পূর্বালাপ (গুজরাতি কবিতার বই)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পূর্বালাপ
Purvalap title page.jpg
পূর্বালাপের প্রচ্ছদ
লেখকমণিশঙ্কর ভট্ট "কান্ত"
দেশভারত
ভাষাগুজরাতি
বিষয়ভালোবাসা ও জীবনের ট্র্যাজেডি
ধরনখণ্ডকাব্য (তন্ময় কবিতা), সনেট
প্রকাশিত১৯২৩
প্রকাশকমণিকুমার মণিশঙ্কর ভট্ট
মিডিয়া ধরনমুদ্রিত
ওসিএলসি২২৮৬০৯৯৬
891.471
এলসি শ্রেণীPK1859.B456 P8

পূর্বালাপ (গুজরাটি: પૂર્વાલાપ) হল ১৯২৩ সালে মণিশঙ্কর রত্নজি ভট্ট ওরফে কবি কান্তের একটি মরণোত্তর প্রকাশিত কবিতার সংকলন।[১] কান্ট ট্র্যাজেডির গ্রিকসংস্কৃত ধারণার মিশ্রণ ঘটিয়ে খণ্ডকাব্যের একটি নতুন রূপ আবিষ্কার করেছেন। কান্ত এই রচনার মাধ্যমে অনেক সাহিত্যিক তাৎপর্যপূর্ণ কবিতা দিয়েছেন যেমন বসন্ত বিজয়, চক্রবকমিথুন, দেবযানী এবং সাগর আনা শশী[২]

বিষয়বস্তু[সম্পাদনা]

তানে হু জু ছু চন্দ, ১৯০১ সালে কান্তের লেখা পূর্বলাপের একটি কবিতা

এই বইয়ের কবিতাগুলি মূলত ব্যক্তিগত জীবন এবং নৈর্ব্যক্তিক সাধনার সংমিশ্রণ নিয়ে সাহিত্য সৃষ্টি করেছেন। বসন্ত বিজয় কবিতাটি মহাভারতের পান্ডুরের মৃত্যুর আগে একটি উল্লেখযোগ্য মুহূর্ত রচিত হয়েছে। এটি তার স্ত্রী মাদ্রীর সাথে অভিশপ্ত পান্ডুর যৌন আকাঙ্ক্ষার কাহিনি বর্ণনা করে যার ফলে তার মৃত্যু হয়েছিল। চক্রবকমিথুন নামে আরেকটি কবিতা চক্রভাকদের একটি জনপ্রিয় পৌরাণিক কাহিনীর উপর ভিত্তি করে লেখা হয়েছে, জোড়া পাখি দুটিকে প্রতি সন্ধ্যায় নিজেদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেত হতো। আরও কয়েকটি কবিতা আছে, যেমন বিপ্রযোগ, মনোহর মূর্তি এবং আপনী ইঁদুর যা তার স্ত্রীর প্রতি ভালোবাসার তীব্রতা প্রকাশ করে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. শিশির কুমার দাস (১৯৯১)। History of Indian Literature: 1911-1956, struggle for freedom : triumph and tragedy। সাহিত্য আকাদেমি। পৃষ্ঠা ৫৭৪। আইএসবিএন 978-81-7201-798-9 
  2. লাল, মোহান (১৯৯১)। Encyclopaedia of Indian Literature: Navaratri To Sarvasena। সাহিত্য আকাদেমি। পৃষ্ঠা ৩৪৭১। আইএসবিএন 9788126012213 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]