বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব
Bangladesh Police Football Club
বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব.png
পূর্ণ নামবাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব
ডাকনামবিপিএফসি
প্রতিষ্ঠিত১৯৭২
মাঠবীর শ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম(২০১৯ পর্যন্ত)
বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম২০১৯-বর্তমান
ধারণক্ষমতা৩৬০০০
সভাপতিবাংলাদেশ বেনজীর আহমেদ
ম্যানেজারসাইপ্রাস নিকোলাস ভিটরোভিচ
লীগবাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ
ওয়েবসাইটক্লাব ওয়েবসাইট

বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাব (বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিক ক্লাব নামেও পরিচিত)[১] ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের একটি পেশাদার ফুটবল দল।[২] ক্লাবটি ঢাকায় অবস্থিত ও বাংলাদেশ পুলিশের অর্থায়ন ও মালিকানায় পরিচালিত। দলটি ১৯৯৮ সালে সিনিয়র ডিভিশন ফুটবল লীগে খেলে। ২০১৩ সালে দ্বিতীয় বিভাগের চ্যাম্পিয়ন হয়।[৩] ২০১৫ সালে ক্লাবটির পেশাদার ফুটবল ক্লাব হিসেবে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগে অভিষেক হয়। ২০১৮-১৯ মৌসুমে দলটি বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগের শিরোপা জিতে প্রথমবারের মত বাংলাদেশের পেশাদার ফুটবল লীগের সর্বোচ্চ স্তর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে উন্নীত হয়। ২০১৯-২০ মৌসুম হতে দলটি প্রিমিয়ার লীগে খেলছে।

পেশাদার লীগ ইতিহাস[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ (২০১৫-২০১৯)[সম্পাদনা]

মৌসুম লীগ টেবিলের অবস্থান মন্তব্য
২০১৫-২০১৬ ৪/৮ ১৪ অক্টোবর, ২০১৫ তারিখে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লীগ (বিসিএল) খেলতে নিবন্ধন করে। এই মৌসুমে দলটি 'বাংলাদেশ পুলিশ অ্যাথলেটিক ক্লাব' নামে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।[১][৪]
২০১৬ ৪/৮ দ্বিতীয় বারের মত বিসিএল-এ চতুর্থ স্থান অর্জন।
২০১৭ ৭/১০ বিসিএল-এ দলটির সবচেয়ে বাজে অবস্থান।
২০১৮-১৯ ১/১১(শিরোপা) ২০১৮-১৯ মৌসুমে দলটি বিসিএল খেলেছে।[১] তিনটি ম্যাচ হাতে রেখেই বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ থেকে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে উন্নীত হয়ে।[৫][৬] ২০০২ সালের [৭][৮] পরে ক্লাবটি শীর্ষ স্তরের লীগে ফিরে আসছে। ক্লাবটি এই মৌসুমে শিরোপা জিতেছে।[৯][১০]

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ(২০২০- বর্তমান)[সম্পাদনা]

নিকোলাস ভিটরোভিচ যুগ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের ২০১৯-২০২০ আসরে খেলার জন্য দলটি সাইপ্রাসের ফুটবল কোচ নিকোলাস ভিটরোভিচকে নিয়োগ দেয়।[১১] ভিটরোভিচের অধীনে দলটি ২০১৯-২০ মৌসুমের ফেডারেশন কাপ ফুটবল প্রতিযোগিতায় সেমি ফাইনালে পৌঁছায় যা দলটির ইতিহাসে ফেডারেশন কাপে সর্বোচ্চ ফল।[১২]

স্বাগতিক মাঠ[সম্পাদনা]

দলটি অনুশীলনের জন্য তাদের বিভিন্ন পুলিশ লাইনের মাঠ ব্যবহার করে থাকে। তবে বাংলাদেশের অধিকাংশ পেশাদার দলের মতই তাদের নিজস্ব স্টেডিয়াম নেই। প্রিমিয়ার লীগে উত্তরণের পর দলটি বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামকে তাদের স্বাগতিক ভেন্যু হিসেবে বেছে নিয়েছে।[১৩]

পৃষ্ঠপোষক[সম্পাদনা]

কিট এবং শার্ট স্পনসরগুলির রেকর্ড নিম্নরূপঃ

কাল কিট প্রস্তুতকারক শার্ট স্পনসর
২০১৫-১৬ - পপুলার লাইফ বিমা লিমিটেড [১][১৪][১৫]
২০১৭-১৮ - রানার গ্রুপ [১৬]
২০১৮-২০১৯ - নির্মাণ
২০১৯-বর্তমান - নাসির গ্রুপ ও সুজুকি

