ফতওয়া অন টেরোরিজম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ফতওয়া অন টেরোরিজম এন্ড সুইসাইড বোম্বিংস
Fatwa-on-Terrorism1.jpg
প্রথম সংস্করণের প্রচ্ছদ
লেখকশাইখুল ইসলাম ড. মুহাম্মদ তাহিরুল কাদেরি,
জন এসপোজিতো (ভুমিকা), জুয়েল হাইওয়ার্ড (উপস্থাপনা)
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
বিষয়ফতোয়া
প্রকাশকমিনহাজুল কুরআন পাবলিকেশন্স
প্রকাশনার তারিখ
৩১ জানুয়ারি, ২০১১
মিডিয়া ধরনPrint (Hardcover)
পৃষ্ঠাসংখ্যা৫১২
আইএসবিএন978-0-9551888-9-3

ফতওয়া অন টেরোরিজম এন্ড সুইসাইড বোম্বিংস (ইংরেজি: Fatwa on Terrorism and Suicide Bombings) হলো ২মার্চ ২০১০ সালে প্রকাশিত শাইখুল ইসলাম ড. তাহিরুল কাদেরি কর্তৃক ৬০০ পৃষ্ঠাব্যাপী (উর্দু সংস্করণ), ৫১২ পৃষ্ঠাব্যাপী (ইংরেজি সংস্করণ) লিপিবদ্ধ ইসলামি আইনি অধ্যাদেশ বা রায় যাতে শরিয়তের উৎস হতে উপপাদন করা হয়েছে যে সন্ত্রাসবাদআত্মঘাতি হামলা নীতিবিগর্হিত, পাপ এমনকি তা অনৈসলামিক কর্মকাণ্ড।[১] ফতওয়াটি লন্ডন থেকে বই আকারে প্রকাশিত হয়।[১][২]

ফতওয়া[সম্পাদনা]

ফতওয়াটি ২ মার্চ ২০১০ সালে ড. কাদেরি কর্তৃক প্রদত্ত হয়।[৩] ফতোয়াটি আল কায়েদাতালেবান সহ অন্যান্য জঙ্গিগোষ্ঠির মতবাদসমূহের সরাসরি অপনোদন তথা খণ্ডন। এটি একটি বিস্তৃততম সন্ত্রাসবিরোধি বিধিনির্দেশ, একটি দোহাই বা ক্ষমাহীন পরম দণ্ডাদেশ যা এর চেয়ে উপরন্তু আরো বেশি এবং ঘোষিত করে যে সন্ত্রাসবাদ ইসলামি আইন মোতাবেক কুফরি।.[৪]

সার-সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

ফতওয়াটি মিডিয়ার সুদুরপ্রসারী অভিনিবেশপ্রাপ্ত হয় এবং সুনিশ্চিতভাবে আন্তর্জাতিক সমবেত সংবাদমাধ্যম দ্বারা অবগুণ্ঠিত হয়।[৫]
সিএনএন এর পরিবেশনানুসারে, কতিপয় অভিজ্ঞ ফতোয়াটিকে সন্ত্রাসবাদের পুনরুত্থানের বিরুদ্ধে লাক্ষণিক করাঘাত হিসেবে লক্ষ্য করেছেন।[৬] সিএনএন এর আমানপৌর শো তাদের ওয়েবসাইটে ফতোয়াটির সারসংক্ষেপ যোগ করেছে এবং শান্তি প্রতিষ্ঠামুলক ফতোয়া হিসেবে ঘোষণা করেছে।[৭]
একইসাথে ওয়াশিংটন টাইমস উল্লেখ করে যে, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফতোয়াটিকে ইসলামকে জঙ্গিদের থেকে ফিরিয়ে নেবার যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে ঘোষণা করেছে।[৮]

ফতওয়াপ্রদান অনুষ্ঠান[সম্পাদনা]

ফতোয়াপ্রদান অনুষ্ঠানটি মিনহাজুল কুরআন, যুক্তরাজ্য শাখা কর্তৃক পৃষ্ঠপোষিত হয়। ফতোয়াপ্রদানের সময় ড. কাদেরি বলেন যে,

সন্ত্রাসবাদ সন্ত্রাসবাদই, উৎপীড়ন উৎপীড়নই। আর ইসলামি শিক্ষার মধ্যে এর কোনো স্থান নেই। আর না কোনো পাক্ষিক সমর্থন বা কোনো শর্ত বা আপত্তি এ দণ্ডাদেশের জন্য উপস্থাপন করা যাবে।

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. "Fatwa on Terrorism"en.wikipedia.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ এপ্রিল ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০১৯ 
  2. "Fatwa on Terrorism & Suicide Bombings BOOK"। ২০১১-১১-২৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১২-১৮  ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত নভেম্বর ২৯, ২০১১ তারিখে
  3. "Influential Pakistani cleric based in GTA"। ২০১০-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৫-১৪ 
  4. "Sheikh issues fatwa against all terrorists"The Independent। ২০১১-০৯-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  5. "Tahir ul-Qadri and the difficulty of reporting on fatwas"Reuters। ২০১৫-০২-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  6. "Some experts see fatwa as significant blow to terrorist recruiting"। ২০১২-১১-০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  7. "Fatwa for Peace"। ২০১৫-০২-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 
  8. "Muslim leader's edict decries terrorism - Washington Times"The Washingtion Times। ২০১৫-০১-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