বসুরহাট পৌরসভা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বসুরহাট
পৌরসভা
বসুরহাট পৌরসভা
ডাকনাম: বসুরহাট
বসুরহাট বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
বসুরহাট
বসুরহাট
বাংলাদেশে বসুরহাট পৌরসভার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°৫২′৩৩″ উত্তর ৯১°১৬′৩৮″ পূর্ব / ২২.৮৭৫৮৩° উত্তর ৯১.২৭৭২২° পূর্ব / 22.87583; 91.27722স্থানাঙ্ক: ২২°৫২′৩৩″ উত্তর ৯১°১৬′৩৮″ পূর্ব / ২২.৮৭৫৮৩° উত্তর ৯১.২৭৭২২° পূর্ব / 22.87583; 91.27722 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলানোয়াখালী জেলা
উপজেলাকোম্পানীগঞ্জ উপজেলা
প্রতিষ্ঠা৪ এপ্রিল ১৯৯০
সরকার
 • পৌর মেয়রআব্দুল কাদের মির্জা (বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ)
আয়তন
 • মোট৬.৫ বর্গকিমি (২.৫ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা
 • মোট৩৫,০০০
 • জনঘনত্ব৫,৪০০/বর্গকিমি (১৪,০০০/বর্গমাইল)
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৩৮৫০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

বসুরহাট পৌরসভা বাংলাদেশের নোয়াখালী জেলার অন্তর্গত একটি পৌরসভা। জেলা শহর মাইজদী থেকে এটি ২৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত

আয়তন[সম্পাদনা]

এটি ৬.৫ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে অবস্থিত রয়েছে।

অবস্থান ও সীমানা[সম্পাদনা]

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার উত্তরাংশে বসুরহাট পৌরসভার অবস্থান। এ পৌরসভার উত্তরে ও পশ্চিমে সিরাজপুর ইউনিয়ন, দক্ষিণে চর কাঁকড়া ইউনিয়ন, পূর্বে চর হাজারী ইউনিয়ন এবং উত্তর-পূর্বে চর পার্বতী ইউনিয়ন অবস্থিত।

প্রতিষ্ঠাকাল[সম্পাদনা]

৪ এপ্রিল ১৯৯০ সালে বসুরহাট পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়।

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

বসুরহাট পৌরসভায় ৯টি ওয়ার্ড রয়েছে। এ পৌরসভার প্রশাসনিক কার্যক্রম কোম্পানীগঞ্জ থানার আওতাধীন। এটি জাতীয় সংসদের ২৭২নং নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালী-৫ এর অংশ। এটি একটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা।

যোগাযোগ ব্যবস্থা[সম্পাদনা]

চট্টগ্রাম শহর থেকে বসুরহাট যাওয়ার জন্য বসুরহাট এক্সপ্রেস নামে একটি বাস সার্ভিস রয়েছে। রাজধানী ঢাকা থেকে সরাসরি আসার জন্য ড্রীমলাইন নামক বাস সার্ভিস রয়েছে। এছাড়াও শহরটি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে মাত্র 22 কিলোমিটার দক্ষিণে হওয়ায় দেশের যে কোন স্থানে সড়ক পথে যাওয়া যায়।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

বর্তমানে এই পৌরসভায় ৩৫০০০ হাজার মানুষ বসবাস করেতেছে।

শিক্ষা[সম্পাদনা]

এখানে ২টি সরকারি উচ্চবিদ্যালয়, একটি সরকারি কলেজ এবং একটি সরকারি আলিম মাদ্রাসা রয়েছে। তাছাড়া এখানে অনেক সুনামধন্য বেসরকারি স্কুল ও মাদ্রাসা রয়েছে। বসুরহাট সরকারি এ এইচ সি উচ্চ বিদ্যালয় সবচেয়ে বেশি খ্যাতিসম্পন্ন বিদ্যাপাঠ। যেখানে জনাব ওবায়দুল কাদেরসহ অনেক বিখ্যাত মানুষ পড়াশোনা করেছিলেন। এছাড়াও সরকারি মুজিব কলেজ বর্তমানে জেলার অন্যতম শীর্ষ স্থানীয় সরকারি কলেজ। অতীতের যেকোন সময় থেকে এখানে শিক্ষার হার তুলনামূলক ভাবে বেশি। কারণ এখানে পর্যাপ্ত সংখ্যক স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা রয়েছে।

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

এখানকার অর্থনীতি ক্রমাগত শিল্প-কারখানার উপর নির্ভর হয়ে একটি শক্তিশালী স্থানে অবস্থান করতেছে। তাছাড়া রাজধানী ঢাকা ও বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সাথে সরাসরি উন্নত সড়ক যোগাযোগ থাকার ফলে এখানকার অর্থনীতির চাকা সচল। বর্তমানে এখানে ব্যবসা-বাণিজ্য সবচেয়ে বেশি অর্থনৈতিক জায়গা দখল করে আছে। তাছাড়াও বর্তমানে প্রধান সড়ক গুলো প্রশস্ত ও নতুন সংযোগ সড়ক তৈরি করার ফলে এখানকার স্থানীয় অর্থনীতিতে ব্যাপক সমৃদ্ধি অর্জন করতেছে। বর্তমানে,নোয়াখালী বেড়ীবাঁধে নতুন একটি মহাসড়ক তৈরি করার কারণে এখানে নতুন ইকোনমিক জোন তৈরি করা হচ্ছে। ফলে বসুরহাট শহর দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

জনপ্রতিনিধি[সম্পাদনা]

  • বর্তমান পৌর মেয়র: আব্দুল কাদের মির্জা
  • সাবেক পৌর মেয়র:
  1. কামাল উদ্দিন চৌধুরী (বিএনপি)
  2. ডাঃ মোঃ আবদুল হালিম এমবিবিএস

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]