বর্তমান দল[সম্পাদনা]

০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।

নোট: পতাকা জাতীয় দল নির্দেশ করে যা ফিফা যোগ্যতা নিয়মের অধীনে নির্ধারিত হয়েছে। খেলোয়াড়দের একাধিক জাতীয়তা থাকতে পারে যা ফিফা ভুক্ত নয়।

নং অবস্থান খেলোয়াড়
গো বাংলাদেশ আরিফুজ্জামান হিমেল
বাংলাদেশ আরিফ খান জয়
বাংলাদেশ আজমি উমার
বাংলাদেশ খান মোহাম্মদ তারা
বাংলাদেশ মাহমুদ আলম শামিম
বাংলাদেশ নাজমুল ইসলাম রাসেল (Captain)
বাংলাদেশ নাইমুর রহমান শহিদ
বাংলাদেশ আলি হোসেন
মন্টিনিগ্রো লুকা রটকোভিচ
১০ বুলগেরিয়া এন্টনিও লাসকভ
১১ পুয়ের্তো রিকো সিডনি রিভেরা
১২ বাংলাদেশ রবিউল ইসলাম
১৩ বাংলাদেশ শাহরিয়ার বাপ্পি
১৪ বাংলাদেশ মোস্তাকিম শাহরিয়ার শায়েখ
১৫ বাংলাদেশ জয়ন্ত কুমার দে
১৬ বাংলাদেশ সঞ্জয় করিম
১৭ বাংলাদেশ ইসা ফায়সাল
১৮ কিরগিজিস্তান আরতুর মুলাডজানভ
নং অবস্থান খেলোয়াড়
১৯ বাংলাদেশ মোহাম্মদ জুয়েল
২০ বাংলাদেশ এস এম বাবলু
২১ বাংলাদেশ মহিদুল ইসলাম
২২ বাংলাদেশ মোহাম্মদ শাহিন
২৩ বাংলাদেশ কমল বড়ুয়া
২৪ বাংলাদেশ ফয়সাল আহমেদ
২৫ বাংলাদেশ জালাল মিয়া
২৬ বাংলাদেশ শামিম আহমেদ
২৭ বাংলাদেশ আমিরুল ইসলাম
২৮ বাংলাদেশ মহাম্মদ আল আমিন
২৯ বাংলাদেশ মোহাম্মদ রুবেল জুনিয়র
৩০ গো বাংলাদেশ দিনাজ হোসেন জুবেদ
৩১ বাংলাদেশ জমির উদ্দিন
৪০ গো বাংলাদেশ মোমাম্মদ ফায়সল
৬০ গো বাংলাদেশ সাইফুল ইসলাম খান
৬৭ কিরগিজিস্তান আইডার মামবেটালিয়েভ
৯৯ বাংলাদেশ জোসেফ নুর রহমান

বর্তমান প্রশিক্ষক বৃন্দ[সম্পাদনা]

ফেব্রুয়ারি ২০২০ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
Position Name
প্রধান প্রশিক্ষক সাইপ্রাস নিকোলাস ভিটরোভিচ
সহকারী প্রশিক্ষক বাংলাদেশ মাহাবুবুল হক জুয়েল

বাংলাদেশ শামিম আল মামুন

গোল কিপিং প্রশিক্ষক বাংলাদেশ শাহ আলম টুটুল
শারীরিক শিক্ষা প্রশিক্ষক বাংলাদেশ আশরাফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ শেখ মারুফ হাসান

জয়ের রেকর্ড[সম্পাদনা]

প্রধান প্রশিক্ষকের অধীনে[সম্পাদনা]

১৮ মার্চ ২০২০ পর্যন্ত হালনাগাদকৃত।
প্রধান প্রশিক্ষক জাতীয়তা সময় হতে সময় পর্যন্ত ড্র গোল প গোল বি %
মোহাম্মদ আসিফুজ্জামান বাংলাদেশ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ মে ২০১৯ ২০ ১১ ৩১ ১৩ ৫৫.০০
নিকোলাস ভিটরোভিচ সাইপ্রাস ৪ আগস্ট ২০১৯[১৭] বর্তমান ১০ ১৪ ৩৭.৫০

