বাংলাদেশে সমাজতন্ত্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
National emblem of Bangladesh.svg
 এই নিবন্ধটি বাংলাদেশের রাজনীতি ও সরকার
ধারাবাহিকের অংশ

বাংলাদেশের সংবিধান অনুসারে চারটি প্রধান গাঠনিক নীতির মাঝে অন্যতম একটি হল সমাজতন্ত্র[১][২] অন্যান্য সমাজতান্ত্রিক দেশে সকল ধরনের উৎপাদন সরকার কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত হয়, সেই হিসেবে বাংলাদেশের সমাজতন্ত্র ভিন্ন। সংবিধানে  মুক্ত সমাজের ধারণায় সমাজতন্ত্রকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।[৩][৪] সংবিধানে রাষ্ট্রের সাথে ব্যক্তি মালিকানায় সম্পদের মালিকানা ও সহযোগিতাকে সমর্থন করে।[৫][৬]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নয়নে সরকার কর্তৃক কিছু সমাজতান্ত্রিক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল।  সমাজতান্ত্রিক  জাতি গঠনের উদ্দেশ্যে অনেক বড় , মধ্যম আকারের এবং সরকারি প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করা হয়েছিল।[৭][৮] ১৯৭২ সালের ২৬শে মার্চ বিদেশী ব্যাংক ব্যতিরকে সকল ব্যাংকের জাতীয়করণ করা হয়।[৯] শুধুমাত্র কিছু ছোট ও কুটিরশিল্প প্রতিষ্ঠান এই জাতীয়করন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যায়নি।

সরকারি ক্ষেত্র খুব দ্রুত  প্রসারিত হলেও জিডিপিতে এসব প্রতিষ্ঠানের অবদান খুব উল্লেখযোগ্য ছিল না।[১০] দেশের অর্থনীতির ৮০ শতাংশ যে কৃষিক্ষেত্রের উপর নির্ভরশীল, সেই কৃষিক্ষেত্রের সরকারীকরন না করায় এমনটা হয়েছিল।[১১]

১৯৭৫ সালের ২৫শে জানুয়ারি শেখ মুজিবুর রহমান একদলীয় সমাজতান্ত্রিক দল, বাংলাদেশ কৃষক শ্রমিক আওয়ামী লীগ (বাকশাল) এর ঘোষণা দেন। বাকশাল সংবিধানের চতুর্থ সংশোধনী অনুসারে গঠিত হয়।[১২] রাষ্ট্রপতির নির্দেশ মোতাবেক, অন্য সমস্ত রাজনৈতিক দলকে নিষিদ্ধ করা হয়।[১৩] বাংলাদেশের দ্বিতীয় বিপ্লব তত্ত্ব মোতাবেক এই দলটির মাধ্যমেই রাষ্ট্রের সমাজতন্ত্র গঠনের সূচনা হয়।[১৪] বাকশাল মূলতঃ দ্বিতীয় বিপ্লবের লক্ষ্য পূরণে একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণের দল ছিল।[১৫] ১৯৭৫ সালের শেখ মুজিবের হত্যাকান্ডের মধ্য দিয়ে বাকশালের নিষ্পত্তি ঘটে।[১৬]

জিয়াউর রহমানের সামরিক শাসনামলে (১৯৭৫-১৯৮১) এবং হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ (১৯৮২-১৯৯০) সমাজতান্ত্রিক নীতি ও এ সম্পর্কিত আলোচনাকে বর্জন করা হয়। রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানসমূহকে বাতিল করা হয়। ব্যবসা-বাণিজ্যে স্বাধীনতা এবং রপ্তানিতে উৎসাহ প্রদান করা হয়। এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে স্বাধীন অর্থনীতির কর্ণধার হয়ে উঠে।[১৭]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. THE CONSTITUTION। "8.Fundamental principles"bdlaws.minlaw.gov.bd। PEOPLE’S REPUBLIC OF BANGLADESH। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৭ 
  2. Mercan, Muhammed Hüseyin (৮ মার্চ ২০১৬)। Transformation of the Muslim World in the 21st Century (ইংরেজি ভাষায়)। Cambridge Scholars Publishing। পৃষ্ঠা 157। আইএসবিএন 9781443890007 
  3. "10. Socialism and freedom from exploitation"bdlaws.minlaw.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৭ 
  4. Phillips, Douglas A.; Gritzner, Charles F. (১ জানুয়ারি ২০০৭)। Bangladesh (ইংরেজি ভাষায়)। Infobase Publishing। পৃষ্ঠা 65। আইএসবিএন 9781438104850 
  5. Afzalur Rashid, Sudhir C. Lodh, (১ জানুয়ারি ২০০৮)। "The influence of ownership structures and board practices on corporate social disclosures in Bangladesh"Corporate Governance in Less Developed and Emerging Economies। Emerald Group Publishing Limited। 8: 211–237। doi:10.1016/s1479-3563(08)08008-0। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৭ CS1 maint: Multiple names: authors list (link)
  6. International Monetary Fund (২৫ জুন ২০০৩)। Bangladesh: Report on Observance of Standards and Codes-Fiscal Transparency (ইংরেজি ভাষায়)। International Monetary Fund। পৃষ্ঠা 8। আইএসবিএন 9781451877182 
  7. Alam, S. M. Shamsul (২৯ এপ্রিল ২০১৬)। Governmentality and Counter-Hegemony in Bangladesh (ইংরেজি ভাষায়)। Springer। আইএসবিএন 9781137526038 
  8. Ahamed, Emajuddin (১ জানুয়ারি ১৯৭৮)। "Development Strategy in Bangladesh: Probable Political Consequences"Asian Survey। University of California Press। 18 (11): 1168–1180। doi:10.2307/2643299 
  9. Schottli, Jivanta; Mitra, Subrata K.; Wolf, Siegried (৮ মে ২০১৫)। A Political and Economic Dictionary of South Asia (ইংরেজি ভাষায়)। Routledge। পৃষ্ঠা 4। আইএসবিএন 9781135355760 
  10. Hossain, Naomi (২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭)। The Aid Lab: Understanding Bangladesh's Unexpected Success (ইংরেজি ভাষায়)। Oxford University Press। পৃষ্ঠা 40। আইএসবিএন 9780198785507 
  11. Planning Commission (নভেম্বর ১৯৭৩)। The First Five Year Plan (1973-78)। Dacca: Government of the People's Republic of Bangladesh। পৃষ্ঠা 48–49। ২৪ মার্চ ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৮ 
  12. Ahmed, Moudud (২০১৫)। Bangladesh: Era of Sheikh Mujibur Rahman। University Press Limited। পৃষ্ঠা 284। আইএসবিএন 978-984-506-226-8 
  13. Mitra, Subrata Kumar; Enskat, Mike; Spiess, Clemens (১ জানুয়ারি ২০০৪)। Political Parties in South Asia (ইংরেজি ভাষায়)। Greenwood Publishing Group। পৃষ্ঠা 226। আইএসবিএন 9780275968328 
  14. Mitra, Subrata Kumar; Enskat, Mike; Spiess, Clemens (১ জানুয়ারি ২০০৪)। Political Parties in South Asia (ইংরেজি ভাষায়)। Greenwood Publishing Group। পৃষ্ঠা 225। আইএসবিএন 9780275968328 
  15. "BANGLADESH: The Second Revolution"Time। ১০ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৫। আইএসএসএন 0040-781X। সংগ্রহের তারিখ ১ মে ২০১৭ 
  16. Syed, M. H. (১ জানুয়ারি ২০০২)। Encyclopaedia of Saarc Nations (ইংরেজি ভাষায়)। Gyan Publishing House। পৃষ্ঠা 57। আইএসবিএন 9788178351254 
  17. Riaz, Ali; Fair, Christine, সম্পাদকগণ (২০১০)। "Political Culture in Contemporary Bangladesh"। Political Islam and Governance in Bangladesh (ইংরেজি ভাষায়)। Oxford: Routledge। পৃষ্ঠা 34। আইএসবিএন 978-113692-623-5