বাংলা পক্ষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

বাংলা পক্ষ ভারতের একটি বাঙালিপন্থী সংগঠন। এটি বাঙালি অধিকার, বাঙালি জাতীয়তাবাদ (বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের সাথে বিভ্রান্ত হবেন না)[১] এবং অহিন্দি-ভাষীদের উপর হিন্দি ভাষা চাপিয়ে দেওয়া তথা তাদের ভাষায় হিন্দি সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে কাজ করে থাকে। সংগঠনটি মূলত ভাষাগত ভিত্তিতে সংগঠিত হয় এবং তারা ভারতে বাঙালি সংস্কৃতিকে রক্ষা করার লক্ষ্যে পরিচালিত হয়।[২]

বাংলা পক্ষের প্রথম জাতীয় সংবাদ সম্মেলন

দাবি ও প্রতিবাদ[সম্পাদনা]

বাংলা পক্ষ প্রধানত পশ্চিমবঙ্গের অধিবাসীদের জন্য সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে ১০০% সংরক্ষণ[৩] এবং অন্যান্য চাকরি, শিক্ষা, সামরিক, প্রশাসনিক কাজের ক্ষেত্রে ৯০% সংরক্ষণের দাবি করে।[৪] দলটি পশ্চিমবঙ্গ ও ত্রিপুরার অনেক জায়গায় অসংখ্য সভা, সমাবেশ এবং র‌্যালি করেছে।[৩][৫]

বাংলা পক্ষ আবাসিক সংরক্ষণের দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে অসংখ্য ডেপুটেশন দিয়েছিল, যার ফলে শেষ পর্যন্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়[৬] এবং যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে আবাসিক সংরক্ষণ শুরু হয়েছিল।[৭]

বাংলা পক্ষ বিভিন্ন পরীক্ষা যেমন রেল, জেইই, এনইইটি[১] ইত্যাদি এবং ব্যাংক, অফিস এবং অন্যান্য সেক্টরে বাংলা ভাষার জন্যও দাবি করেছিল। দলটি প্রস্তাব করেছিল যে পশ্চিমবঙ্গের শীর্ষ প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অবশ্যই আইএএস বা আইপিএস ক্যাডার থেকে না এসে ডাব্লুবিসিএস / ডাব্লুবিপিএস ক্যাডার থেকে আসতে হবে।

প্রতিবাদ[সম্পাদনা]

ডব্লিউবিএসইডিসিএল-এ বাঙালি শ্রমিকদের ইংরেজি ও হিন্দিতে সাবলীলতা না থাকায় বহিষ্কার করা হলে বাংলা পক্ষ প্রতিবাদ করেছিল। বিক্ষোভের পরে, সংস্থাটি এই সিদ্ধান্ত বাতিল করে শ্রমিকদের স্ব-স্ব পদে বহাল করে।[৮][৯]

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম জি৫-এ (Zee5) মুক্তিপ্রাপ্ত ওয়েব সিরিজ 'অভয়'-এর দ্বিতীয় সিজনে বাংলার তরুণ স্বাধীনতা সংগ্রামী ক্ষুদিরাম বসুকে তার দ্বিতীয় পর্বে 'অপরাধী' হিসেবে দেখানো হলে ভারতে ব্যাপক বিতর্ক শুরু হয়। বাংলা পক্ষ সহ অনেক জাতীয়তাবাদী সংগঠন প্রতিবাদ করে এবং শো-টি নিষিদ্ধ করার দাবি জানায়।[১০] সেই দৃশ্য সরাতে আইনি নোটিস পাঠায় দলটি।[১১] এর পরে জি৫ ক্ষুদিরামের ছবিটি কেটে শো-টি সম্পাদনা করে পুনরায় প্রকাশ করে।[১২]

এই দলটি সিএএ, এনআরসির বিরোধিতা করেছিল, যা কেন্দ্রীয় সরকার বাংলায় বাস্তবায়নের পরিকল্পনা করেছিল। বাংলা পক্ষ বলেন, হিন্দু-মুসলমানের ঐক্য ভাঙার জন্য বিজেপি বেআইনিভাবে সংসদে আইন পাশ করিয়েছে।[১৩]

এই দলটি গোর্খাল্যান্ড গঠনের ধারণার বিরুদ্ধেও প্রতিবাদ করে। তারা সুব্রহ্মণ্যম স্বামীর একটি মূর্তি ছুঁড়ে ফেলেছিল। কারণ, তিনি পশ্চিমবঙ্গ থেক গোর্খাল্যান্ড নামে একটি পৃথক রাজ্য গঠনের প্রস্তাব করেছিলেন। [১৪]

কাঞ্চনপুর নাগরিক সুরক্ষা মঞ্চের সাথে বাংলা পক্ষ ত্রিপুরায় একটি বড় প্রতিবাদে মিলিত হয়েছিল। তাতে ত্রিপুরায় ৩০,০০০ এরও বেশি বাঙালি জড়ো হয়েছিল। তারা ত্রিপুরা রাজ্যের বিজেপি সরকার কর্তৃক বাঙালিদের প্রতি সামাজিক বৈষম্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল। [১৫]

সমর্থন এবং সমালোচনা[সম্পাদনা]

