প্রবেশদ্বার:হিন্দুধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(প্রবেশদ্বার:Hinduism থেকে পুনর্নির্দেশিত)
Aum calligraphy Red.svg
lift
হিন্দুধর্ম প্রবেশদ্বার
হিন্দুধর্মের প্রবেশদ্বার হিন্দুধর্ম কী? রূপরেখা নির্ঘণ্ট প্রকল্প বিষয়শ্রেণী
Lotus vector.svg
Lotus vector.svg

ভূমিকা

Om symbol.svg

হিন্দুধর্ম ভারতীয় উপমহাদেশের বৃহত্তম তথা একটি দেশীয় ধর্মবিশ্বাস। হিন্দু ধর্মাবলম্বীগণ স্বীয় ধর্মমতকে সনাতন ধর্ম (सनातन धर्म) নামেও অভিহিত করেন। হিন্দুধর্মের সাধারণ "ধরনগুলির" মধ্যে লৌকিকবৈদিক হিন্দুধর্ম থেকে বৈষ্ণবধর্মের অনুরূপ ভক্তিবাদী ধারার মতো একাধিক জটিল মতবাদগুলির সমন্বয়ের এক প্রচেষ্টা লক্ষিত হয়। যোগ, কর্মযোগ ধারণা, ও হিন্দু বিবাহের মতো বিষয়গুলিও হিন্দুধর্মের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। হিন্দুধর্ম একাধিক ধর্মীয় ঐতিহ্যের সমন্বয়ে গঠিত। এই ধর্মের কোনো একক প্রতিষ্ঠাতা নেই। লৌহযুগীয় ভারতের ঐতিহাসিক বৈদিক ধর্মে এই ধর্মের শিকড় নিবদ্ধ। হিন্দুধর্মকে বিশ্বের "প্রাচীনতম জীবিত ধর্মবিশ্বাস" বা "প্রাচীনতম জীবিত প্রধান মতবাদ" আখ্যা দেওয়া হয়। জনসংখ্যার বিচারে হিন্দুধর্ম খ্রিষ্টধর্মইসলামের পরেই বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম ধর্মমত। এই ধর্মের অনুগামীদের সংখ্যা ১০০ কোটিরও বেশি। এদের মধ্যে প্রায় ১০০ কোটি হিন্দু বাস করেন ভারতীয় প্রজাতন্ত্রে। এছাড়া নেপাল (২৩,০০০,০০০), বাংলাদেশ (১৪,০০০,০০০) ও ইন্দোনেশীয় দ্বীপ বালিতে (৩,৩০০,০০০) উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় হিন্দুরা বাস করেন। হিন্দুধর্মের শাস্ত্রগ্রন্থের সংখ্যা প্রচুর। হিন্দুশাস্ত্র শ্রুতিস্মৃতি নামে দুই ভাগে বিভক্ত। এই গ্রন্থগুলিতে ধর্মতত্ত্ব, দর্শনপুরাণ আলোচিত হয়েছে এবং ধর্মানুশীলন সংক্রান্ত নানা তথ্য বিবৃত হয়েছে। এই গ্রন্থগুলির মধ্যে বেদ সর্বপ্রাচীন, সর্বপ্রধান ও সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। অন্যান্য প্রধান ধর্মগ্রন্থগুলি হল উপনিষদ্‌, পুরাণ, ও ভারতীয় মহাকাব্য রামায়ণমহাভারতভগবদ্গীতা নামে পরিচিত মহাভারতের কৃষ্ণ-কথিত একটি অংশ বিশেষ গুরুত্বসম্পন্ন ধর্মগ্রন্থের মর্যাদা পেয়ে থাকে।

নির্বাচিত নিবন্ধ - আরেকটি দেখান

কুরুক্ষেত্রে কৃষ্ণঅর্জুন, অষ্টাদশ-ঊনবিংশ শতাব্দীর চিত্রকলা

ভগবদ্গীতা (সংস্কৃত: भगवद्गीता, ˈbʱəɡəʋəd̪ ɡiːˈt̪aː, ভগবানের গান) বা শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা বা গীতা একটি ৭০০-শ্লোকের ধর্মগ্রন্থ। সাতশত শ্লোকের একটি গ্রন্থ বিধায় একে সপ্তশতী বলে। এটি প্রাচীন সংস্কৃত মহাকাব্য মহাভারত-এর একটি অংশ। গীতা একটি স্বতন্ত্র ধর্মগ্রন্থ তথা একটি পৃথক শাস্ত্র এর মর্যাদা পেয়ে থাকে। হিন্দুরা গীতা-কে ভগবানের মুখনিঃসৃত বাণী মনে করেন। মানবধর্ম, দর্শনসাহিত্যের ইতিহাসে গীতা এক বিশেষ স্থানের অধিকারী। গীতা-র কথক কৃষ্ণ হিন্দুদের দৃষ্টিতে ঈশ্বরের অবতার পরমাত্মা স্বয়ং। তাই গীতা-য় তাকে বলা হয়েছে "শ্রীভগবান"।

গীতা-র বিষয়বস্তু কৃষ্ণপাণ্ডব রাজকুমার অর্জুনের কথোপকথন। কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ শুরু ঠিক আগে শত্রুপক্ষে আত্মীয়, বন্ধু ও গুরুকে দেখে অর্জুন কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছিলেন। এই সময় কৃষ্ণ তাকে ক্ষত্রিয় যোদ্ধার ধর্ম স্মরণ করিয়ে দিয়ে এবং বিভিন্ন প্রকার যোগশাস্ত্রবৈদান্তিক দর্শন ব্যাখ্যা করে তাকে যুদ্ধে যেতে উৎসাহিত করেন। তাই গীতা-কে বলা হয় মানব ধর্মতত্ত্বের একটি সংক্ষিপ্ত পাঠ এবং হিন্দুদের জীবনচর্যার একটি ব্যবহারিক পথনির্দেশিকা। যোগশাস্ত্র ব্যাখ্যার সময় কৃষ্ণ নিজের "স্বয়ং ভগবান" রূপটি উন্মোচিত করেন এবং বিশ্বরূপে অর্জুনকে দর্শন দিয়ে আশীর্বাদ করেন। অর্জুন ছাড়া প্রত্যক্ষভাবে কৃষ্ণের মুখ থেকে গীতা শুনেছিলেন সঞ্জয় (তিনি যুদ্ধের ঘটনা ধৃতরাষ্ট্রের কাছে বর্ণনা করার জন্য বেদব্যাসের কাছ থেকে দিব্য দৃষ্টি লাভ করেছিলেন), হনুমান (তিনি অর্জুনের রথের চূড়ায় বসে ছিলেন) ও ঘটোৎকচের পুত্র বর্বরিক যিনি কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধের সব ঘটনা দেখেছিলেন)। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

নির্বাচিত চিত্র

ইসকন নিউ বৈদিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র (মহারাষ্ট্র, ভারত)
কৃতিত্ব: Niraj Suryawanshi
ইসকন নিউ বৈদিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের পুনে শহরের বৃহত্তম হিন্দু মন্দির।

শাস্ত্রবাণী

द्यौः शान्ति॑र॒न्तरि॑क्ष॒ꣳ शान्तिः॑ पृथि॒वी शान्ति॒रापः॒ शान्ति॒रोषध॑यः॒ शान्तिः॑।
वन॒स्पत॑यः॒ शान्ति॒र्विश्वे॑ दे॒वाः शान्ति॒र्ब्रह्म॒ शान्तिः॒ सर्व॒ꣳ शान्तिः॒ शान्ति॑रे॒व शान्तिः॒ सा मा॒ शान्ति॑रेधि॥१७॥

দ্যৌ শান্তিরন্তরিক্ষং শান্তিঃ পৃথিবী শান্তিরােপঃ শান্তিরােষধয়ঃ শান্তি।
বনস্পতয়ঃ শান্তির্বিশ্বে দেবাঃ শান্তি শান্তিঃ সৰ্ব্বং শান্তিঃ শান্তিরেব শান্তিঃ সামা শান্তিরেধি।

ভাবার্থ:
দ্যুলােক, অন্তরিক্ষ লােক ও পৃথ্বীলােক শান্তিময় হোক। জল, ঔষধি ও বনস্পতি শান্তিময় হোক। সব বিদ্বান্, বেদপাঠ এবং যা কিছু সবই শান্তিময় হোক! সৰ্ব্বত্র শান্তিময় হোক। সেই শান্তি আমি যেন প্রাপ্ত হই।
যজুর্বেদ (৩৬ অধ্যায়। ১৭মন্ত্র)

নির্বাচিত জীবনী - আরেকটি দেখান

সোহং স্বামী

সোহং স্বামী (১৮৫৮ - ১৯১৮) (পূর্বাশ্রমের নাম শ্যামাকান্ত বন্দ্যোপাধ্যায়) একজন ভারতীয় যোগীঅদ্বৈত বেদান্তের গুরু। প্রথম জীবনে তিনি একজন কুস্তিগীর ছিলেন। বাঘের সাথে কুস্তির খেলা দেখিয়ে তিনি জনপ্রিয় হয়েছিলেন। পরে হিমালয়ে তিব্বতীবাবার শিষ্যত্ব গ্রহণ করে যোগ সাধনা করতে থাকেন। নৈনিতাল ও হরিদ্বারে তিনি দুটি আশ্রম প্রতিষ্ঠা করেন। প্রখ্যাত বিপ্লবী যতীন্দ্রনাথ বন্দ্যোপধ্যায় তার শিষ্যত্ব গ্রহণ করে নিরালম্ব স্বামী নাম নেন। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

