ফতুল্লাহ শিরাজী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ফতুল্লাহ শিরাজী আকবরকে উপস্থাপনা করছেন মুঘল চিত্রকলা সভায়

আমির ফতুল্লাহ শিরাজী (১৫৮২ খ্রিঃ) ছিলেন একজন ফার্সি পলিমেথ—একজন পণ্ডিত, ইসলামী আইনজ্ঞ, ধনাধ্যক্ষ, যান্ত্রিক প্রকৌশলী, আবিষ্কর্তা, গণিতজ্ঞ, জ্যোতিষী, চিকিৎসক, দার্শনিক এবং শিল্পী—যিনি মুঘল সাম্রাজ্য-এর সম্রাট আকবর-এর জন্যে কাজ করতেন। তাকে আমিন-উল-মুলক, ‘আসাফ-উল-দৌলা’, ‘রোস্তম সানী’ ইত্যাদি উপাধিতে ভূষিত করা হয়েছিল।[১]

বঙ্গাব্দ[সম্পাদনা]

বঙ্গাব্দের বিকাশ এবং উন্নয়নে আমির ফতুল্লাহ শিরাজীর অনেক অবদান রয়েছে। মোগল সম্রাট আকবরের সময়ে প্রচলিত হিজরী চান্দ্র পঞ্জিকাকে সৌর পঞ্জিকায় রূপান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সম্রাট আকবর ইরান থেকে আগত বিশিষ্ট বিজ্ঞানীজ্যোতির্বিদ "আমির ফতুল্লাহ শিরাজী"কে[২] হিজরী চান্দ্র বর্ষপঞ্জীকে সৌর বর্ষপঞ্জীতে রূপান্তরিত করার দায়িত্ব প্রদান করেন। ফতুল্লাহ শিরাজীর সুপারিশে পারস্যে প্রচলিত সৌর বর্ষপঞ্জীর অনুকরণে[৩] ৯৯২ হিজরী মোতাবেক ১৫৮৪ খ্রিষ্টাব্দে সম্রাট আকবর হিজরী সৌর বর্ষপঞ্জীর প্রচলন করেন। তবে তিনি ঊনত্রিশ বছর পূর্বে তার সিংহাসন আরোহনের বছর থেকে এ পঞ্জিকা প্রচলনের নির্দেশ দেন। এজন্য ৯৬৩ হিজরী সাল থেকে বঙ্গাব্দ গণনা শুরু হয়। ৯৬৩ হিজরী সালের মুহররম মাস ছিল বাংলা বৈশাখ মাস, এজন্য বৈশাখ মাসকেই বঙ্গাব্দ বা বাংলা বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস এবং ১লা বৈশাখকে নববর্ষ ধরা হয়।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আকবরের দরবারের আমির ফতেউল্লাহ শিরাজী আর নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার ফতেউল্লাহ এক ব্যক্তি নন - আমার দেশ"। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৪ 
  2. "বৈশাখ : গ্রাম বাংলার সাংস্কৃতিক আশ্রয়, বাংলা নিউজ ২৪ ডট কম"। ১২ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১৪ 
  3. বাংলা বর্ষপঞ্জি
  4. পহেলা বৈশাখ: ইতিহাস ও বিধি-বিধান