পোল্ড ডরসেট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

পোল্ড ডরসেট
Ewe and lamb taken at the NCSU Small Ruminant Educational Unit.jpg
নর্থ ক্যারোলিনা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মল রুমিন্যান্ট ইউনিটে তোলা পোল্ড ডরসেট শাবকসহ একটি মেষের ছবি।
পোষ মানা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: Mammalia
বর্গ: Artiodactyla
পরিবার: Bovidae
উপপরিবার: Caprinae
গণ: Ovis
প্রজাতি: O. aries
দ্বিপদী নাম
Ovis aries
Linnaeus, 1758

পোল্ড ডরসেট ভেড়া বা মেষের একটি জাত বিশেষ। নর্থ ক্যারোলিনা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় এর স্মল রুমিন্যান্ট ইউনিটে ১৯৫৬ সালে মেষের এই জাতটি উদ্ভাবিত হয়। পশুটির নামকরণ থেকেই বোঝা যায় পোল্ড ডরসেট হল শিং বিহীন ভেড়ার জিনগত পরিবর্তনের মাধ্যমে সৃষ্ট একটি প্রজাতি। বেশ কয়েক বছর চেষ্টায় পর সাফল্যের সাথে মেষের এই উপজাতটির প্রজনন সম্ভব হয় যার শারিরীক বৈশিষ্ট্যে শিং ছিল অনুপস্থিত।

পোল্ড ডরসেট সম্পূর্ন সাদা রঙের, মাঝারি আকৃতির গঠন ও প্রচুর প্রজনন ক্ষমতা বিশিষ্ট ভেড়া যারা ভিন্ন ঋতুতেও সন্তান জন্ম দিতে সক্ষম। এদের দেহে সুবিন্যস্ত মাংসপেশী আছে এবং পূর্ণ বয়স্ক পশু প্রচুর সাদা পশম উৎপাদন করে যেখানে কোন কালো আঁশ থাকে না। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিবন্ধনের পর থেকে দেখা যায় যে, পোল্ড ডরসেট শিংযুক্ত ডরসেটের চেয়ে বেশী উৎপাদনক্ষম। শিং বিহীন মেষ প্রতিপালন করা অনেক সহজ। এছাড়া শিং না থাকায় পুরুষ মেষেরা পরস্পরের শিং দ্বারা আহত হয় না। পোল্ড ডরসেট অনেক সময় অস্ট্রেলিয়ান পোল্ড ডরসেটের সাথে মিলিয়ে ফেলা হয়। প্রকৃতপক্ষে এই প্রজাতিটি জেনেটিক মিউটিশনের মাধ্যমে জন্মায়নি। পোল্ড ডরসেট পৃথক দুইট মেষ প্রজাতি Corriedale এবং Ryeland এর মিশ্রনে তৈরী এক নতুন জাত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৪৯ সালে নর্থ ক্যারোলিনা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি খামারে শিং বিহীন চারটি পুরুষ শাবককে প্রজনন করা হয়। এরপরবর্তী পাঁচ বছরে স্বাভাবিক প্রজনন প্রোগ্রামের আওতায় আরো কিছু শিং যুক্ত স্ত্রী মেষের সাথে আরো কিছু শিংযুক্ত শাবকের জন্ম দেয়। এক পর্যায়ে একটি স্ত্রী ভেড়ার সাথে একজোড়া জমজ শাবকের জন্ম দেয়। তাদের একটির নাম ছিল NCSU 401, যার মাথায় শিং ছিল। কিন্তু তার ভাই, যার নাম ছিল NCSU 402, তার মাথায় শিং ছিল না। এটাই পোল্ড ডরসেটের সংক্ষিপ্ত জন্ম ইতিহাস। [১] NCSU 402 হচ্ছে প্রথম পোল্ড ডরসেটের দাপ্তরিক নাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের স্মল রুমিন্যন্ট প্রজনন ইউনিটের নিয়ম অনুযায়ী নতুন শাবকের নামকরণ এভাবেই করা হয়েছিল।

