পোভেগ্লিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পোভেগ্লিয়া
Isola di Poveglia - panoramio - Angelo Meneghini.jpg
পোভেগ্লিয়া দ্বীপ
ভূগোল
স্থানাঙ্ক৪৫°২২′৫৫″ উত্তর ১২°১৯′৫২″ পূর্ব / ৪৫.৩৮১৯৪৪° উত্তর ১২.৩৩১১১১° পূর্ব / 45.381944; 12.331111স্থানাঙ্ক: ৪৫°২২′৫৫″ উত্তর ১২°১৯′৫২″ পূর্ব / ৪৫.৩৮১৯৪৪° উত্তর ১২.৩৩১১১১° পূর্ব / 45.381944; 12.331111
সংলগ্ন জলাশয়ভেনেতীয় উপদ্বীপ
প্রশাসন
প্রশাসনিক এলাকাভেনেতো
প্রদেশভেনিস

পোভেগ্লিয়া ভেনিস এবং লিডো র মাঝে অবস্থিত উত্তর ইতালির ছোট এক দ্বীপ। লেগুন সেইন্ট মার্ক্স চত্বরে অবস্থিত এই দ্বীপ "পোভেগ্লিয়া ভেনিস" বা "ইজোলা দি পোভেগ্লিয়া" হিসেবেও পরিচিত। দ্বীপটি ভেনিস হতে ৩ (তিন) মাইল দক্ষিণে অবস্থিত। পোভেগ্লিয়া দ্বীপটি খাল দ্বারা দুই ভাগে বিভক্ত এবং তার উপর একটি সংযোগ সেতু বিদ্যমান। পরিত্যক্ত এই দ্বীপটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন নয় তবে দ্বীপটির মূল ভবনগুলির বর্তমান পরিস্থিতির জন্যে পর্যটকবান্ধব নয় হিসাবে চিহ্নিত। মূল আকর্ষণ দ্বীপটিতে দাড়িয়ে থাকা মানসিক হাসপাতালটি যেটা ১৯২২ সালে উন্মুক্ত এবং ১৯৬৮ সালে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। দ্বীপটির বিষয়ে যথেষ্ট পরিমাণ অতিপ্রাকৃতিক ঘটনার প্রতিবেদনের কারণে পোভেগ্লিয়া দ্বীপটি ইতালির টিকে থাকা অন্যতম ভুতুড়ে স্থান হিসাবে চিহ্নিত। এখানে বেশ অনেকগুলি রিয়ালিটি শো ধারনকৃত হয়েছে, যার মধ্যে "ঘোস্ট অ্যডভেঞ্চার", "স্যাকারিয়েস্ট প্লেসেস অন আর্থ" বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। হসপিটালসহ ১১টি ভবন নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা দ্বীপটিকে পৃথিবীর অন্যতম ভূতুড়ে স্থান হিসাবে ধরা হয়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৭ একর জায়গা জুড়ে পোভেগ্লিয়া ইতালির সেইন্ট মার্ক্স স্কয়ারে অবস্থিত একটি ছোট দ্বীপ। ৪২১ খ্রিষ্টাব্দে দ্বীপটিতে প্রথম বসতি গড়ে ওঠে, ৯ম শতকের দিকে দ্বীপের জনসংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে। এই সময়ে দ্বীপটি পোদেস্টা শাসকদের অধীনে ছিল। পরবর্তীতে দ্বীপটির দখল নিয়ে ১৪ শতকে ভেনেশিয়ান (ভেনিসের অধিবাসী) এবং জেনোশিয়ানদের (জেনিসের অধিবাসী) মধ্যে প্রবল যুদ্ধ সংঘটিত হয়। স্থানীয়ভাবে বলা হয়, যুদ্ধে ব্যবহৃত কামান ও বন্দুকের শব্দ আজও রাতের আঁধারে প্রতিধ্বনিত হয়। যুদ্ধে জয়ী হয় ভেনেটিয়ানস সরকার নিরাপত্তার স্বার্থে দ্বীপের প্রবেশদ্বারকে সৈন্যদ্বারা রক্ষা ও নিয়ন্ত্রণের জন্যে দ্বীপটির চারপাশে পাঁচটি অষ্টভুজাকৃতির খাল নির্মাণ করে। পোভেগ্লিয়া পৃথিবীতে এখনও টিকে থাকা চার অষ্টাভুজের মধ্যে একটি।

দ্বীপটিতে বিভিন্ন দেশের জাহাজের মালপত্র ওঠা-নামার জন্য এক অস্থায়ী বন্দর নির্মাণ করা হয় এবং পরবর্তীতে পূর্ণাঙ্গ জাহাজ-বন্দর হিসেবে কার্যক্রম চালাতে থাকে। ১৩৪৮ সালে দ্বীপের নোঙর ফেলা দুইটি জাহাজে বিউবোনিক প্লেগ দেখা দেয় এবং এই রোগে আক্রান্ত দুইজন মারা যায়। উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবার অভাবে প্লেগ মহামারীর আকার ধারণ করে এবং বন্দরটিকে সিল করে দেওয়া হয, পভেগ্লিয়া জনশুন্য হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে ইতালির বিভিন্ন শহরে প্লেগ আক্রান্তদের পভেগ্লিয়া দ্বীপে পাঠানো হত যা সংখ্যায় ১ লাখ ৬০ হাজার ছাড়িয়ে যায় এবং পভেগ্লিয়া মৃত্যুপুরী বা Island of Dead নামেও পরিচিতি পেতে থাকে। অনেকেরই বিশ্বাস জন্মায় যে, মারা যাওয়া সেই মানুষগুলোর অতৃপ্ত আত্মা ঘুরে ফেরে এই দ্বীপে।[১][২]

ভবন এবং কাঠামো[সম্পাদনা]

লিডো থেকে দৃশ্যমান পোভেগ্লিয়া প্যানারোমা চিত্র

১৭ একরের এই দ্বীপটিতে সর্বমোট ১১টি স্থাপনা ভবন অথবা কাঠামো হিসাবে বিবেচিত হয়, এর মধ্যে টিকে থাকা হিসাবে বিবেচিত হয় একটি করে কাভানা, চার্চ, হসপিটাল, মানসিক আশ্রয়স্থান, ঘণ্টা-মিনার (বেল টাওয়ার) এবং কিছু পরিত্যক্ত বাড়ি ও প্রাক্তন প্রশাসনিক ভবন। দ্বাদশ শতকের ঘণ্টা-মিনারটিই দ্বীপটির বর্তমান প্রধান দৃশ্যমান কাঠামো। এটি মূলত ছিল সান ভিটলে চার্চের অংশ ছিল, ১৮০৬ সালে চার্চটি পরিত্যক্ত হবার পর ঘণ্টা মিনারটি সমুদ্র পথের বাতিঘর হিসাবে ব্যবহৃত হতে থাকে।

মধ্যবর্তী সংযোগকারী সেতু

দ্বীপটিতে মুল ভবন সমূহ এবং গাছপালা ও মাঠের মাঝে সংযোগকারী একটি সেতু রয়েছে। দ্বীপটির অষ্টাভুজ দুর্গটি পৃথিবীতে তৃতীয়, এটি মূল দ্বীপ ও অন্যান্য ভবন থেকে বিচ্ছিন্ন কিন্তু একই সাথে সম্পূর্ণ দ্বীপের সম্মুখভাগে প্রাচীরের ন্যায় অবস্থান করছে।

বর্তমানে ইতালির কর্তৃপক্ষ দ্বীপটি বিক্রি করতে আগ্রহী এবং এর ভেতরে থাকা হাসপাতালটি এই বিলাসবহুল হোটেলে পরিণত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিক্রির তালিকায় রাখা হয়েছে চারটি বিশেষ সম্পত্তিকে আশ্রম, পোভেগ্লিয়ার পুরাতন শহর টারান্টো, হাসপাতাল এবং ১৫ শতকের গোয়ালঘর যার পাশে অবস্থিত একটি দুর্গ যা ব্যবহার করা হতো তুর্কিদের আক্রমণ প্রতিহত করতে।[২]

অপার্থিব অনুশীলন[সম্পাদনা]

পোভেগ্লিয়ার পৃথিবীর অন্যতম ভূতুড়ে অবকাঠামো হিসাবে ইতিমধ্যে স্বীকৃতি পেয়ে গেছে। স্থানীয়ভাবে বলা হয়, ১৪শ শতকের যুদ্ধের কামান ও বন্দুকের আওয়াজ এখনও রাতে শোনা যায়। দ্বীপের চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে থাকা হাজার-হাজার কঙ্কাল তৈরি করে রেখেছে থমথমে একটা পরিবেশ এবং স্থানীয় লোকমুখে জানা যায়, মারা যাওয়া এই মানুষগুলোর অতৃপ্ত আত্মা ঘুরে ফেরে এই দ্বীপে এবং এসব আত্মা অন্যের আধিপত্য মেনে নিতে পারে না। ১৯২২ সালে ইটালির সরকার মানসিক রোগীদের জন্য দ্বীপটিতে একটি মানসিক হাসপাতাল গড়ে তোলে কিন্তু হাসপাতালের চিকিৎসক, সেবিকা আর অন্যান্য কর্মরত লোকজন চাপা আতঙ্ক ও ভয় এবং অদৃশ্য কারও অনুভূতি পাবার কারণ দেখিয়ে চাকুরী করতে চাইতেন না। হাসপাতালে থাকা ভর্তি হওয়া মানসিক রোগীরা সুস্থ হওয়ার পরিবর্তে বিকারগ্রস্ত হয়ে পড়তে থাকে। হাসপাতালের পরিচালকের উন্মত্ত হয়ে হাসপাতালেরই ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করবার পর ১৯৬৮ সালে ইতালি সরকার দ্বীপের এই মানসিক হাসপাতাল বন্ধ করে দেয়। দীর্ঘ বিরতির পর একজন মার্কিন উপস্থাপক দ্বীপটিতে মার্কিন টেলিভিশনের জন্য নিষিদ্ধ হাসপাতালটিকে কেন্দ্র করে একটি রোমাঞ্চকর সিরিজ তৈরি করেন, যেখানে তার নানা ভয়ঙ্কর ভূতুড়ে অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন।

পোভেগ্লিয়ার পরিত্যক্ত হসপিটাল

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "আইল অফ ম্যাডনেসঃ পভেগ্লিয়া আইল্যন্ড ইজ হ্যন্টেড বাই দ্যা ঘোস্ট অফ ১৬০,০০০ প্লেগ ভিক্টিমস"উইক ইন উইয়ার্ড (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মে ২০১৭ 
  2. "নিলামে তোলা হচ্ছে ভেনিসের ভয়ংকর ভৌতিক দ্বীপ পোভেগ্লিয়া"। দ্যা ঢাকা টাইমস। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মে ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]