ফেজ্যান্ট দ্বীপ

স্থানাঙ্ক: ৪৩°২০′৩৪″ উত্তর ১°৪৫′৫৬″ পশ্চিম / ৪৩.৩৪২৭৮° উত্তর ১.৭৬৫৫৬° পশ্চিম / 43.34278; -1.76556
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

ফেজ্যান্ট দ্বীপ(ফরাসি: Île des Faisans/Île de la Conférence, স্পেনীয়: Isla de los Faisanes, বাস্ক: Konpantzia) হলো একটি জনমানবহীনন দ্বীপ যা বিডাসোয়া নদীর মাঝে অবস্থিত। এটি ফ্রান্স এবং স্পেন এর সীমানার মাঝে অবস্থিত এবং এটির শাসনব্যবস্থা দুই দেশের মাঝে পর্যায়ক্রমে পরিবর্তন হয়ে থাকে।

দ্বীপটি আসলে একটি কনডোমিনিয়াম বা এমন আন্তর্জাতিক আইনের আওতাধীন অঞ্চল, যার শাসনক্ষমতা একাধিক শক্তি দ্বারা মীমাংসার ভিত্তিতে নির্ধারিত হয়।[১] ১৬৫৯ সালের ট্রিটি ওব দ্যা ফিরেনিইস' দ্বারা দ্বীপটি প্রতিষ্ঠিত। যুক্ত সার্বভৌমত্ব দ্বারা প্রতি ছয় মাস পর পর ফ্রান্স এবং স্পেন এর মাঝে এর দায়িত্ব পরিবর্তিত হতে থাকে। এটি অনুষ্ঠানিকভাবে স্পেনের সান সেবাইসটাইনের নৌ সেনাদের দায়িত্বে থাকে ১লা ফেব্রুয়ারি থেকে ৩১জুলাই পর্যন্ত। আর ফ্রান্সের বেয়োনে দায়িত্বে থাকে ১ আগস্ট থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। অর্থাৎ দ্বীপটি সার্বিকভাবে ইরুন, গিপুজকোয়া, স্পেনহেনদায়, পিরেনেস, আটল্যান্টিকুইস, ফ্রান্স দ্বারা পরিচালিত হয়। [২]

ভূপ্রকৃতি[সম্পাদনা]

এই দ্বীপটি হচ্ছে একটি রাজনৈতিক অধিরাজ্য[৩] যা স্পেন ও ফ্রান্সের সার্বভৌম ক্ষমতার অধীনে ১৬৫৯ সালে পিরেনিসের চুক্তির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল, এবং সরকারীভাবে ছয় মাসের জন্য স্পেনের স্যান সেবাস্টিয়ান (১লা ফেব্রুয়ারি– ৩১ জুলাই) অঞ্চলের এবং ফ্রান্সের বায়ন (১ আগস্ট – ৩১ জানুয়ারি) অঞ্চলের নৌ কমান্ডারের শাসনে থাকে; প্রকৃতপক্ষে এটি ইরুন (গুইপুস্কয়া, স্পেন) এবং হেনদাইয় (পিরেনিস-অ্যাটলান্টিকেস, ফ্রান্স) কর্তৃক যথাক্রমে পরিচালিত হয়।[২] জানুয়ারি ২০১৮-এর হিসাব অনুযায়ী এই দ্বীপটি প্রায় ২০০ মিটার (৬৬০ ফু) দীর্ঘ এবং ৪০ মিটার (১৩০ ফু) চওড়া যা ক্ষয় হয়ে যাচ্ছে।[২]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

স্পেনের দিক থেকে ফেজ্যান্ট দ্বীপ

দ্বীপে ঘটা সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক ঘটনাটি হলো পাইরিনিদের সন্ধি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান। প্রায়  ত্রিশ বছরের যুদ্ধের শেষের দিকে ১৬৫৯ সালে স্পেনের গ্র্যান্ডি লুইস ডি হারো এবং ফ্রান্সের মুখ্যমন্ত্রী কার্ডিনাল মাজারিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত ২৪ টি সম্মেলনের পর এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। সভার স্মরণে দ্বীপের মাঝখানে একটি মনোলিথ বা ভৌগোলিক স্মারক তৈরি করা হয়।

এই দ্বীপটি আরও বেশ কয়েকটি রাজকীয় বৈঠকের জন্য ব্যবহৃত হয়েছিল।

  • ১৬৫৯ সালে- চতুর্দশ তাঁর ভবিষ্যত স্ত্রী মারিয়া থেরেসা (১৬৩৮-১৬৮৩) এর সাথে দেখা করেন।  তাঁরা ছিলেন লে গ্র্যান্ড ডাউফিনের পিতামাতা ও অভিভাবক।  এক বছর পরে আইসেল অফ ফিয়াসান্টের সভায় তিনি তার পিতা স্পেনের চতুর্থ রাজাকে বিদায় জানান। তিনি ফ্রান্সে পাড়ি দেওয়ার আগে চতুর্দশ লুইসের সঙ্গী হয়েছিলেন।
  • ১৭২১ সালে চতুর্দশ লুইস স্পেনের মারিয়ানা ভিক্টোরিয়া (১৭১৮–১৭৮১) এর সাথে মিলিত হন, যদিও দুজন কখনো বিয়ে করেনি।  এর পরিবর্তে লুইস মেরি লেজস্কেস্কা এবং মারিয়া পর্তুগালের প্রথম জোসেফকে কে বিয়ে করেছিলেন।

প্রবেশাধিকার[সম্পাদনা]

ভাটা থাকলে অনেক সময় স্পেন এর দিক দিয়ে দ্বীপটিতে প্রবেশ করা যায়।.[২] এটি জনমানবহীন এবং এর প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত। [৪] তবে কিছু ছুুুুটির দিন ও ঐতিহাসিক দিনে এটি সাধারণের জন্য খোলা রাখা হয়।

তাছাড়া সরকারি কর্মকর্তা, পরিচ্ছন্নককর্মী ও সৈনিকেরা দাপ্তরিক কাজের জন্য এর প্রবেশাধিকার পায়।[৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. España asume la jurisdicción de la isla de los Faisanes, la más pequeña del mundo (Retrieved 3 December 2015)
  2. "The island that switches countries every six months"BBC। ২৮ জানুয়ারি ২০১৮।  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "bbc" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  3. España asume la jurisdicción de la isla de los Faisanes, la más pequeña del mundo (Retrieved 3 December 2015)
  4. "Pheasant Island"। Hendaye Tourist Office। ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জানুয়ারি ২০১২ 
  5. Porto, Rita; Porto, Rita। "A ilha dos Faisões, o condomínio mais antigo do mundo, é seis meses francesa e seis meses espanhola"Observador (পর্তুগিজ ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-০৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে ফেজ্যান্ট দ্বীপ সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন