় গণেশ চন্দ্র রায়(প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক, বাটরা পি.সি বালিকা মাঃ বিদ্যালয়
  3. স্বর্গীয় হরলাল রায়(সমাজ সেবক)
  4. স্বর্গীয় রাজেন্দ্রনাথ দত্ত(সমাজ সেবক)
  5. বাবু জগদীশচন্দ্র বালা(শিক্ষক)

বাড়ি গুলোর নাম[সম্পাদনা]

  1. রায় বাড়ি(শিকারী বাড়ি)
  2. হালদার বাড়ি
  3. দাস বাড়ি
  4. মজুমদার বাড়ি
  5. বাড়ৈ বাড়ি
  6. দত্ত বাড়ি(মাঝি বাড়ি)
  7. ফলিয়া বাড়ি (পাড়ের পাড়)
  8. সরকার বাড়ি
  9. তালুকদার বাড়ি(লেমু বাড়ি)
  10. শ্রী মাধব রায়(শীল) এর বাড়ি

মোট পরিবারের সংখ্যা[সম্পাদনা]

প্রায় ১৬০ টি পরিবার আছে এই গ্রামে

শিক্ষার হার[সম্পাদনা]

প্রায় ৮০%

আয়ের উৎস[সম্পাদনা]

কৃষি ভিত্তিক এলাকা হওয়ার, এখান ৫০ ভাগ মানুষ কৃষি কাজ করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলোঃ

  1. রবিশষ্য চাষ
  2. মাছ চাষ
  3. সবজি চাষ
  4. গবাদিপশু পালন

উৎসব[সম্পাদনা]

হিন্দু জনবহুল এই গ্রামে,হিন্দু ধর্মের জনগন ছাড়া অন্য ধর্মের লোক নেই। তাই, হিন্দুধর্মীয় শাস্ত্র অনুযায়ী সব ধরনের পুজা পার্বন হয়ে থাকে। তবে, দুর্গা পুজা এবং লক্ষ্মী পুজা বেশ ধুমধামে হয়।

  1. দুর্গা পুজা
  2. লক্ষ্মী পুজা
  3. স্বরসতী পুজা
  4. এছাড়াও তিন দিন ব্যাপী হরে কৃষ্ণ মহানাম যজ্ঞানুষ্টান হয়ে থাকে।