আপনি জানেন কি Symbol question.svg - আরেকটি দেখান

উল্লিখিত তথ্যগুলি উইকিপিডিয়া:আপনি জানেন কি প্রকল্পের অংশ হিসেবে প্রধান পাতায় প্রদর্শিত হয়েছে।

তিলোত্তমা, রাজা রবি বর্মা অঙ্কিত, ১৮৯৬ সালের ক্রোমোলিথোগ্রাফি

নির্বাচিত উক্তি

“তুমি যখন নিজের দেহ মাত্র বলিয়া ভাবো, তখন তুমি বিশ্বজগৎ হইতে বিচ্ছিন্ন; নিজেকে যখন জীব বলিয়া ভাবো, তখন তুমি সেই শাশ্বত মহান্ জাতির একটি কণিকামাত্র; আর যখন নিজের আত্মা বলিয়া ভাবো, তখন তুমিই সব কিছু।”

স্বামী বিবেকানন্দ(১২ জানুয়ারি, ১৮৫৩ – ৪ জুলাই, ১৯০২)
ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রসিদ্ধ হিন্দু ধর্মগুরু, যিনি ছিলেন রামকৃষ্ণ পরমহংসের প্রধান শিষ্য এবং রামকৃষ্ণ মিশনের প্রতিষ্ঠাতা।

নির্বাচিত মন্দির - আরেকটি দেখান

Dakshin Kali main Temple.JPG

দক্ষিণকালী মন্দির, কাঠমান্ডু উপত্যকার দক্ষিণে (দক্ষিণ) অংশেও এই মন্দিরটি অবস্থিত।

দক্ষিণাকালি নামের উৎপত্তি ব্যাখ্যা করার জন্য বিভিন্ন গল আচার অনুষ্ঠানের পূর্বে বা যাঁর গুরুর পূর্বে কোনও পুরোহিতকে দেওয়া উপহারকে বোঝায়। এই জাতীয় উপহারগুলি ঐতিহ্যগতভাবে ডান হাত দিয়ে দেওয়া হয়। দক্ষিণাকালীর দুটি ডান হাত সাধারণত বরকত ও বরদানের অঙ্গভঙ্গিতে চিত্রিত হয়। তার নামের উত্সের একটি সংস্করণ এসেছে দক্ষিণের দক্ষিণা (দক্ষিণা) বসবাসকারী যম, মৃত্যুর কর্তা। ইয়াম কালী নামটি শুনে, তিনি সন্ত্রাসে পালিয়ে গিয়েছিলেন এবং তাই যারা কালীকে উপাসনা করেন তাদের বলা হয় যে তিনি নিজেই মৃত্যুকে কাটিয়ে উঠতে পেরেছিলেন। (সম্পূর্ণ নিবন্ধ...)

জানুয়ারি মাসে উৎসব ও অনুষ্ঠান


স্বীকৃত ভুক্তি

ভাল নিবন্ধ

আজাকি নিবন্ধ

বিষয় বিভাগ

বিষয়শ্রেণী

বিষয়শ্রেণী ধাঁধা

নিচের বিষয়শ্রেণীগুলোর অধীনে সবগুলো নিবন্ধ সাজানো আছে। [►] চিহ্নে ক্লিক করলেই উপ-বিষয়শ্রেণী দেখতে পাবেন।

আপনি কি করতে পারেন

বাঙালি হিন্দু লোকাচার (বর্তমান বা প্রাচীন) একটি অসম্পূর্ণ তালিকা। আপনি ইচ্ছা করলে যেকোন একটি নিবন্ধ শুরু করতে পারেন।

সম্পর্কিত প্রবেশদ্বার

সম্পর্কিত উইকিমিডিয়া

Wikinews-logo.svg
উইকিসংবাদে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত সংবাদ উৎস

Wikiquote-logo.svg
উইকিউক্তিতে হিন্দুধর্ম
উক্তি-উদ্ধৃতির সংকলন

Wikisource-logo.svg
উইকিসংকলনে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত পাঠাগার

Wikibooks-logo.png
উইকিবইয়ে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত পাঠ্যপুস্তক ও ম্যানুয়াল

Wikiversity-logo.svg
উইকিবিশ্ববিদ্যালয়ে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত শিক্ষা মাধ্যম

Commons-logo.svg
উইকিমিডিয়া কমন্সে হিন্দুধর্ম
মুক্ত মিডিয়া ভাণ্ডার

Wiktionary-logo.svg
উইকিঅভিধানে হিন্দুধর্ম
অভিধান ও সমার্থশব্দকোষ

Wikidata-logo.svg
উইকিউপাত্তে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত জ্ঞানভান্ডার

Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg
উইকিভ্রমণে হিন্দুধর্ম
উন্মুক্ত ভ্রমণ নির্দেশিকা