ফ্রান্সে ধর্ষণ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ফ্রান্সে ধর্ষণ অবৈধ, বৈবাহিক ধর্ষণও অবৈধ। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ফ্রান্সে ধর্ষণের নথিবদ্ধ ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

পর্যবেক্ষণ[সম্পাদনা]

ফরাসি ইতিহাস জুড়ে ধর্ষণ নথিভুক্ত করা হয়েছে। জর্জেস ভিগারেলো তাঁর ২০০১ সালের বইয়ে ফ্রান্সে ধর্ষণের ইতিহাস নিয়ে লিখেছেন, তিনি বিশেষ করে ১৬শ থেকে ২০ শতকের ঘটনা তুলে ধরেছেন। তিনি বলেছেন যে ঐতিহাসিকভাবেই ধর্ষণকে সহিংসতার রূপ হিসেবে দেখা হয়েছে, কিন্তু সেভাবে শাস্তি দেওয়া হয়নি।[১]

পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

বার্ষিক ধর্ষণ এবং প্রতি ১০০,০০০ মানুষের ওপর যে কোন ধরণের যৌন নিপীড়ন

১৯৭১ সালে, ঘোষিত ধর্ষণের হার প্রতি ১০০,০০০ মানুষের মধ্যে ২.০ ছিল।[২] ১৯৯৫ সালে, এটি হয়ে দাঁড়িয়েছে ১২.৫।[৩] ২০০৯ সালে, এটি ১৬.২ এ দাঁড়িয়েছিল।[৪]

২০১২ সালের একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রতি বছর প্রায় ৭৫,০০০ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।[৫] ২০১২ সালে, ৬৬ মিলিয়ন জনসংখ্যায় ১,২৯৩ টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে,[৬] এবং ২০১৩ সালে ৬৬ মিলিয়ন জনসংখ্যায় ধর্ষণের ঘটনা ১,১৮৮টি।[৭]

২০১৫ সালে, ফ্রান্স দেশে ধর্ষণ হার ছিল প্রতি ১০০,০০০ জন জনসংখ্যায় ২০.১ টি। ২০০৬ সালে ফ্রান্স দেশে প্রতি ১০০,০০০ জনসংখ্যায় ধর্ষণ এর হার ছিল ১৫.৯টি, সেটি ২০১৫ সালে প্রতি ১০০,০০০ জনসংখ্যায় বেড়ে গিয়ে হয়েছে ২০.১টি অর্থাৎ বার্ষিক বৃদ্ধির হার ২.৭২%।[৮]

গণ ধর্ষণ[সম্পাদনা]

২০১৪ সালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ধর্ষণের ঘটনাগুলির প্রায় ৫,০০০ থেকে ৭,০০০ হল গণধর্ষণ[৯] গণধর্ষণকে বলা হয় টুরনাটেস, বা "পাশে দিয়ে দেওয়া"।[১০][১১] গণধর্ষণের সংস্কৃতির প্রতি সর্বপ্রথম জনসাধারণের দৃষ্টি আকর্ষণ করানোর মধ্যে একজন ছিলেন সামিরা বেলিল, যিনি ড্যানস লে'নফার দে টুরনানটেস ("গণ ধর্ষণ নরকে") নামে একটি বই প্রকাশ করেছিলেন।[১০][১১]

উল্লেখযোগ্য অপরাধী[সম্পাদনা]

গিলস ডি রইস (১৪০৪ - ১৪৪০) - ধর্ষণ, হত্যা এবং নির্যাতনের জন্য দোষী সাব্যস্ত, তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল।[১২]

পিয়েরে চ্যানেল (১৯৪৬ - ২০০৩) - ফরাসি সৈনিক, ধর্ষণ ও অপহরণের জন্য দোষী সাব্যস্ত, দশ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। [১৩][অনির্ভরযোগ্য উৎস?]

