পে-মা-গ্লিং-পা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পে-মা-গ্লিং-পা

পে-মা-গ্লিং-পা বা পদ্ম গ্লিং-পা (তিব্বতি: པདྨ་གླིང་པ་ওয়াইলি: pe ma gling pa) (১৪৫০-১৫২১) তিব্বতী বৌদ্ধধর্মের র্ন্যিং-মা ধর্মসম্প্রদায়ের লুক্কায়িত প্রাচীন গ্রন্থের আবিষ্কারক বা গ্তের-স্তোন ছিলেন। ভূটানের র্ন্যিং-মা ধর্মসম্প্রদায়ের ঐতিহ্যে তাঁকে পদ্মসম্ভবের পরেই তাঁকে গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে।

প্রথম জীবন[সম্পাদনা]

পে-মা-গ্লিং-পা ১৪৫০ খ্রিষ্টাব্দে ভূটানের বুমথাং রাজ্যের স্তাংস উপত্যকায় অবস্থিত ছাল-বা-রি-ব্রাং (ওয়াইলি: chal ba ri brang) নামক স্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম ছিল দোন-গ্রুব-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: don grub bzang po) এবং মাতার নাম ছিল পে-মা-স্গ্রোন-মা (ওয়াইলি: pe ma sgron ma)। জন্মের পর তাঁর পিতামাতা নাম রাখেন দোন-গ্রুব-র্গ্যাল-পো (ওয়াইলি: don grub rgyal po)। তাঁকে কম বয়সে তার মাতামহ য়োন-তান-ব্যাং-ছুবের (ওয়াইলি: yon tan byang chub) নিকট পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পেশায় কামার য়োন-তান-ব্যাং-ছুব তাঁকে কামারশালায় কাজ শেখান। এই সময় বিখ্যাত গ্তের-স্তোন র্দো-র্জে-গ্লিং-পার (ওয়াইলি: rdo rje gling pa) পুত্র তাঁর নতুন নাম রাখেন ও-র্গ্যান-পে-মা-গ্লিং-পা (ওয়াইলি: o rgyan pe ma gling pa)।[১]

গ্রন্থ আবিষ্কার[সম্পাদনা]

পে-মা-গ্লিং-পা বত্রিশটি লুক্কায়িত প্রাচীন বৌদ্ধ গ্রন্থ আবিষ্কার করেন। স্না-রিং-ব্রাগ অঞ্চলে তিনি বত্রিশটি গ্রন্থের মধ্যে প্রথম ক্লোং-গ্সাল-গ্সাং-বা-স্ন্যিং-ব্চুদ (ওয়াইলি: klong gsal gsang ba snying bcud) নামক পুঁথিটি আবিষ্কার করেন। ১৪৮৩ খ্রিষ্টাব্দে তিনি ল্হো-ব্রাগ অঞ্চল থেকে (ওয়াইলি: lho 'brag) অঞ্চল থেকে ব্লা-মা-নোর-বু-র্গ্যা-ম্ত্শো (ওয়াইলি: bla ma nor bu rgya mtsho) নামক বিখ্যাত গ্রন্থটি আবিষ্কার করেন। এছাড়া তিনি ভূটানতিব্বতের বিভিন্ন স্থান থেকে থুগ্স-র্জে-ছেন-পো-মুন-সেল-স্গ্রোন-মে (ওয়াইলি: thugs rje chen po mun sel sgron me), ত্শে-স্গ্রুব-নোর-বু-লাম-খ্যের (ওয়াইলি: tshe sgrub nor bu lam khyer), নাগ-পো-স্কোর-গ্সুম (ওয়াইলি: nag po skor gsum), লাস-ফ্রান-স্কোর (ওয়াইলি: las phran skor), কুন-ব্জাং-দ্গোংস-'দুস (ওয়াইলি: kun bzang dgongs 'dus), ত্শে-খ্রিদ-র্দো-র্জে'ই-ফ্রেং-বা (ওয়াইলি: tshe khrid rdo rje'i phreng ba), ম্গোন-পো-মা-নিং (ওয়াইলি: mgon po ma ning), ফ্যাগ-র্দোর-দ্রেগ্স-পা-কুন-'দুল (ওয়াইলি: phyag rdor dregs pa kun 'dul), ফুর-বা-য়াং-গ্সাং-স্রোগ-গো-স্পু-গ্রি (ওয়াইলি: phur ba yang gsang srog go spu gri), র্তা-ম্গ্রিন-দ্মার-পো-দ্রেগ্স-পা-জিল-গ্নোন (ওয়াইলি: rta mgrin dmar po dregs pa zil gnon) প্রভৃতি গ্রন্থ আবিষ্কার করেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Maki, Ariana (এপ্রিল ২০১১)। "Pema Lingpa"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-১২-২২ 

আরো পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Aris, Michael (১৯৮৮)। Hidden Treasures and Secret Lives: A Study of Pemalingpa (1450- 1521) and the Sixth Dalai Lama (1683-1706)। London: Keagan Paul। আইএসবিএন 0-7103-0328-9 
  • Harding, Sarah (২০০৩)। The Life and Revalations of Pema Lingpa। Ithaca, NY: Snow Lion। আইএসবিএন 1-55939-194-4 
  • Phuntsho, Karma. 2008. “Ogyen Pema Lingpa (1450-1521), His Life and Legacy.” in The Dragon’s Gift: The Sacred Arts of Bhutan. Terese Tse Bartholomew and John Johnston, eds. Chicago: Serindia, pp, 66-77.
  • Roerich, George, trans. 1996. The Blue Annals. 2nd ed. Delhi: Motilal Banarsidas.
  • Tshewang, Padma, Khenpo Phuntshok Tashi, Chris Butters and Sigmund K. Sætreng. 1995. The Treasure Revealer of Bhutan: Pemalingpa, the Terma Tradition and Its Critics. Biblioteca Himalayica, Series III, Volume 8. Kathmandu: EMR Publishing House.
  • Gangteng Literary Committee (২০০৮)। The Rosary of Jewels: Biographies of the Successive Throne Holders of Gangteng। Bhutan: Gangteng Monastery। 
  • Karma Phuntsho (২০১৩)। The History of Bhutan। Nodia: Random House India। আইএসবিএন 9788184003116 
  • Tshewang, Padma; Tashi, Phuntshok; Butters, Chris; Sætreng, Sigmund K. (১৯৯৫)। "The Treasure Revealer of Bhutan: Pemalingpa, the Terma Tradition and Its Critics"। 8, Biblotheca Himalayica Series III। Kathmandu: EMR Publishing House। 
পূর্বসূরী
--
পে-মা-গ্লিং-পা
প্রথম পে-গ্লিং-গ্সুং-স্প্রুল
উত্তরসূরী
ব্স্তান-'দ্জিন-গ্রাগ্স-পা