বাংলাদেশ-জর্ডান সম্পর্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Bangladesh-Jordan সম্পর্ক
মানচিত্র Bangladesh এবং Jordan অবস্থান নির্দেশ করছে

বাংলাদেশ

জর্দান

বাংলাদেশ-জর্ডান সম্পর্ক বাংলাদেশজর্ডানের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিক হেনরি কিসিঞ্জার ১৯৭১ সালে জর্দানের রাজা হুসেন বিন তালালকে চিঠি পাঠিয়েছিলেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকে উত্সাহিত করেছিলেন । রাষ্ট্রপতি নিকসন জর্দানকে পাকিস্তানে সামরিক সরবরাহ প্রেরণে উত্সাহিত করেছিলেন। [১] :৬১ নিক্সনের অনুমতি নিয়ে জর্দান দশটি এফ -104 বিমান পাঠিয়েছিল এবং তাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রতিস্থাপনের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও পশ্চিম পাকিস্তানে সামরিক সরবরাহ প্রেরণ করে এবং তাদের জর্ডানের মধ্য দিয়ে চালিত করেছিল। [২] জর্ডানের বিমানের ছয়টি বিমান ফিরতে ব্যর্থ হয়েছিল। [৩]

কৃষি বিষয়ক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

২০১১ সালে, বাংলাদেশ ও জর্ডান কৃষি সহযোগিতা সম্পর্কিত একটি সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেছে। সমঝোতা স্মারক অনুসারে, দু'দেশ "বৈজ্ঞানিক উপকরণ এবং তথ্য এবং কৃষি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, ক্ষেত্র পর্যায়ের সম্প্রসারণ, কৃষি উত্পাদন এবং কৃষি প্রক্রিয়াকরণ ক্ষেত্রে বিজ্ঞানী ও প্রকৌশলীদের পরিদর্শন বিনিময় করবে।" এই সমঝোতা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশ ও জর্ডান এই খাতে সহযোগিতা সহজ করার জন্য উভয় দেশের বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের পরিকল্পনা করেছে।

অর্থনৈতিক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

বাংলাদেশ ও জর্ডান বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্প্রসারণে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। জর্দান অন্যতম বৃহত্তম বাংলাদেশী শ্রম রফতানির বাজার। [৪] ২০১১ সালে জর্দান বাংলাদেশ থেকে শ্রম আমদানির উপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছিল কিন্তু মহিলা শ্রমিকদের যৌন নির্যাতন ও শ্রমিক ধর্মঘটের কয়েকটি মামলার ফলশ্রুতিতে নিয়োগ প্রক্রিয়াটি আরও কড়া করে দেয়। [৫] ২০১২ সালে, বাংলাদেশ ও জর্দান মাইগ্রেশন পর্যবেক্ষণ, অভিবাসীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং অভিবাসন ব্যয় হ্রাস করার জন্য একটি সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর করেছে। [৬] একই বছরে বাংলাদেশ ও জর্ডান বাণিজ্যে সহযোগিতা বাড়ানোর জন্য একটি খসড়া চুক্তি তৈরি করেছে। চুক্তি অনুসারে, দুটি দেশ একে অপরকে "মোস্ট ফেভারড নেশন" মর্যাদা দেবে এবং একটি যৌথ বাণিজ্য কমিটি গঠন করবে। [৭]

জর্ডানে বাংলাদেশি শ্রমজীবী[সম্পাদনা]

২০১১ সালের হিসাবে, জর্ডানে প্রায় ৩০,০০০ বাংলাদেশী বাস করলেন, বেশিরভাগ প্রবাসী সোবমূলক শিল্পে কাজ করেন। [৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Alvandi, Roham (নভেম্বর ২০১৬)। Nixon, Kissinger, and the Shah: The United States and Iran in the Cold War (ইংরেজি ভাষায়)। Oxford University Press। আইএসবিএন 9780190610685। সংগ্রহের তারিখ ২৭ ডিসেম্বর ২০১৬ 
  2. Shalom, Stephen R., The Men Behind Yahya in the Indo-Pak War of 1971
  3. Leonard, Thomas M. (২০০৬)। Encyclopedia of the Developing World। Taylor & Francis। পৃষ্ঠা 806। আইএসবিএন 978-0-415-97664-0 
  4. "Jordan to recruit Bangladeshi female domestic helps"। The Financial Express। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৪ 
  5. "Jordan jobs made tough"। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৪ 
  6. "Bangladesh, Jordan sign MoU"। Daily Sun। ২৬ এপ্রিল ২০১২। 
  7. "BD, Jordan to sign trade deal soon"। The Financial Express। সংগ্রহের তারিখ ২২ জুন ২০১৪