পুরা লেম্পুয়াং মন্দির কমপ্লেক্স,বালি,ইন্দোনেশিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপে অবস্থিত পুরা লেম্পুয়াং মন্দিরটি একটি অসাধারণ স্থাপত্য কৃত্তি। এটি বালি দ্বীপের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ৬ টি হিন্দু মন্দিরের একটি।বালির সংস্কৃতির গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হল এই মন্দিরটি।[১] তবে এই মন্দিরে পৌঁছানো খুব সহজ নয়। মন্দিরে উঠতে হলে ১৭০০ সিঁড়ির ধাপ অতিক্রম করতে হয়।স্থানীয় ভাষায় এই মন্দিরকে 'হাজার সিঁড়ির মন্দির'ও বলে।[২] একজন সবল মানুষের কমপক্ষে দুই ঘণ্টা সময় লাগে এই মন্দিরে উঠতে।

মূল মন্দির কমপ্লেক্স[সম্পাদনা]

মুলত এই মন্দিরটি ৭ টি মন্দিররের সমন্বয়ে গঠিত একটি মন্দির কমপ্লেক্স। সমতল থেকে প্রায় ১০৫৮ মিটার উচুতে অবস্থিত এই মন্দির কমপ্লেক্স।[২] মন্দিরে উঠতে তিনটি সিঁড়ি থাকলেও মাঝের সিঁড়িটি দর্শনার্থীদের জন্য নয়। মাঝের সিঁড়িটি মন্দিরের পুরোহিতদের জন্য সংরক্ষিত। [১][২]

মন্দির কমপ্লেক্সে পৌঁছে একটি সরু পথ অতিক্রম করে দ্বিতীয় মন্দির যাকে বলা হয় লেম্পুয়াং মদ্য মন্দির। এরপর লেম্পুয়াং বাজার অতিক্রম করলেই ৭ টি মন্দিরের মধ্যে সব থেকে সুন্দর এবং সব থেকে উচু লেম্পুয়াং লুহুর মন্দিরটি। [২] মন্দির টি শুধু তীর্থ ক্ষেত্র হিসেবেই বিখ্যাত নয় এঁর স্থ্যাপত্য কৃত্তি ভুবন মোহিনী। প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক মন্দিরটি পরিদর্শনে আসেন। এই মন্দিরে বসে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্ত দেখতে প্রতিদিন ভিড় জমে ওঠে।

গুরুত্ব[সম্পাদনা]

এটি বালি দ্বীপের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ৬ টি মন্দিরের একটি।[৩] কেউ কেউ ৬ টির জায়গাতে ৯ টি মন্দির হিসেবে আনেন।[২] বালির সংস্কৃতির গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ হল এই মন্দিরটি।

পর্যটন[সম্পাদনা]

মন্দিরে প্রবেশ করার জন্য সবাইকে সারোং নামক বিশেষ পোশাক পরতে হয়। মন্দির কমপ্লেক্সে যে কোন ধরনের উচ্চ শব্দ নিশিদ্ধ।[২] তাই সবাইকে কঠোর ভাবে নিরাবতা পালন করা বাধ্যতামূলক। মন্দিরে প্রবেশ করে পুণ্য পিপাসীরা পবিত্র জল গ্রহণ করতে পারেন। [১]

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.bali-indonesia.com/magazine/lempuyang-temple.htm#
  2. http://www.balitourism.nl/lempuyangluhureng.htm
  3. http://www.tripadvisor.com/Attraction_Review-g294226-d4155196-Reviews-Pura_Lempuyang-Bali.html