অনেক গবেষণা ও পরীক্ষা নিরীক্ষার পর নিশ্চিত হওয়া গেল যে পোল্ড ডরসেট শিং যুক্ত ডরসেটের মতই একই বৈশিষ্ট সম্পন্ন এবং এই বৈশিষ্ট্য তারা পরবর্তি প্রজন্মে পৌছে দিতেও সক্ষম। ১৮৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া কন্টিনেন্টাল ডরসেট ক্লাব, ১৯৫৬ সালে পৃথিবীর প্রথম পোল্ড ডরসেট নিবন্ধন করে। [২][৩] পশু সম্পদ বিজ্ঞানী প্রয়াত ড. লেমুয়ের গুডি এবং প্রয়াত স্যাম বুচানান, এই দুইজনকে শৃঙ্গবিহীন মেষ শনাক্ত ও উদ্ভাবনের কৃতিত্ব দেয়া হয়। NCSU 401 এর শাবকদেরকে আরো অনেক খামারিরা কিনে নিয়ে প্রজনন করে। দেখা যায় যে বিশ বছরের মধ্যে সত্তর শতাংশ নিবন্ধিত ডরসেট ছিল শৃঙ্গবিহীন মেষ। পোল্ড ডরসেটের এই সাফল্যের এই প্রজাতির মেষকে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় সর্বাধিক জনপ্রিয় মেষের জাত হিসাবে বিবেচনা করা হয়।[১] ১৯০০ সালে অস্ট্রেলিয়াতে একজাতের পোল্ড ডরসেট প্রজনন করা হয়েছিল,[৩] শুধুমাত্র Corriedale এবং Ryeland এর রক্ত ডরসেটের শৃঙ্গে সূচনা করা হয়েছিল মাত্র। [২]

গঠন বৈশিষ্ট্য[সম্পাদনা]

নর্থ ক্যারোলিনা স্টেট ইউনিভার্সিটির খামারে একটি পোল্ড ডরসেট ও তার শাবক

পোল্ড ডরসেট মধ্যম আকারের অধিক প্রজননক্ষম ও প্রচুর দুগ্ধবতী হয়। এই জাতের মেষ মজবুত গঠনের, মাঝারি আকারের শাবক জন্ম দেয় যার থেকে প্রচুর মাংস পাওয়া যায়। [৪] এই মেষের পশম খুব সাদা, মজবুত, ঘন, কাল আঁশমুক্ত এবং পায়ের অনেক নিচে পর্যন্ত হয়। একটি মেষ থেকে পাঁচ থেকে নয় পাউন্ড (২.২৪ থেকে ৪ কেজি) পর্যন্ত পশম পাওয়া যায় সত্তর শতাংশ পশম ব্যবহার উপযোগী।[৫] পশমের দৈর্ঘ্য সাধারনত ২.৫ থেকে ৪ ইঞ্চি (৬ থেকে ১০ সেমি) হয় এবং সংখ্যায় হয় ৪৬ থেকে ৫৮ টি থাকে। আঁশের ব্যাস হয় ২৭ থেকে ৩৩ মাইক্রোন। একটি পূর্ণ বয়স্ক স্ত্রী ভেড়া ১৫০ থেকে ২০০ পাউন্ড (৬৭ থেকে ৯১ কেজি) ওজনের হয়ে থাকে, কিছু ভেড়া দৃশ্যতঃ আরো বেশী ওজনের হয়ে থাকে। একটি পূর্ণ বয়স্ক পুরুষ ভেড়ার ওজন ২২৫ থেকে ২৭৫ পাউন্ড হয়ে থাকে (১০২ থেকে ১২৫ কেজি)। ডরসেট ভেড়া এক বছরে একাধিকবার বাচ্চা প্রসব করে। স্বাভাবিক প্রজনন সময়ের বাইরে এ ধরনের ভেড়া সংকর প্রজাতির স্ত্রী মেষের জন্মদানে ব্যবহার করা হয়। [৪] তবে খুব অল্প সংখ্যক প্রজাতির মধ্যেই এই বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যায়। একই বছরে একাধিক প্রজননের বৈশিষ্ট্য বানিজ্যিকভাবে উৎপাদনের জন্য জনপ্রিয়। এমনকি যে খামারে শুধু মাংস উৎপাদনের জন্য শুধু পুরুষ মেষ উৎপাদন করা হয় সেই সব খামারের জন্যও তা লাভজনক। মাংস উৎপাদনের জন্যে ব্যবহৃত পুরুষ মেষটিকে বলা হয় প্রান্তিক সারেস, যেটির জেনেটিকস প্রজননের চাইতে মাংস উৎপাদনের জন্য অধিক সুবিধাজনক। [৫]