– মোট ম্যাচের সংখ্যা – জয়ের সংখ্যা ড্র – ড্রয়ের সংখ্যা – হারের সংখ্যা গোল প – গোলের সংখ্যা গোল বি – বিপক্ষে গোলের সংখ্যা
% – জয়ের শতকরা হার

অর্জন[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ পুলিশ ক্লাবের অর্জন সমূহ নিম্নরূপ-

ধরন প্রতিযোগিতা শিরোপা মৌসুম
ঘরোয়া দ্বিতীয় বিভাগ ফুটবল লীগ ২০১৩-১৪
বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশীপ লীগ ২০১৮-১৯

বিতর্কিত ঘটনা[সম্পাদনা]

২৪ মে ২০১৯ তারিখে, ফেনী সকার ক্লাবের সাথে খেলার সময় জোরপূর্বক মাঠে প্রবেশ করে একজন পুলিশ কনস্টেবল বাফুফের ম্যানেজার জাবের বিন আনসারীর সঙ্গে হাতাহাতি করে[১৮]। পরে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর, পুলিশ এফসি'র আরো চারজন খেলোয়াড় ঐ পুলিশ কনস্টেবলের সাথে মারামারিতে যোগ দেন। বাফুফে এই চারজন খেলোয়াড়কে নিষিদ্ধ করে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ডিত করে। বাফুফে পুলিশ এফসিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করে এবং ঐ পুলিশ কনস্টেবলকে দেশব্যাপী বাফুফে পরিচালিত খেলার সময় স্টেডিয়ামে প্রবেশে নিষিদ্ধ করা হয়।[১৯][২০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Popular boost for Police AC"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-১১-২৬। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০২-১১ 
  2. "Bangladesh Police Football Club"www.bdpolicefc.club। ২০১৯-১২-৩০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-৩০ 
  3. "Police take Championship League crown"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৫-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৭ 
  4. "পেশাদার ফুটবল লীগে পুলিশ"দৈনিক যুগান্তর। ২০১৫-১০-১৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 
  5. "Police FC promoted to BPL"ঢাকা ট্রিবিউন। ২০১৯-০৫-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-১৮ 
  6. প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে জায়গা করে নিল পুলিশ ফুটবল ক্লাব | Jamuna TV 
  7. "আবারও ফুটবলের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পুলিশ"প্রথম আলো। ২০১৯-০৫-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-১৩ 
  8. "Police secure BPL promotion"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৫-১৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-১৬ 
  9. "Bangladesh Police lift BCL trophy, Uttar Baridhara runners up"BFF (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৫-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৬ 
  10. "BCL Football league final: Police FC beat Feni Soccer Club by 5-1 goals"দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট (বাংলাদেশ)। ২০১৯-০৫-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৭ 
  11. "সাইপ্রাসের ফুটবল কোচ নিয়োগ দিয়েছে পুলিশ"প্রথম আলো। ২০১৯-০৮-০৪। ২০১৯-০৮-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-০৫ 
  12. "Police reach Fed Cup semis for first time"ঢাকা ট্রিবিউন। ২০১৯-১২-৩১। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-৩০ 
  13. "রীতি ধরে রেখে পেছাল ফুটবল লিগ, থাকছে নতুন নিয়ম"জাগো নিউজ। ২০২০-০১-২৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-০৫ 
  14. "Popular Life Insurance sponsors Bangladesh Police Football Team"ডেইলি সান (ঢাকা) (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-১১-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৭ 
  15. "পুলিশ ফুটবল দল স্পন্সর পেল"দৈনিক যুগান্তর। ২০১৫-১১-২৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-০৯ 
  16. "বাংলাদেশ পুলিশ ফুটবল ক্লাবের স্পন্সর রানার গ্রুপ"ডিএমপি নিউজ। ২০১৭-০৬-০১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-০৯ 
  17. "সাইপ্রাসের ফুটবল কোচ নিয়োগ দিয়েছে পুলিশ"prothomalo.com। ২০১৯-০৮-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৯ 
  18. "পুলিশ দলকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা"প্রথম আলো। ২০১৯-০৫-২৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২০ 
  19. "BFF fines Police; bans four players"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৫-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-২৭ 
  20. "Police FC penalized for breaching code of conduct"BFF (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৯-০৫-৩০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৫-৩০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  1. প্রাতিষ্ঠানিক তথ্য বাতায়ন
  2. মাইকুজুতে বাংলাদেশ পুলিশ এফসি