বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন
সভাপতিমশিউর রহমান খান রিচার্ড
প্রতিষ্ঠা১০ জানুয়ারি ১৯৮৫
ভাবাদর্শসাম্যবাদ
বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের দেয়াল লিখন

বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন বাংলাদেশের একটি ছাত্র সংগঠন যা ১৯৮৫ সালের ১০ই জানুয়ারি গঠিত হয়।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মূলত এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের মধ্যদিয়ে ছাত্র সংগঠনটির আবির্ভাব ঘটে। সংগঠনটির তৎকালীন সভাপতি ফয়জুল হাকিম স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম একজন নেতৃত্ব ছিলেন। দলটি স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন, গোলাম আজমের বিচারের দাবীতে গড়ে ওঠা ৯২'এর আন্দোলন, জাহাঙ্গীরনগর ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের 'ধর্ষণ বিরোধী আন্দোলন', ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামসুননাহার হলে পুলিশী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্দোলন, ওসমানী উদ্যানের গাছ রক্ষা আন্দোলন, ফুলবাড়ির 'কয়লা খনি' আন্দোলন, টিপাইমুখ বাধ বিরোধী আন্দোলন, ২০-২২ আগষ্টের ছাত্র আন্দোলন, রামপাল তাপবিদ্যুত কেন্দ্র বাতিলের আন্দোলন, 'টিকফা' চুক্তির বিরুদ্ধে আন্দোলনসহ বিভিন্ন আন্দোলনে অংশ নেয়।[২]

২০২২ সালের ৩০ ও ৩১ মার্চ ১৩ তম কেন্দ্রীয় কাউন্সিলের মাধ্যমে মশিউর রহমান খান রিচার্ডকে সভাপতি, সাদিক রেজাকে সহ-সভাপতি ও সৈকত আরিফকে সাধারণ সম্পাদক, ইলিয়াস জামান ও ফাতেমা রহমান বিথীিকে সহ-সাধারণ সম্পাদক করে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের ২৩ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি গঠিত হয়।[৩]


সংগঠনটির মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে 'শিক্ষা, সাম্য, সংগ্রাম, প্রগতির'। বাংলাদেশে মাতৃভাষায় এক ধারায় বিজ্ঞানভিত্তিক শিক্ষা ব্যাবস্থার দাবি জানিয়ে আসছে ছাত্র ফেডারেশন। জাতীয় পুনর্গঠনের লক্ষ্যে গণতান্ত্রিক শিক্ষাব্যবস্থা এবং সবার জন্য ঘুষ-তদবির ও দুর্নীতিমুক্ত চাকরির দাবিতে ঐক্যবদ্ধ হওয়া ও ফ্যাসিবাদের পতনের লক্ষ্যে দুর্বার ছাত্র আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বানে ৩০ ও ৩১ মার্চ ২০২২, দুই দিনব্যাপী ছাত্র ফেডারেশনের ১৩তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]