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে দ্রুত এই মেষের প্রতিপালন কানাডায় শুরু হয় এবং অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই তা সে দেশের ভেড়ার মাংসের শিল্পে সবচেয়ে বেশী অবদান রাখতে শুরু করে। জাতটি সংরক্ষিত প্রজনন ব্যবস্থায় সফল হবার পর সংকরজাত প্রোগ্রামে স্থানান্তরিত হয়। পোল্ড ডরসেট ঘাস জাতীয় খাবারে চমৎকার বৃদ্ধি পায় এবং ভাল দেখাশোনা করা হয় এমন ছোট খামারের জন্য উপযোগী। [৬]

শৃঙ্গবিহীন বনাম শৃঙ্গযুক্ত ডরসেট[সম্পাদনা]

ডরসেট হলো মেষের এমন এক প্রাচীন জাত যার উৎপত্তি শৃঙ্গযুক্ত ডরসেট থেকে। শৃঙ্গযুক্ত ডরসেটের আদি বাসস্থান ছিল দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ডের চারনভূমি ও উপত্যকায়। ১৮৬০ সালে শৃঙ্গযুক্ত ডরসেট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমদানি করা হয়, এবং ন্যাশনাল ফ্লক বুক তৈরী করা হয় ১৮৯১ সালে। [৭] বর্তমানে পৃথিবীতে শৃঙ্গযুক্ত ও শৃঙ্গবিহীন এই দুই ধরনের ডরসেট পাওয়া যায়, স্ত্রী ও পুরুষ মেষ উভয়েরই শিং থাকে কিন্তু পোল্ড ডরসেট বা শৃঙ্গবিহীন ডরসেটের স্ত্রী বা পুরুষ কারোই শিং থাকে না। পোল্ড ডরসেটের শিং না থাকায় তা বানিজ্যিক ভিত্তিক খামারিদের জন্য উপযুক্ত কারণ খামারের বেড়ার সাথে শিং আটকে যেমন দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা থাকে না তেমনি নিজেদের মধ্যে মারামারি করার সময় আহত হবার সম্ভবনাও থাকে না। [২]

পোল্ড ডরসেট উত্তর আমেরিকার সবচেয়ে জনপ্রিয় ভেড়ার জাত, যেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দ্যা লাইভস্টক কনসারভেন্সি কম জনপ্রিয় জাত শৃঙ্গযুক্ত ডরসেটকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে ঘোষনা করেছে।[২] সারকথা হল, এই দুিই জাতের মধ্যে পার্থক্য হল একজাতের মেষের মাথায় শিং আছে অন্য জাতের মাথায় শিং নেই। [৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Monument dedicated to sheep, scientists"Perspectives: The Magazine of the College of Agriculture and Life Sciences1 (1)। Winter ১৯৯৯। 
  2. "Dorset Horn Sheep", livestockconservancy.org, The Livestock Conservancy, সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৯-০২ 
  3. Carol Ekarius (২০০৮), Storey's Illustrated Breed Guide to Sheep, Goats, Cattle and Pigs: 163 Breeds from Common to Rare, Storey Pub., পৃষ্ঠা 236–237, আইএসবিএন 978-1-60342-036-5 
  4. "Meat Breeds: Dorset (Polled and Horned)"। American Sheep Industry Association। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০১৩ 
  5. "Dorsets Horned and Polled"। Oklahoma State University Department of Animal Science। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০১৩ 
  6. "Polled Dorset"। Canadian Cooperative Wool Growers। ২৪ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মে ৩০, ২০১৩ 
  7. Janet Vorwald Dohner (২০০১), The Encyclopedia of Historic and Endangered Livestock and Poultry Breeds, Yale University Press, পৃষ্ঠা 108–110, আইএসবিএন 978-0-300-13813-9 
  8. "Dorset Horn"SVF Foundation। মে ৩০, ২০১৩। 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Barrell, G. K.; Lapwood, K. R. (১৯৭৯)। "Seasonality of semen production and plasma luteinizing hormone, testosterone and prolactin levels in Romney, Merino and polled dorset rams"। Animal Reproduction Science1 (3): 213। doi:10.1016/0378-4320(79)90003-4 
  • Pritchard, D. H.; Napthine, D. V.; Sinclair, A. J. (১৯৮০)। "Globoid Cell Leucodystrophy in Polled Dorset Sheep"। Veterinary Pathology17 (4): 399–405। doi:10.1177/030098588001700402PMID 7385575 
  • Bowman, J. C.; Hendy, C. R. C. (২০১০)। "A study of retail requirements and genetic parameters of carcass quality in polled dorset horn sheep"। Animal Production14 (2): 189। doi:10.1017/S0003356100010874