ফুলচাষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
একটি খুচরা গ্রিনহাউসে উদ্ভিদের কিছু বৈচিত্র্য

ফুলচাষ বা ফুলের চাষাবাদ, ফুলের শিল্প নিয়ে গঠিত উদ্যান এবং শোভাময় উদ্ভিদ চাষের সাথে সম্পর্কিত উদ্যানতত্ত্বের একটি শৃঙ্খলা বা পদ্ধতি। উদ্ভিদের বংশবৃদ্ধির মাধ্যমে নতুন জাতের বিকাশ ফুলচাষিদের একটি প্রধান পেশা।

ফুলের চাষের শস্যগুলির মধ্যে রয়েছে বিজতলা উদ্ভিদ, বাড়ির গাছপালা, ফুলের বাগান এবং পাত্রের গাছ, চাষ করা সবুজ কাটা এবং কাটা ফুল। নার্সারির ফুলচাষের ফুলগুলি সাধারণত ভেষজ উদ্ভিদ হয়ে থাকে। বিজতলা এবং বাগানের গাছগুলিতে অল্প বয়স্ক ফুলের গাছ (বার্ষিক ও বহুবর্ষজীবী) এবং উদ্ভিজ্জ উদ্ভিদ হয়ে থাকে। এধরণের উদ্ভিদগুলি সেল প্যাক (ফ্ল্যাট বা ট্রেতে), হাঁড়ি বা ঝুলন্ত ঝুড়িতে, সাধারণত নিয়ন্ত্রিত পরিবেশের মধ্যে জন্মে এবং বাগান ও ল্যান্ডস্কেপিংয়ের উদ্দেশ্যে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বিক্রি হয়ে থাকে। পেলের্গোনিয়াম ("জেরানিয়ামস"), ইমপ্যাটিয়েনস ("ব্যস্ত লিজি") এবং পেটুনিয়া বিজতলা উদ্ভিদের মধ্যে সর্বাধিক বিক্রিত। চন্দ্রমল্লিকার বিভিন্ন জাত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বহুবর্ষজীবী উদ্যান উদ্ভিদ হিসাবে বিবেচিত।[১]

বাংলাদেশ[সম্পাদনা]

বাংলাদেশে শৌখিন এবং পেশাদার ভাবে ফুলচাষ হয়ে থাকে। সাধারণত কাটাফুল জাতীয় প্রধানত গোলাপ, রজনীগন্ধা, অর্কিড, গ্লাডিওলাস প্রভৃতি সহ বাহারি পাতার গাছ এবং মরসুমি ফুলের বীজের চাহিদা রয়েছে। দেশের বাইরে বিশেষত মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপে গোলাপ ও রজনীগন্ধা রপ্তানি হয়ে থাকে। আধুনিক পুষ্পচর্চার এবং বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট ফুলচাষ বিষয়ক শাখা পরিচালনা করছে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Floriculture, Nursery"রুরাল মাইগ্রেশন নিউস১৩। জানুয়ারি ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ৪ এপ্রিল ২০২০ 
  2. মামুন-উর-রশিদ, আবুল খায়ের (২০১২)। "ফুলচাষ"। ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওসিএলসি 883871743 

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]