বাংলাদেশের দূতাবাস, ওয়াশিংটন, ডি.সি.

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাস
BangladeshiEmbassyWashingtonDC.jpg
স্থানাঙ্ক৩৮°৫৬′৩০″ উত্তর ৭৭°৪′৪″ পশ্চিম / ৩৮.৯৪১৬৭° উত্তর ৭৭.০৬৭৭৮° পশ্চিম / 38.94167; -77.06778স্থানাঙ্ক: ৩৮°৫৬′৩০″ উত্তর ৭৭°৪′৪″ পশ্চিম / ৩৮.৯৪১৬৭° উত্তর ৭৭.০৬৭৭৮° পশ্চিম / 38.94167; -77.06778
অবস্থানওয়াশিংটন, ডি.সি.
ঠিকানা৩৫১০ ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভ, উত্তরপশ্চিম
রাষ্ট্রদূতমোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন
ওয়েবসাইটwww.bdembassyusa.org

ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে অবস্থিত বাংলাদেশের দূতাবাস হচ্ছে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের একটি কূটনৈতিক মিশন যা যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত। এটি ক্লেভারল্যান্ড পার্কের পার্শ্ববর্তী ৩৫১০ ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভ, উত্তরপশ্চিম, ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে অবস্থিত।[১] এই দূতাবাসতটি নিউ ইয়র্ক সিটি,[২] এবং লস অ্যাঞ্জেলেসের কনস্যুলেট-জেনারেলকেও পরিচালনা করে থাকে।[৩]

এখানকার রাষ্ট্রদূত হচ্ছেন মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন[৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী দূতাবাস কানেক্টিকাট এভিনিউয়ে অবস্থিত ছিল।[৫]

মার্চ ১৯৭৩-এ ওয়াশিংটন, ডি.সি.-তে সর্বপ্রথম দূতাবাস খোলার লক্ষে ১৭৩২ ম্যাসাচুসেটস এভিনিউ উত্তরপশ্চিমে বাংলাদেশ একটি ভবন ক্রয় করে।[৫] ঐস্থানে দূতাবাস খোলায় কিছু স্থানীয় বাসিন্দা এর করে।[৫] এই মন্ত্রণালয় গৃহকে সরকারি দফতরখানায় রূপান্তরিত করতে আবেদন করা হয়, এবং কলম্বিয়া জেলার আঞ্চলিক আবেদন বোর্ড এই অনুরোধপত্রকে প্রত্যাখ্যান করার সিদ্ধান্ত নেয়।[৫] এই প্রত্যাখ্যানপত্রের সাথে বাংলাদেশ দূতাবাস অসম্মতি প্রকাশ করে বিবৃতি দেয় যে, এই ভবনটি পরিকল্পিত সরকারি দফতরখানা এলাকায় অবস্থিত।[৬] বাংলাদেশ এই ভবনটিকে চিলি প্রজাতন্ত্রের কাছে বিক্রি করে দেয়, যা দেশটি তার দূতাবাস হিসেবে ভবনটিকে কাজে লাগাতে সক্ষম হয়।[৭][৮]

২২০১ উয়িসকনসিন এভিনিউ উত্তরপশ্চিমে সফলভাবে বাংলাদেশের দূতাবাস প্রতিষ্ঠার পর দূতাবাসের নির্মাণকার‍্য শেষ হয়।[৯][১০]

২০০০ সালে, বাংলাদেশের দূতাবাসকে ৩৫১০ ইন্টারন্যাশনাল ড্রাইভ উত্তরপশ্চিমে সরানো হয়। এই স্থাপনাটি স্মিথগ্রুপ প্রকৌশল প্রতিষ্ঠানের স্থপতি এডওয়ার্ড গার্সিয়া কর্তৃক ডিজাইন করা হয়েছিল।[১১]

এই স্থপতি ভবনটিকে গঙ্গা নদীর বদ্বীপ সদৃশ করে ডিজাইন করেন।[১১] ডানাকৃতির ছাঁদ প্রস্ফুটিত পদ্মকে, এবং প্রবেশদ্বারে সবুজ পাথরসমূহ বহমান নদনদীকে নির্দেশ করছে।[১১]

বাংলাদেশ দূতাবাসে ২০১১-তে এম্ব্যাসী ওপেন হাউস উপলক্ষে ব্যানার

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Embassy: The People's Republic of Bangladesh
  2. Consulate General of Bangladesh in New York
  3. Consulate General of the People's Republic of Bangladesh, Los Angeles, California
  4. Haniffa, Aziz. "Ambassador Singh hosts joyous Eid celebration". India Abroad (New York, New York). 12 Aug 2016. p. A11–A12.
  5. McCardle, Dorothy. "Celebrating in the Embassy-to-Be". The Washington Post. 27 Mar 1973. p. B3.
  6. Alam, Mahbubul. "Chanceries and Neighborhood Feelings". The Washington Post. 11 June 1979. p. A22.
  7. "Chileans and Friends of Chile". The Washington Post. 8 September 1974. p. C8.
  8. "Embassy of Chile in Washington, D.C. ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১ মার্চ ২০১৮ তারিখে" Embassy of Chile in Washington, D.C. Retrieved 21 May 2017.
  9. "Appeal to Assist the Chittagong Tribals". Akwesasne Notes (Rooseveltown, Mohawk Nation at Akwesasne). 31 May 1987. p. 26.
  10. "Request for Proposal". The Washington Post. 27 July 1998. p. D11.
  11. Forgey, Benjamin. "The International Center, In a World of Its Own". The Washington Post. 13 May 2000. p. C1.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]