২০১৯ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত বাংলা পক্ষ দাবি করেছে তাদের দুই থেকে তিন লক্ষেরও বেশি সমর্থক রয়েছে। তাদের এই সংগঠনে সিপিআই (এম), কংগ্রেসতৃণমূল কংগ্রেসের মতো বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সদস্য রয়েছে।[১] দলটি বলছে যে এটি বিজেপির বিরুদ্ধে নয়, বরং হিন্দি সাম্রাজ্যবাদী এবং বিজেপির বাঙালি-বিরোধী চরিত্রের বিরুদ্ধে সমর্থন করে। সম্ভবত বিজেপি সমর্থকদের মধ্যেও অনেক বাংলা পক্ষ সমর্থক রয়েছে।

বঙ্গ বিজেপির সাবেক সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছেন যে বাংলায় আঞ্চলিকতাকে উস্কে দেওয়ার জন্য বাংলা পক্ষকে টিএমসির স্বার্থে পরিবেশন করা হচ্ছে এবং ব্যবহার করা হচ্ছে। সিপিআই(এম) পলিটব্যুরোর সদস্য মোঃ সেলিমও সমালোচনা করেছেন যে বাংলা পক্ষ টিএমসি এবং বিজেপি উভয়ের সাথেই ছিল। অভিযোগ অস্বীকার করে সংস্থার প্রধান গর্গ চ্যাটার্জি এই বিষয়গুলিকে "পুরোপুরি ভিত্তিহীন" বলেছেন। [১৬]

সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা (ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ ধারা) এবং জাতীয় সংহতির (১৫৩বি আইপিসি) বিরুদ্ধে দাবি করার অভিযোগে উত্তর কলকাতায় এই দলের সক্রিয় কর্মী শুভজিৎ ঘোষকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তাকে ২৭ এপ্রিল পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।[১৭]

রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং সেন্টার ফর স্টাডিজ ইন সোশ্যাল সায়েন্সের ফ্যাকাল্টি মেম্বার মাইদুল ইসলাম এটিকে বামপন্থী এবং এর শ্রেণি রাজনীতির পতনের পর দেশবাদী রাজনীতির উত্থান বলে অভিহিত করেছেন। [১৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bangla Pokkho: the outfit fighting for the rights of Bengalis"www.telegraphindia.com 
  2. "Bangla Pokkho"www.banglapokkho.com 
  3. "'Bangla Pokkho' seeks job, education reservation ahead of Bengal polls - The New Indian Express"www.newindianexpress.com 
  4. "'Bangla Pokkho' seeks job, education reservation for Bengalis in Bengal - Times of India"The Times of India 
  5. https://bengali.indianexpress.com/politics/bangla-pokkho-meeting-in-kolkata-for-demand-protection-of-bengal-son-of-the-soil-bhumiputra-277439/lite/&ved=2ahUKEwiL3subw_PuAhWaWX0KHYxwCqUQFjAEegQICBAL&usg=AOvVaw0CeFqxUG6u9rp81YZFz3Sa&ampcf=1[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "Calcutta University sets domicile term for tech entry"www.telegraphindia.com 
  7. https://m.timesofindia.com/city/kolkata/ju-to-start-domicile-reservation-this-year/amp_articleshow/69882203.cms&ved=2ahUKEwi72NTO-tbuAhXyzzgGHbVzBugQFjAOegQIGBAC&usg=AOvVaw3_V7u-8t8JO9cINwiTMt0s&cshid=1612673164173[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  8. Chakraborty, Ritika (অক্টোবর ১৭, ২০২০)। "ইংরেজি না বলার অপরাধে আয়কর দফতর থেকে ছাঁটাই পাঁচ কর্মী, প্রতিবাদ বাংলা পক্ষের"। অক্টোবর ২৫, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২২ 
  9. Chakraborty, Ritika (জুন ৩০, ২০২০)। "'বাঙালিকে চাকরিতে নেবে না', প্রতিবাদ জানিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের বাংলা পক্ষের" [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  10. "অপরাধীদের মাঝে ক্ষুদিরামের ছবি! চাপে নিঃশর্ত ক্ষমা Zee5-এর, বিক্ষোভ বাংলা পক্ষের"Ei Samay 
  11. "'Abhay 2' makers get legal notice after row over Khudiram Bose's image"The Federal। আগস্ট ১৭, ২০২০। 
  12. Deep, Aroon (আগস্ট ১৯, ২০২০)। "Zee5 edits freedom fighter out of TV show after appearance on wanted board causes outrage" 
  13. Singha, Biswajit Roy and Aritra (ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯)। "BJP is the most undemocratic party and the Bengalis are ready to fight back"eNewsroom India 
  14. "সুব্রামানিয়াম স্বামীর কুশপুতুল পুড়িয়ে প্রতিবাদ, বাংলা ভাগের বিরুদ্ধে পথে নামল 'বাংলাপক্ষ' | Bangla pokkho protest against Subramaniyam Swamy on Gorkhaland remarks"bangla.asianetnews.com 
  15. "ত্রিপুরায় আমন্ত্রিত বাংলা পক্ষ, জনসভায় ভিড় ৩০,০০০ বাঙালির"www.aajkaal.in/ 
  16. "Bengali-non-Bengali divide arising in West Bengal?"Deccan Herald। নভেম্বর ৬, ২০১৯।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "auto2" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  17. "COVID-19 row: Bengali nationalist group's activist arrested"। এপ্রিল ২৪, ২০২০ – www.thehindu.com-এর মাধ্যমে। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]