এমিল লুই (১৯৩৪ - ২০১৩) - ২০০৪ সালে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা।[১৪]

মিশেল ফোরনিরেট (১৯৪২–) - ১৯৮৭ সালে ধর্ষণ, এবং নাবালিকাদের লাঞ্ছনার জন্য দোষী সাব্যস্ত।[১৫]

জোসেফ ভ্যাচার (১৮৬৯ - ১৮৯৮) - হত্যা, ধর্ষণের দায়ে দোষী সাব্যস্ত। ১৮৯৮ সালের ডিসেম্বর মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।[১৬]

রোমান পোলানস্কি (১৯৩৩–)-অভিনেতা, ১৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণের দায়ে দোষী সাব্যস্ত। [১৭]

গাই জর্জেস (১৯৬২–) - প্রায় সাতজন নারীকে ধর্ষণ করে হত্যা করেছে। ২০০১ সালে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে।[১৮]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

সাধারণ:

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • ভিগারেলো, জর্জেস (২০০১)। এ হিস্ট্রি অফ রেপ: সেক্সুয়াল ভায়োলেন্স ইন ফ্রান্স ফ্রম দ্য ১৬থ টু ২০থ সেঞ্চুরি। উইলি। আইএসবিএন 9780745621692 

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Inger Skjelsb K; Inger Skjelsbæk। The Political Psychology of War Rape: Studies from Bosnia and Herzegovina। Routledge। পৃষ্ঠা 48। আইএসবিএন 9781136620928 
  2. Veeraraghavan, Vimala (১৯৮৭)। Rape and Victims of Rape: A Socio-psychological Analysis। Northern Book Centre। 
  3. Simon, Rita James। A Comparative Perspective on Major Social Problems। Lexington Books। পৃষ্ঠা 20–21। 
  4. "Statistics : Crime : Sexual Violence"। Unodc.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৪ 
  5. "Light Gang Rape Penalties Provoke Outcry in France"Nytimes.com। ১১ অক্টোবর ২০১২। 
  6. "Les chiffres clés de la Justice 2013" (PDF)Justice.gouv.fr। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  7. "Les chiffres-clés de la Justice 2014" (PDF)Justice.gouv.fr। সংগ্রহের তারিখ ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 
  8. "France Rape rate, 2003-2020 - knoema.com"Knoema (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৫-২৬ 
  9. "Tournantes: le calvaire de Nina et Stéphanie - L'EXPRESS"। Lexpress.fr। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৪-১০ 
  10. Ireland, Susan (Winter ২০০৭)। "Textualizing Trauma in Samira Bellil's Dans l'enfer des tournantes and Fabrice Génestal's La squale"। Dalhousie French Studies81: 131–141। জেস্টোর 40837893 
  11. Hron, Madelaine (২০১০)। Translating Pain: Immigrant Suffering in Literature and Culture। University of Toronto Press। আইএসবিএন 978-1-4426-9324-1 
  12. Dutton, Donald G. (২০০৭)। The Psychology of Genocide, Massacres, and Extreme Violence: Why "normal" People Come to Commit Atrocities। Greenwood Publishing Group। পৃষ্ঠা 129। 
  13. "French Serial Killer Pierre Chanal: The Military Superman - Yahoo Voices"Voices.yahoo.com। ২০০৫-০১-২৬। ২০১৪-০৪-১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৪-১০ 
  14. Mulholland, Rory (২০১৩-১০-২১)। "French serial killer Emile Louis dies aged 79"Telegraph.co.uk। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৪-১০ 
  15. Wendy De Bondt; Nina Peršak; Charlotte Ryckman (২০১২)। The Disqualification Triad: Approximating Legislation, Executing Requests, Ensuring Equivalence। Maklu। পৃষ্ঠা 84। 
  16. Stone, Ciana (২০১২)। Redeemed। Ellora's Cave Publishing Inc। পৃষ্ঠা 38। 
  17. "Roman Polanski's rape victim unveils controversial memoir cover"Nydailynews.com। ২০১৩-০৭-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০৪-১০ 
  18. Vronsky, Peter (২০০৪)। Serial Killers: The Method and Madness of Monsters। Penguin। পৃষ্ঠা 32।